ভোটাভুটি থেকে এসপি, বিএসপির ওয়াক আউট

ইঙ্গিত ছিল আগেই। কংগ্রেসকে অক্সিজেন যোগাতে এফডিআই এর ভোটাভুটি থেকে শেষমুহুর্তে ওয়াক আউট করল বহুজন সামাজবাদী পার্টি। সংসদ থেকে বেরিয়ে এসেছেন সমাজবাদী পার্টির নেতারাও।  ভোটগ্রহণ পর্ব শুরু হওয়ার ঠিক আগে বিএসপি ও এসপি নেতারা একে একে ওয়াক আউট করেন। এই দুই সহযোগী দলের সরে আসার পর, কংগ্রেসের ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছতে আর কোনও অসুবিধা থাকল না বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Updated: Dec 5, 2012, 10:27 AM IST

ইঙ্গিত ছিল আগেই। কংগ্রেসকে অক্সিজেন যোগাতে এফডিআই এর ভোটাভুটি থেকে শেষমুহুর্তে ওয়াক আউট করল বহুজন সামাজবাদী পার্টি। সংসদ থেকে বেরিয়ে এসেছেন সমাজবাদী পার্টির নেতারাও।  ভোটগ্রহণ পর্ব শুরু হওয়ার ঠিক আগে বিএসপি ও এসপি নেতারা একে একে ওয়াক আউট করেন। এই দুই সহযোগী দলের সরে আসার পর, কংগ্রেসের ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছতে আর কোনও অসুবিধা থাকল না বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।
তিনটে ১৫ মিনিট নাগাদ লোকসভা স্থগিত হয়ে যাওয়ার পর, পুনরায় শুরু হয় অধিবেশকের কাজ। ভারতীয় জনতা পার্টি নেতা মুরলী মনোহর জোশী প্রশ্ন তোলেন, "এফডিআই যদি দেশের পক্ষে লাভজনক হয়, তবে সরকার তা রাজ্যগুলির ইচ্ছাধীন করে রাখছে কেন?" অন্যদিকে রাষ্ট্রীয় জনতা দল নেতা লালু প্রসাদ যাদব খুচরো ব্যবসায় বিদেশি বিনিয়োগ নিয়ে বিজেপিকে কড়া সমালোচনায় বিঁধেছেন। তিনি বলেন, "এফডিআই ব্যবহারে কোনও বাধ্যাবাধ্যকতা নেই।" আরজেডি নেতার কথায়, প্রত্যেকের স্বাধীনতা রয়েছে তাঁরা কী কিনবেন, কী কিনবেন না, তা সিদ্ধান্ত করার। ২০০২-এ বিজেপির তরফে এফডিআই আনার চেষ্টা করা হয়েছিল বলেন তর্কও শুরু করেন লালু।
খুচরো ব্যবসায় প্রত্যক্ষ বিদেশি লগ্নি বিতর্কে আজ সংসদে ১৮৪ ধারায় আলোচনা এবং ভোটাভুটি হবে। লোকসভায় এফডিআই ইস্যুতে জিততে হলে ইউপিএর ২৭৩ জন সাংসদের সমর্থন প্রয়োজন। এই মুহূর্তে ইউপিএর পক্ষে রয়েছেন ২৬১ জন সাংসদ। এফডিআইয়ের সমর্থনে কংগ্রেসের পাশে রয়েছে ডিএমকে, আরজেডি এবং জেডিএস। এফডিআই বিরোধী শিবিরে রয়েছে  এনডিএ, বাম, তৃণমূল কংগ্রেস, এআইএডিএমকে এবং বিজেডি। এই দলগুলির মোট দুশো আঠেরোজন সাংসদ এফডিআইয়ের বিরোধিতা করছেন। এফডিআই নিয়ে ভোটদানে বিরত থাকতে পারে সমাজবাদী পার্টি এবং বহুজন সমাজ পার্টি। লোকসভায় ভোটাভুটির দৌড়ে কংগ্রেস এগিয়ে থাকলেও, রাজ্যসভায় পাল্লা দুদিকেই প্রায় সমান ভারী। খুচরো ব্যবসায় প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগের পাশাপাশি আজ বিদেশি মুদ্রা নিয়ন্ত্রণ আইনের একটি ধারার সংশোধন নিয়েও ভোটাভুটি হবে।
এক নজরে দেখে নেব কে কোথায় দাঁডিয়ে।
পক্ষে
কংগ্রেসের রয়েছে ২০৬ জন সাংসদ
ডিএমকের রয়েছে ১৮ জন সাংসদ
আরজেডির রয়েছে  ৪ জন সাংসদ
জেডিএসের রয়েছে ৩ জন সাংসদ
অন্যান্য রয়েছেন ৩০ জন সাংসদ
বিপক্ষে
এফডিআই বিরোধী শিবিরে রয়েছেন ২১৮ জন সাংসদ। তার মধ্যে
এনডিএর সাংসদ সংখ্যা ১৫২
বামেদের সাংসদ সংখ্যা ২৪
তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ সংখ্যা ১৯
এআইএডিএমকের সাংসদ সংখ্যা ৯
বিজেডির সাংসদ সংখ্যা ১৪
সমাজবাদী পার্টির ২২ জন সাংসদ এবং বহুজন সমাজ পার্টির ২১ জন সাংসদ ভোটদানে বিরত থাকতে পারেন। লোকসভায় দু'দলের মোট সাংসদ সংখ্যা ৪৩। এই ৪৩ জন ভোটদানে বিরত থাকলে লোকসভার মোট ৫০১ জন সাংসদ এফডিআই নিয়ে ভোটাভুটিতে অংশ নেবেন।

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. You can find out more by clicking this link

Close