সুদীপ্তর মৃত্যুতে বিক্ষোভে উত্তাল গোটা দেশ

Last Updated: Thursday, April 4, 2013 - 15:25

ছাত্রনেতা সুদীপ্ত গুপ্তর মৃত্যুর প্রতিবাদে আজ বেঙ্গালুরুতেও  বিক্ষোভ দেখান এসএফআই সমর্থকেরা। মুখ্যমন্ত্রী পৌঁছানোর আগেই এই বিক্ষোভ কর্মসূচি নেওয়া হয়। মুখ্যমন্ত্রী এদিন মান্না দের বাড়িতে একটি পুরস্কার দেওয়ার অনুষ্ঠান গিয়েছিলেন। মান্নাদের কল্যাণনগরের বাড়ির সামনেও বিক্ষোভ দেখান এসএফআইয়ের সমর্থকরা।
চেন্নাইতেও আজ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কুশপুতুল দাহ করেন এসএফআই সমর্থকেরা। বিক্ষোভ হয় পুদুচ্চেরিতেও। দুই শহর মিলিয়ে মোট ৩৬ জন এসএফআই সমর্থককে গ্রেফতার করেছে পুলিস।
পুলিসের মারে সুদীপ্ত গুপ্তের মৃত্যুর প্রতিবাদে আজ দিল্লির বঙ্গভবনে বিক্ষোভ দেখালেন এসএফআই সমর্থকেরা। সুদীপ্তর মৃত্যু ল্যাম্পপোস্টে ধাক্কা লেগে, পুলিসের এই তত্ত্ব সমর্থন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্য সরকারের এই ভূমিকায় রীতিমতো ক্ষুব্ধ এসএফআই সমর্থকেরা। ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছেন তাঁরা।
বঙ্গ ভবনের গেট এবং দেওয়াল টপকে ভিতরে ঢুকে পড়েন বিক্ষোভকারীরা।  খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান সিপিআইএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরি। তিনি বলেন, পুলিস রিপোর্ট অনুযায়ী মুখ্যমন্ত্রী দাবি করছেন ল্যাম্পপোস্টে ধাক্কা লেগে মৃত্যু হয়েছে সুদীপ্ত গুপ্তর।  কিন্তু পুলিস তো রাজ্য সরকারের অধীন। তাহলে কেন বিচারবিভাগীয় নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি মুখ্যমন্ত্রী মানবেন না। এই দাবিতে দেশজুড়ে বিক্ষোভ চলবে বলে জানিয়েছেন ইয়েচুরি। একইসঙ্গে তাঁর মন্তব্য, পশ্চিমবঙ্গে হিংসার ঘটনা যেভাবে বাড়ছে তা গণতন্ত্রের পক্ষে বিপজ্জনক।
গতকালও বঙ্গভবনের সামনে রাজ্য সরকারকে দায়ী করে বিক্ষোভ দেখায় ছাত্রসংগঠন জেএনইউএসিউ। রাতে জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কুশপুতুল পোড়ান।
ছাত্রনেতা সুদীপ্ত গুপ্তের মৃত্যুতে আলোড়িত গোটা দেশ। প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া একজন ছাত্রনেতার মৃত্যুকে মেনে নিতে পারছেন না ছাত্রসংগঠন জেএনইউএসিউ-এর সদস্যরা। বুধবার দিল্লির বঙ্গভবনের সামনে বিক্ষোভ দেখান তারা। রাতে বিক্ষোভে সামিল হন জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা। পোড়ানো হয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কুশপুতুল।



First Published: Thursday, April 4, 2013 - 19:34


comments powered by Disqus