দিল্লিতে গাড়ি চাপা পড়ে মৃত ১ কনস্টেবল

দিল্লিতে পথদুর্ঘটনায় মৃত্যু হল এক পুলিসকর্মীর। গুরুতর আহত আরও এক পুলিসকর্মী। দিল্লি পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার রাত ১টা নাগাদ নয়াদিল্লির পশ্চিম বিহাররাত ১টা নাগাদ একটি পেট্রোল পাম্পে মোটরবাইকে পেট্রোল ভরাচ্ছিলেন দিল্লি পুলিসের কনস্টেবল ৩৯ বছর বয়সী দীপক চৌহান ও ২৪ বছর বয়সী অমিত কুমার।

Updated: Apr 10, 2012, 12:50 PM IST

দিল্লিতে পথদুর্ঘটনায় মৃত্যু হল এক পুলিসকর্মীর। গুরুতর আহত আরও এক পুলিসকর্মী। দিল্লি পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার রাত ১টা নাগাদ নয়াদিল্লির পশ্চিম বিহাররাত ১টা নাগাদ একটি পেট্রোল পাম্পে মোটরবাইকে পেট্রোল ভরাচ্ছিলেন দিল্লি পুলিসের কনস্টেবল ৩৯ বছর বয়সী দীপক চৌহান ও ২৪ বছর বয়সী অমিত কুমার। সেই সময় দ্রুত গতিতে আসা একটি মার্সেডিজ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তাঁদের ধাক্কা মারে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় দীপক চৌহানের। পায়ে গুরুতর আঘাত পেয়েছেন অমিত কুমার। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
ধাক্কা মারার পরই ঘটনাস্থল থেকে পালানোর চেষ্টা করেন অভিযুক্ত গাড়ির মালিক গুরদীপ সিং। কিন্তু এক প্রত্যক্ষদর্শী গাড়িটির লাইসেন্স প্লেট নম্বর লিখে রাখেন এবং পুলিসকে খবর দেন। গাড়ির নম্বর খতিয়ে দেখে গুরদীপ সিং-কে গ্রেফতার করে পুলিস। পুলিসের জেরার মুখে পেশায় ব্যবসায়ী গুরদীপ জানান, তিনি ওই ২ জন কনস্টেবলকে দেখতে পাননি। গুরদীপের অ্যালকোহল পরীক্ষা করা হয়। তবে তাঁর শরীরে অ্যালকোহল পাওয়া যায়নি।
গুরদীপের বিরুদ্ধে গাফিলতিতে হত্যার অপরাধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ফলে ২ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড ও জরিমানা হতে পারে। একটি শপিং মলে ২টি রেস্তোরাঁর মালিক গুরদীপ সিং দিল্লির গ্রেটার কৈলাশ-১-এর বাসিন্দা।