রেলমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে উত্তাল সংসদ, বিরোধীদের সঙ্গে সামিল সপাও

Last Updated: Monday, May 6, 2013 - 11:23

উত্তাল সংসদ। ঘুষ বিতর্কে রেল মন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি জানাতে থাকেন এনডিএ ও সমাজবাদী পার্টির সাংসদরা। ফলে মুলতুবী হয়ে যায় সংসদের উভয় কক্ষ। শুরুতেই তুমুল হট্টগোল শুরু হয়। ঘুষ বিতর্কে এতদিন বিরোধীদের বাক্যবাণে বিদ্ধ হচ্ছিলেন রেল মন্ত্রী পবন কুমার বনশল। কিন্তু এবার তাঁর বিরুদ্ধে সরব হল কংগ্রেসের সহযোগী দল মুলায়াম সিং যাদবের সমাজবাদী পার্টি। সমাজবাদী পার্টির পক্ষ থেকে সরাসরি রেল মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করা হল। সোমবার সংসদে যোগ দেওয়ার আগে বর্ষীয়ান সমাজবাদী নেতা রাম গোপাল যাদব সাংবাদিকদের বলেন ``এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। সরকার রেলমন্ত্রীকে বাঁচাবার চেষ্টা করছে। কিন্তু রেলমন্ত্রীকে পদত্যাগ করতেই হবে।``
বাইরে থেকে সমর্থন করলেও এই মুহূর্তে ইউপিএ সরকার টিকিয়ে রাখতে মুলায়ামের দলের সমর্থন ভীষণভাবে প্রয়োজন কংগ্রেসের। এমনিতেই কোল-গেট কেলেঙ্কারির সঙ্গে ঘুষ বিতর্কের জোড়া চাপে জর্জরিত কেন্দ্র সরকার। গতকাল অশ্বিনী কুমার ও পবন কুমারের বনসলের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কংগ্রেস কোর কমিটি। কিন্তু আজলে বিরোধীদের দাবির সঙ্গে সমাজবাদী পার্টিও একসুরে গলা মেলানোয় কোনঠাসা হয়ে গেল তারা।
রবিবার বিতর্ক সত্ত্বেও আপাতত রেলমন্ত্রী পবন কুমার বনশনের পাশেই দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তাঁর দল। রেলমন্ত্রীর পদত্যাগের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছে কংগ্রেস। রবিবার এনিয়ে কংগ্রেস কোর কমিটির বৈঠকে দীর্ঘ আলোচনা হয়। বৈঠক শেষে জানিয়ে দেওয়া হয়, ঘুষকাণ্ডের তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত রেলমন্ত্রীর ইস্তফা দেওয়ার কোনও প্রশ্ন নেই।
যদিও বিরোধিতার রাস্তা থেকে সরতে নারাজ বিজেপি। দুর্নীতির দায়ে ইউপিএ-টু সরকারকেই অবিলম্বে বরখাস্তের দাবি তুলেছে তাঁরা। আইনমন্ত্রীর পর রেলমন্ত্রী। একের পর এক দুর্নীতি- বিতর্ক। প্রথমজনের ক্ষেত্রে অভিযোগ, কোলব্লক বন্টন নিয়ে সিবিআইয়ের রিপোর্টকে প্রভাবিত করার। দ্বিতীয়জনের নাম জড়িয়েছে রেলে ঘুষকাণ্ডে। তবু দুই মন্ত্রীর ওপর থেকে এখনই আস্থা হারাতে নারাজ কংগ্রেস।     
রবিবার প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে, ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধীর উপস্থিতিতে কংগ্রেস কোর কমিটির বৈঠক বসে। সেখানেই সিদ্ধান্ত হয়, দল আপাতত থাকছে অভিযুক্ত মন্ত্রীদের পাশেই।
বিষয়টি যদিও হালকাভাবে নিজে রাজি নয় প্রধান বিরোধী দল। বিজেপির দাবি, বরখাস্ত করা হোক এই সরকারকেই।     
টুজি থেকে কোলগেট, নানা কেলেঙ্কারির দায়ে অভিযুক্ত ইউপিএ সরকারের মাথাব্যথার কারণ এখন রেলে ঘুষকাণ্ড। রেলওয়ে বোর্ডের এক আধিকারিককে পছন্দমতো পদ পাইয়ে দেওয়ার নামে নব্বই লক্ষ টাকা ঘুষ নিতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়েছেন রেলমন্ত্রী পবন কুমার বনশলের ভাগ্নে বিজয় সিঙ্গলা। খোদ রেলমন্ত্রীরও নাম এর সঙ্গে জড়িয়ে যাওয়ায় বেজায় অস্বস্তিতে কেন্দ্র।
প্রতিদিনই আক্রমণের মাত্রা তীব্র থেকে তীব্রতর করছে বিরোধীরা।   



First Published: Monday, May 6, 2013 - 12:21


comments powered by Disqus