রাবড়ি ভরা মালপোয়া

রাবড়ি ভরা মালপোয়া

রাবড়ি ভরা মালপোয়াবিজয়ার পর থেকেই বাড়িতে মালপোয়া বানানোর ধুম লেগে যায়। সুজি, ময়দা মিশিয়ে মুচমুচে ভাজা, বা চিনির রসে মাখামাখি। মালপোয়ার মহিমা এমনই যে দীপাবলিতেও সেরার আসনে থাকে মালপোয়াই। তবে আর একটু উপাদেও বানিয়ে নিলে কেমন হয়? গরম গরম মালপোয়ার ওপরে যদি ঢেলে দেওয়া যায় ঠান্ডা-ঠান্ডা রাবড়ি? দৃষ্টিসুখেই স্বাদ বেড়ে যায় চারগুণ।

কী কী লাগবে

রাবড়ির জন্য


দুধ: ৫০০ মিলি
চিনি: ১ টেবিল চামচ
এলাচ: ২টো
খোসা ছাড়ানো পেস্তা: ৩ টে
কেসর: ৩ থেকে ৪টে

মালপোয়ার জন্য

ফোটানো দুধ: ১ কাপ
চিনি: ১ কাপ
ময়দা: ১ টেবল চামচ
সুজি: ১ টেবিল চামচ
কেসর: ১ চিমটে (১ চা চামচ গরম দুধে ডলে নেবেন)
খাওয়ার সোডা: ১ চিমটে
পটাশিয়াম মেটাবাইসালফেট: ১ চিমটে (রসের জন্য)

কীভাবে বানাবেন

রাবড়ি:
কেসর এক চা চামচ গরম দুধে মিশিয়ে রেখে দিন। পেস্তা খোসা ছাড়িয়ে ছোট ছোট ছিলকা কেটে নিন। এলাচ গুঁড়ো করে নিন। এলাচ গুঁড়োর সঙ্গে পেস্তা মিশিয়ে নিন। একটা ডেকচিতে দুধ ভাল করে গরম করুন। ফুটতে শুরু করলে আঁচ কমিয়ে ঘন করে নিন। দুধের মধ্যে চিনি, এলাচ-পেস্তা মিশ্রণ, কেসর দিয়ে আরও ৩ থেকে ৪ মিনিট ভাল করে ফুটিয়ে নিন। আগুন থেকে নামিয়ে ঠান্ডা করে ফ্রিজে ২ ঘণ্টা রেখে জমিয়ে নিন।

মালপোয়া: একটা বাটিতে চিনি, পটাশিয়াম মেটাবাইসালফেট এবং আধ কাপ জল দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নেড়ে নিন। এই মিশ্রণে কেসর দিয়ে ফোটান। আঁচ কমিয়ে চ্যাটচ্যাটে হয়ে আসে পর্যন্ত নাড়তে থাকুন। চ্যাটচ্যাটে হয়ে এলে নামিয়ে নিন। এবারে ময়দা, সুজি, খাওয়ার সোডা ও দুধ একসঙ্গে ভাল করে গুলে নিন। কড়াইতে তেল গরম করে হাতায় করে ময়দা, সুজির গোলা দিয়ে দু পিঠ ভাল করে ভেজে নিন। ভাজা মালপোয়া চিনির রসে ২ ঘণ্টা ডুবিয়ে রাখুন।

এবারে প্লেটের ওপর মালপোয়া রেখে ওপরে জমাট বাঁধা ঠান্ডা রাবড়ি দিয়ে পরিবেশন করুন।






First Published: Monday, November 12, 2012, 15:33


comments powered by Disqus