পুতিন-মনমোহন বৈঠকে দ্বিপাক্ষিক প্রসঙ্গ

ভারত সফরে এসে একাধিক দ্বিপাক্ষিক বিষয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে বৈঠক করলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তবে দিল্লি গণধর্ষণকাণ্ডের জেরে রাজধানীর সাম্প্রতিক উত্তপ্ত পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে বৈঠকের স্থানও পরিবর্তন করা হয়। আগে বৈঠকটি হওয়ার কথা ছিল হায়দরাবাদ হাউসে। তার পরিবর্তে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনেই বৈঠক হয়। বৈঠকের পর দু'জনের উপস্থিতিতে একাধিক দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর হয়।

Updated: Dec 24, 2012, 09:45 AM IST

ভারত সফরে এসে একাধিক দ্বিপাক্ষিক বিষয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে বৈঠক করলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তবে দিল্লি গণধর্ষণকাণ্ডের জেরে রাজধানীর সাম্প্রতিক উত্তপ্ত পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে বৈঠকের স্থানও পরিবর্তন করা হয়। আগে বৈঠকটি হওয়ার কথা ছিল হায়দরাবাদ হাউসে। তার পরিবর্তে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনেই বৈঠক হয়। বৈঠকের পর দু'জনের উপস্থিতিতে একাধিক দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর হয়।
পুতিন-মনমোহন বৈঠকে প্রাধান্য পায় দু'দেশের সামরিক বাণিজ্যের বিষয়টি। সামরিক শক্তি বাড়াতে আগামী দশ বছরে ১০ হাজার কোটি ডলারের অস্ত্র কেনার পরিকল্পনা করেছে ভারত। যার মধ্যে রয়েছে ৪২টি অত্যাধুনিক সুখোই বিমান। পাশাপাশি, রাশিয়ার বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ অ্যাডমিরাল গরশকভ হস্তান্তরের বিষয়টি দ্রুত সেরে ফেলার জন্যও চাপ দেবে ভারত। ভারত সফরে এবার রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গেও দেখা করেন পুতিন। রাষ্ট্রপতি ভবনেই কংগ্রেস ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধী ও লোকসভার বিরোধী দলনেত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গেও সৌজন্য সাক্ষাত সারেন তিনি। বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ দিল্লির পালাম বিমানঘাঁটি থেকে দেশের উদ্দেশে রওনা দেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট।