পঞ্চায়েত নির্বাচন: বহু আসনে প্রার্থী দিতে পারলেন না বামেরা

পঞ্চায়েত নির্বাচন: বহু আসনে প্রার্থী দিতে পারলেন না বামেরা

পঞ্চায়েত নির্বাচন: বহু আসনে প্রার্থী দিতে পারলেন না বামেরাপঞ্চায়েত ভোটের প্রথম দফার মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার সময়সীমা শেষ হয়েছে গতকাল। বিরোধীদের আশঙ্কা সত্যি করে নটি জেলার গ্রাম পঞ্চায়েত ও পঞ্চায়েত সমিতির বহু আসনেই প্রার্থী দিতে পারল না  বামেরা। এবিষয়ে গতকালই নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে সিপিআইএম। 

মনোনয়ন পর্বে সন্ত্রাসের ঘটনা ফের একবার প্রশ্ন চিহ্নের মুখে দাঁড় করিয়ে দিল অবাধ ও শান্তিপূর্ণ পঞ্চায়েত ভোটের ভবিষ্যতকে।ভিও- বিরোধীদের আশঙ্কাই সত্যি হল। পঞ্চায়েত ভোটের প্রথম দফায় বহু আসনেই প্রার্থী দিতে পারল না বিরোধীরা। বুধবার বিকেল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত নির্বাচন কমিশনের কাছে যে তথ্য এসে পৌঁছেছে তাতে দেখা যাচ্ছে প্রথম দফার নটি জেলার বহু আসনেই প্রার্থী দিতে পারেনি বামেরা।

পঞ্চায়েত সমিতির মোট আসন ৪৬২। বহু আসনেই প্রার্থী দিতে পারেনি বাম দলগুলি

পশ্চিম মেদিনীপুর। পঞ্চায়েত সমিতির মোট আসন ৭৯৮। প্রায় ১৫০টি আসনে প্রার্থী দিতে পারেনি বাম দলগুলি

যদিও, সব আসনেই প্রার্থী দিয়েছে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস একই চিত্র গ্রাম পঞ্চায়েতে ক্ষেত্রেও।

একাধিক জেলায় মোট আসন সংখ্যার একটি বড় অংশে প্রার্থী দিতে পারেনি বামেরা।

জেলা পরিষদের ক্ষেত্রে ছবিটা কিছুটা আলাদা  পূর্ব মেদিনীপুর পঞ্চায়েত সমিতির মোট আসন ৬৬১৫৭৩ টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে বাম দলগুলি।

হুগলি, গ্রাম পঞ্চায়েতর আসন ৩১১৭বামেরা প্রায় ২৩০০ আসনে প্রার্থী দিতে পারেনি।

পরিস্থিতি জানিয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়েছে বামেরা।

সরকার জানিয়ে দিয়েছে, কেন্দ্রীয় বাহিনী মিলবে না। ফলে আদালতের নির্দেশ মতো নিরাপত্তা বাহিনী আদৌ দেওয়া যাবে কিনা তা নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে।

মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার প্রথম দিন থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে সন্ত্রাসের খবর এসেছে। প্রথম পর্যায়ের নটা জেলার মনোনয়ন পর্বের শেষদিনের তথ্য চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল মনোনয়ন পর্বের আসল ছবিটা। একাধিক জেলায় গ্রাম পঞ্চায়েত কিংবা পঞ্চায়েত সমিতির বহু আসনেই বিরোধীরা মনোনয়নপত্রই জমা দিতে পারল না। ফলে পঞ্চায়েত ভোটের আগামী দু দফাতেও বিরোধীরা কতগুলি আসনে প্রার্থী দিতে পারবে তা নিয়ে সংশয় রয়েই যাচ্ছে।
 
 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

First Published: Thursday, June 06, 2013, 09:45


comments powered by Disqus