ঐকমত্যের অভাবই অন্তরায় সংস্কারে, লালকেল্লায় কবুল প্রধানমন্ত্রীর

চিরাচরিত প্রথা মেনে বুধবার ৬৬তম স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লায় বিশেষ অনুষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করলেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। সকালে প্রথমে রাজঘাটে মহাত্মা গান্ধীর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানান প্রধানমন্ত্রী। এর পর তিনি রওনা দেন লালকেল্লার উদ্দেশে।

Updated: Aug 15, 2012, 03:46 PM IST

চিরাচরিত প্রথা মেনে বুধবার ৬৬তম স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লায় বিশেষ অনুষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করলেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। সকালে প্রথমে রাজঘাটে মহাত্মা গান্ধীর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানান প্রধানমন্ত্রী। এর পর তিনি রওনা দেন লালকেল্লার উদ্দেশে। লালকেল্লায় সশস্ত্র বাহিনীর ৩ শাখার অভিবাদন গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী। সকাল সাড়ে ৭টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।
লালকেল্লার এই অনুষ্ঠানে ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধী, কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার সদস্যরা ছাড়াও, দেশ বিদেশের বহু বিশিষ্ট অতিথিও উপস্থিত ছিলেন। পতাকা উত্তোলনের পর জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর ভাষণে একদিকে দেশের আর্থিক পরিস্থিতি, অন্যদিকে বিভিন্ন রাজ্যে হিংসার ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ মনমোহন সিং। একই সঙ্গে দেশকে বৃদ্ধির পথে ফেরাতে সংস্কার এবং ঐক্যের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।
ঐকমত্যের অভাবে যে আর্থিক সংস্কার থমকে গিয়েছে, লালকেল্লায় জাতির উদ্দেশে ভাষণে সে কথা আরও একবার বলেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। তাঁর নিদান, আর্থিক সঙ্কট কাটাতে দেশে বিনিয়োগের পরিবেশের উন্নতি করে লগ্নিকারীদের আকৃষ্ট করতে হবে। আর্থিক সঙ্কট কাটাতে সরকার আশাবাদী বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। ৭ রেসকোর্স রোডের বাসিন্দার এদিনের ভাষণে উঠে এসেছে বিভিন্ন রাজ্যে প্রয়োজনের তুলনায় কম বৃষ্টিপাত ও কৃষির সমস্যার কথাও। চলতি মরসুমে দেশের প্রায় ৫০ শতাংশ এলাকায় বৃষ্টির ঘাটতি আছে জানিয়ে তিনি জানান, কম বৃষ্টির জন্য যে সমস্ত অঞ্চলের কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন, তাঁদের জন্য সার, বীজ এবং ডিজেলে ভর্তুকি দেবে কেন্দ্রীয় সরকার।

অভ্যন্তরীন নিরাপত্তায় মাওবাদী সমস্যা বড় বিপদ। স্বাধীনতা দিবসের ভাষনে আরও একবার এই উদ্বেগ প্রকাশ করেন মনমোহন সিং। তিনি বলেন মাওবাদী সমস্যার মোকাবিলায় দেশের অনগ্রসর এলাকার উন্নয়ন প্রয়োজন। তবেই সমস্যার মূলে পৌঁছনো যাবে। দেশে হিংসাত্মক ঘটনার বাড়বাড়ন্ত নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী। অসমে জাতি সংঘর্ষের ঘটনাকে দুঃখজনক বলে তার কড়া নিন্দা করেছেন তিনি। সেই সঙ্গে সংঘর্ষ পীড়িতদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন। মহারাষ্ট্রের পুনের সাম্প্রতিক বিস্ফোরণের প্রসঙ্গ তুলে এনে দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বাড়ানোয় বাড়তি গুরুত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
প্রত্যাশিতভাবেই স্বাধীনতা দিবসে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে এসেছে দুর্নীতি সমস্যা ও লোকপাল বিল প্রসঙ্গ। তাঁর দাবি, দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে কেন্দ্র। তার জন্যই লোকসভায় পাশ হয়েছে লোকপাল বিল। এবার লক্ষ্য রাজ্যসভা। সেখানেও লোকপাল বিল পাশ হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন মনমোহন সিং। দিল্লির লাল কেল্লায় ৬৬তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে নিজের ভাষণে তিনি আরও বলেন, শুধু লোকপাল বা লোকায়ুক্ত বিলই নয়। সংসদের চলতি অধিবেশনে আরও অনেক বিলই পেশ করা হবে। সাধারণ মানুষের উন্নয়নের স্বার্থে সেই সব বিলও পাশ হবে বলেই আশাবাদী প্রধানমন্ত্রী।