ইতালীয় জাহাজ আটক : কেন্দ্রের অবস্থানকে ভর্ত্‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍সনা সুপ্রিম কোর্টের

ভারতীয় মত্‍স্যজীবীদের হত্যা ইস্যুতে ইতালীর সুরে সুর মেলালো ভারত সরকার। ‍বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টকে কেন্দ্র জানায়, ইতালীয় জাহাজের নিরাপত্তারক্ষীদের গুলিতে ২ ভারতীয় মত্‍স্যজীবীর মৃত্যুর তদন্ত করার কোনও অধিকার নেই কেরল পুলিসের।

Updated: Apr 20, 2012, 09:24 PM IST

ভারতীয় মত্‍স্যজীবীদের হত্যা ইস্যুতে ইতালীর সুরে সুর মেলালো ভারত সরকার। ‍বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টকে কেন্দ্র জানায়, ইতালীয় জাহাজের নিরাপত্তারক্ষীদের গুলিতে ২ ভারতীয় মত্‍স্যজীবীর মৃত্যুর তদন্ত করার কোনও অধিকার নেই কেরল পুলিসের। কারণ ঘটনাটি ঘটেছে আন্তর্জাতিক জলসীমায়। ইতালীয় জাহাজ `এনরিকা লেক্সে`কে কেরল পুলিস আটক করে রাখতে পারে না বলেও দাবি কেন্দ্রের। অ্যাডিশনাল সলিসিটর জেনারেল হারিন রাভলের বক্তব্য, ভারতের জলসীমা থেকে ২০.৫ নটিক্যাল মাইল দূরে ছিল এনরিকা লেক্সে। ভারতের জলসীমা শেষ হয় ১২ নটিক্যাল মাইলে।
কেন্দ্রের এই অবস্থানের তীব্র ভর্ত্‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍সনা করেছে সুপ্রিম কোর্ট। কেন্দ্রের সমালোচনা করে দেশের শীর্ষ আদালত জানিয়েছে, এটা খুবই দুঃখজনক ও হতাশাব্যাঞ্জক। দু`জন ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যুর পরে কী ভাবে সরকার এই ধরনের অবস্থান নিতে পারে, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে সুপ্রিম কোর্ট। ইতালি চেয়েছিল মৃত মত্‍স্যজীবীদের পরিবার পিছু ১ কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিয়ে সমঝোতা করে নিতে। ইতালির এই প্রস্তাবেও রাজি হয়ে গিয়েছে সরকার। ফলে এই ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের ভূমিকা নিয়ে তৈরি প্রবল বিতর্ক। প্রসঙ্গত, গত ১৫ ফেব্রুয়ারি, ভোররাতে কেরলের উপকূলে জলদস্যুদের জলযান বলে ভুল করে ভারতীয় মত্‍সজীবীদের একটি নৌকায় উপর গুলি চালান এনরিকা লেক্সে`র রক্ষীরা। গুলিতে আজেশ বিঙ্কি এবং জালাস্টেন নামে দুই মত্‍সজীবীর মৃত্যু হয়। অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচেন ওই জলযানের ৯ জন মত্‍স্যজীবী। তাঁদের অভিযোগ, কোনওরকম পূর্ব-সতর্কতা ছাড়াই গুলি চালানো হয় এনরিকে থেকে। ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনী পরে ইতালীয় জাহাজটিকে আটক করে কোচি বন্দরে নিয়ে আসে।