হোলির সময় নাশকতার ছক রাজধানীতে

হোলির সময়ে দিল্লির জনবহুল এলাকায় নাশকতার উদ্দেশ্যে ভারতে ফিরেছিল হিজবুল জঙ্গি সৈয়দ লিয়াকত শাহ। তাকে জেরা করে পুলিস জানতে পেরেছে, পুরোনো দিল্লির চাঁদনি চক ও নতুন দিল্লির একটি শপিং মল ছিল জঙ্গিদের টার্গেট। লিয়াকতের ৬ সঙ্গী এখনও রাজধানীতে লুকিয়ে রয়েছে বলে পুলিস নিশ্চিত। তাদের খোঁজে চলছে তল্লাসি।

Updated: Mar 24, 2013, 08:42 AM IST

হোলির সময়ে দিল্লির জনবহুল এলাকায় নাশকতার উদ্দেশ্যে ভারতে ফিরেছিল হিজবুল জঙ্গি সৈয়দ লিয়াকত শাহ। তাকে জেরা করে পুলিস জানতে পেরেছে, পুরোনো দিল্লির চাঁদনি চক ও নতুন দিল্লির একটি শপিং মল ছিল জঙ্গিদের টার্গেট। লিয়াকতের ৬ সঙ্গী এখনও রাজধানীতে লুকিয়ে রয়েছে বলে পুলিস নিশ্চিত। তাদের খোঁজে চলছে তল্লাসি।  
হোলির সময় কয়েকটি নির্দিষ্ট জায়গায় আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটানোই লক্ষ্য। সেই লক্ষ্যে দিল্লিতে ঘুরে বেড়াচ্ছে অন্তত ৬ জন হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গি। গোরখপুরে ধৃত হিজবুল জঙ্গি সৈয়দ লিয়াকত শাহকে জেরা করে পুলিস নিশ্চিত, নতুন দিল্লির একটি শপিং মল এবং পুরোনো দিল্লির চাঁদনি চক এলাকায় নাশকতার ব্লু-প্রিন্ট তৈরি হয়ে গিয়েছিল। লিয়াকতকে জেরা করেই জামা মসজিদ এলাকায় একটি গেস্ট হাউসের সন্ধান মিলেছিল। গেস্ট হাউসের একটি ঘর থেকে আগ্নেয়াস্ত্র এবং বিস্ফোরক উদ্ধার হলেও, কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। পুলিস নিশ্চিত লিয়াকতের সঙ্গীরা লুকিয়ে রয়েছে দিল্লিতেই। জামা মসজিদের কাছে ওই গেস্ট হাউসের সিসিটিভি ফুটেজে সন্দেহভাজন এক জঙ্গিকে দেখা গেছে। সিসিটিভি ফুটেজে কালো টুপি পরা ব্যক্তিই জঙ্গি বলে দাবি পুলিসের। দিল্লি পুলিস নাশকতার কথা বললেও, লিয়াকতের পরিবারের দাবি, আত্মসমর্পণ করতেই নেপাল সীমান্ত দিয়ে ভারতে এসেছিল সে।
কাশ্মীরের কুপওয়ারার বাসিন্দা লিয়াকত ১৫ বছর আগে পাকিস্তানে পালিয়ে যায়। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জঙ্গি শিবিরে  প্রশিক্ষণ নিয়েছিল সে। লিয়াকতের পরিবারের দাবি, আত্মসমর্পণকারী হিজবুল জঙ্গিদের জন্য জম্মু-কাশ্মীর সরকার যে বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণা করেছে, সেই আহ্বানে সাড়া দিয়েই ফিরছিল লিয়াকত। বিষয়টি নিয়ে জম্মু-কাশ্মীর বিধানসভায় শনিবার বিবৃতি দিয়েছেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।
তবে, লিয়াকতের উদ্দেশ্য সম্পর্কে নিজেদের দাবিতে অনড় দিল্লি পুলিস। তাদের দাবি, নাশকতার সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা নিয়েই ভারতে এসেছে লিয়াকত।