কৃষ্ণসার মামলা: চার জনের বিরুদ্ধে নতুন চার্জ গঠন

সাইফ সহ তিন জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করল যোধপুর আদালত। ১৪ বছর আগে কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত বলিউড অভিনেতা সাইফ আলি খান, টাব্বু, নিলম, সোনালি বেন্দ্রের বিরুদ্ধে নতুন করে চার্জ দিয়েছে আদলত। তবে এই মামলার অন্যতম অভিযুক্ত সলমান খান আজ আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। ১৪ বছর আগে 'হাম সাথ সাথ হ্যায়' ছবির শুটিং-এর সময় যোধপুরের কানকানি গ্রামে কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার মূল অভিযোগ ওঠে সালমানের বিরুদ্ধে।

Updated: Mar 23, 2013, 10:32 AM IST

রাজস্থানের কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় চোদ্দ বছর পর নতুন করে চার্জ গঠন করল যোগপুরের সিজেএম আদালত। ওই মামলায় টাব্বু, নিলম, সঈফ আলি খান এবং সোনালি বেন্দ্রের বিরুদ্ধে শিকারে প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়েছে। মূল অভিযুক্ত সলমন খান, অসুস্থতার কারণে অনুপস্থিত থাকায় তাঁর বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হয়নি।
যোধপুরের কানকানি গ্রামে কৃষ্ণসার হরিণ হত্যায় অভিযুক্ত সলমন খান সমেত পাঁচ বলিউড তারকা। ১৯৯৮-এর ১ অক্টোবর রাতে তাঁরা দুটি কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা করে বলে অভিযোগ। বিরল কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার জন্য অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনের আওতায় মামলা শুরু হয়েছিল।
২০১২-র ডিসেম্বরে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে নতুন করে চার্জ গঠনের নির্দেশ দেয় রাজস্থান হাইকোর্ট। সেইমতো শনিবার সঈফ আলি খান, নীলম, টাব্বু এবং সোনালি বেন্দ্রের বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন এবং ভারতীয় দণ্ডবিধি অনুসারে শিকারে প্ররোচনার চার্জ গঠন হল। নিজেদের বিরুদ্ধে অভিযোগ শুনতে শনবার যোধপুর সিজেএম আদালতে হাজির হয়েছিলেন অভিযুক্ত চার বলিউড তারকা। তবে অসুস্থতার কারণে আদালতে উপস্থিত হননি মূল অভিযুক্ত সলমন খান। তাই তাঁর বিরুদ্ধে চার্জ গঠন হয়নি।
সলমন যখন আদালতে উপস্থিত হবেন, তখনই তাঁর বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হবে। বাকিদের ক্ষেত্রে শুনানি চলবে। তবে শুনানি চলাকালীন, অভিযুক্তদের আদালতে উপস্থিত থাকার প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছে আদালত। কিন্তু, কোনও সাক্ষীকে জেরা করার সময় শনাক্তকরণ জনিত, সমস্যা হলে অভিযুক্তকে আদালতে হাজির হতে হবে।