আর পি সিং-এর বক্তব্য নিয়ে যুযুধান কংগ্রেস-বিজেপি

Last Updated: Saturday, November 24, 2012 - 19:52

টুজি কাণ্ডে বিজেপিকে কোণঠাসা করার সুযোগ হারাতে রাজি নয় কংগ্রেস। সিএজি-র প্রাক্তন আধিকারিক আর পি সিংএর বক্তব্যকে হাতিয়ার করে আজ  মুরলী মনোহর যোশীকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন কংগ্রেস নেতা মনীশ তেওয়ারি। টুজি স্পেকট্রাম বণ্টন নিয়ে সংসদে আলোচনার দাবি তুলতে পারে ডিএমকে। উল্টোদিকে,  এই ইস্যুতে কংগ্রেসকে এক ইঞ্চি জমিও যে ছাড়াতে নারাজ বিজেপি, তা আজ স্পষ্ট করে দিয়েছেন দলের মুখপাত্র নির্মলা সীতারামন।
ঠিক কত টাকা ক্ষতি হয়েছিল স্পেকট্রাম বণ্টন কাণ্ডে? সিএজি-র প্রাক্তন আধিকারিক  আর পি সিং দাবি করেছেন, এক লক্ষ ৭৬ হাজার কোটি টাকা নয়, প্রাথমিক রিপোর্টে ক্ষতির পরিমাণ দেখানো হয়েছিল দু`হাজার ৬৪৫ কোটি টাকা। তাঁর আরও দাবি, সিএজি বিনোদ রাইয়ের নির্দেশে তিনি বাধ্য হয়েছিলেন সংশোধিত রিপোর্টে সই করতে। আর পি সিং মুখ খোলায়  জড়িয়ে গিয়েছে পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যান মুরলী মনোহর যোশীর নাম। তাই সময় নষ্ট না করে টুজিকাণ্ডে কোণঠাসা কংগ্রেসের ভাবমূর্তি উদ্ধারের চেষ্টায় ময়দানে নেমে পড়েছেন দলের নেতারা। সিএজিকে তোপ দেগেই থেমে থাকেনি কংগ্রেস। নাম না করে পাবলিক অ্যাকাউন্স কমিটির চেয়ারম্যানকেও কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী।
তবে কংগ্রেসকে জমি ছাড়তে রাজি নয় বিজেপি। দুর্নীতিতে জর্জরিত ইউপিএ সরকার কীভাবে সিএজির মতো সাংবিধানিক সংস্থার দিকে আঙুল তোলে, তা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছে প্রধান বিরোধী দল।
বিরোধী শিবির যাই বলুক না কেন, ইতিমধ্যেই নিজেদের ঘুঁটি সাজাতে শুরু করে দিয়েছে কংগ্রেস। এনিয়ে সংসদে আলোচনার দাবি জানাতে পারে ডিএমকে। বিজেপির অবশ্য পাল্টা দাবি, কংগ্রেসের চাপেই অবসরের পর বিভ্রান্তিকর তথ্য সামনে এনেছেন আর পি সিং।



First Published: Saturday, November 24, 2012 - 19:52


comments powered by Disqus