মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অন্তর্ঘাত-তত্ত্বে সায় দিলেন না রেলমন্ত্রী

Last Updated: Friday, June 1, 2012 - 09:36

উত্তরপ্রদেশের জৌনপুরের কাছে দেরাদুনগামী দুন এক্সপ্রেসের লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অন্তর্ঘাতের আশঙ্কা করলেও, দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর দলীয় নেত্রীর বক্তব্যকে এড়িয়ে গেলেন রেলমন্ত্রী মুকুল রায়। শুক্রবার ভোর রাতে জৌনপুরের কাছে দুর্ঘটনাস্থল ঘুরে দেখে তিনি বলেন, উচ্চপর্যায়ের তদন্তের পরই দুন এক্সপ্রেস দুর্ঘটনার কারণ নিয়ে কিছু বলা সম্ভব।
বৃহস্পতিবার দুর্ঘটনার পরই মহাকরণে দাঁড়িয়ে অন্তর্ঘাতের সম্ভাবনার কথা বলেছিলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু রাতে দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছে সেই প্রসঙ্গ কার্যত এড়িয়ে যান রেলমন্ত্রী মুকুল রায়। বৃহস্পতিবার রাত ৩ টে ৫ মিনিট নাগাদ ঘটনাস্থলে পৌঁছন রেলমন্ত্রী। সেখানেই সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন তিনি। মাত্র ১০ মিনিট থাকার পর ৩টে ১৫ মিনিট নাগাদ কনভয় নিয়ে দুর্ঘটনাস্থল ছাড়েন তিনি। সূত্রের খবর, দুর্ঘটনার জন্য প্রাথমিক ভাবে রেললাইনের রক্ষণাবেক্ষণের অভাবকেই দায়ী করেছেন রেলের বিশেষজ্ঞরা।
ওদিকে ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি করেছে সিপিআইএম পলিটব্যুরো। সিপিআইএমের অভিযোগ, দলীয় কাজে ব্যস্ত থাকায় মন্ত্রকের কাজ দেখভাল করতে পারছেন না রেলমন্ত্রী মুকল রায়।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার দুপুর একটা নাগাদ ১৩০০৯ হাওড়া থেকে দুন এক্সপ্রেসের ৫টি কামরা লাইনচ্যূত হয়। দেরাদুনগামী ট্রেনটি উত্তর রেলের লখনউ ডিভিশনের জৌনপুর স্টেশন ছাড়ার পরই মাহরাওয়া স্টেশনের অ্যাডভান্স স্টার্টার সিগনালের কাছে দুর্ঘটনাটি ঘটে। এস-১১ থেকে এস-১৫ পর্যন্ত কামরাগুলি বেলাইন হয়। এছাড়া আরও ২টি বগিও ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। আহতর সংখ্যা ৮৫ ছাড়িয়েছে। নিহতদের পরিবার পিছু ৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ ও এক জনের চাকরি, গুরুতর আহতদের এক লক্ষ টাকা ও সামান্য আহতদের ২৫ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছেন রেলমন্ত্রী মুকুল রায়।



First Published: Friday, June 1, 2012 - 16:43
comments powered by Disqus