গোষ্ঠী সংঘর্ষে বিধ্বস্ত অসমে প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং

Last Updated: Saturday, July 28, 2012 - 16:59

অসম পরিস্থিতি দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আসবে। কোকড়াঝাড়ে ত্রাণশিবির পরিদর্শন করে এমনই আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। অসমের ঘটনা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক বলে উল্লেখ করেন তিনি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে সরকার সবরকম ব্যবস্থা নেবে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আজ অসমে হিংসা কবলিত এলাকা পরিদর্শনে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। কোকড়াঝাড়ে দুটি ত্রাণশিবির পরিদর্শন করেন তিনি। আজ সকালে খারাপ আবহাওয়ার কারণে কোকড়াঝাড়ের রওনা হয়েও ফিরে আসতে হয় প্রধানমন্ত্রীকে। ফিরিয়ে আনা হয় তাঁর হেলিকপ্টারও। তবে, গুয়াহাটি বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেওয়াতেই ফিরিয়ে আনা হয় প্রধানমন্ত্রীর হেলিকপ্টারটি। হিংসার জেরে ইতিমধ্যেই ষাটজনের মৃত্যু হয়েছে। আতঙ্কে ঘর ছেড়ে ত্রাণশিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন প্রায় চার লক্ষ মানুষ।

কোকড়াঝাড়ের ত্রাণশিবির পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রী। এবং অসমের হিংসা কবলিত এলাকার জন্য ৩০০ কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেন। এই টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে দেওয়া হবে বলে তিনি জানান । ৩০০ কোটির মধ্যে ১০০ কোটি অসম সরকারকে দেওয়া হবে ত্রাণ সহযোগিতার জন্য, ১০০ কোটি ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার পুণর্গঠনের জন্য ও ১০০ কোটি ইন্দিরা আবাস যোজনা খাতে। এলাকা পরিদর্শন করে তিনি আরও জানান এই ঘটনা খুবই দু:খের, সরকার সবরকম সহায়তা করবে দুর্গতদের পুর্ণবাসনের। গোষ্ঠী সংঘর্ষের এই ঘটনা যে বিশ্বের কাছে ভারতের লজ্জার কারণ তাও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। হিংসা কবলিত এলাকাগুলিতে এখনও রয়েছে কেন্দ্রীয় আধাসামরিক বাহিনী। অসম পুলিসকে সাহায্য করতে মোতায়েন করা হয়েছে র‌্যাফ-ও। আগামী সোমবার অসম সফরে যেতে পারেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি চিদম্বরম। বোড়ো এবং সংখ্যালঘু শরণার্থীদের প্রতিনিধিদের সঙ্গেও কথা বলতে পারেন তিনি। গতকালই অসমের হিংসা কবলিত এলাকায় চিকিত্সা পরিষেবা পৌঁছে দিতে একটি বিশেষ বিমান পাঠিয়েছে কেন্দ্র। নেমেছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীও।

অন্যদিকে অসমের হিংসা পরিস্থিতির জেরে উত্তরবঙ্গে আগত শরণার্থীদের সঙ্গে দেখা করলেন বাম প্রতিনিধিরা। ৯ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন সিপিআইএম বিধায়ক আনিসুর রহমান। আলিপুরদুয়ার মহকুমার বারবিশা এবং মোমিনপুরে ছটি ত্রাণশিবির পরিদর্শন করেন তারা। অসমে শান্তি ফেরাতে কেন্দ্রীয় সরকার যাতে আরও কার্যকরী ভূমিকা নেয়  সেই আবেদন জানানো হবে বলে জানিয়েছেন বাম প্রতিনিধিরা। একই সঙ্গে অসম সরকারকে আরও উদ্যোগী হওয়ারও আবেদন জানিয়েছেন তারা। হিংসার ঘটনায় গুলিবিদ্ধ কিশোরী পম্পা বর্মনের পরিবারের সঙ্গেও দেখা করেন তারা। আজ সকালে মোমিনপাড়ায় যান উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী গৌতম দেব। আজ বিকেলে কংগ্রেস বিধায়ক দেবপ্রসাদ রায়ের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল যেতে পারে অসম-বাংলা সীমানায়।



First Published: Saturday, July 28, 2012 - 21:13


comments powered by Disqus