ধর্ষণ রুখতে রাজ্য-কেন্দ্রকে নোটিস শীর্ষ আদালতের

Last Updated: Friday, January 4, 2013 - 16:33

ধর্ষণের ঘটনা নিয়ে এবার কেন্দ্র ও রাজ্যগুলিকে নোটিস পাঠাল সুপ্রিম কোর্ট। নোটিসে রাজ্যগুলিতে ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট গঠন, বিচারপতি নিয়োগ, ধর্ষণ কাণ্ডে ক্ষতিপূরণ প্রভৃতি বিষয়ে চার সপ্তাহের মধ্যে জবাব চাওয়া হয়েছে। এ ছাড়াও অভিযুক্ত বিধায়ক, সাংসদের বিরুদ্ধেও যে সব জনস্বার্থ মামলা রয়েছে সেগুলিরও দ্রুত নিষ্পত্তির জন্যও নোটিস পাঠিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।
নারী নিগ্রহে অভিযুক্ত সাংসদ কিম্বা বিধায়কদের সাসপেন্ড করতে পারে না সুপ্রিম কোর্ট। দেশের সর্বোচ্চ আদালতের এই ক্ষমতা নেই। প্রাক্তন এক আইএএস অফিসারের পিটিশনের জবাবে একথাই জানাল সুপ্রিম কোর্ট। নারী নিগ্রহে জড়িত দেশের সব সাংসদ ও বিধায়কদের সাসপেন্ড করার আর্জি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছিলেন প্রাক্তন আইএএস অফিসার প্রমীলা শঙ্কর।
তবে ধর্ষণের মামলার বিচারের জন্য ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট গঠনের বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকার এবং প্রতিটি রাজ্য সরকার কী পরিকল্পনা নিয়েছে সে বিষয়ে চার সপ্তাহের ভিতর জানতে চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। বিশেষ এই কোর্টের বিচারপতি কবে নিযুক্ত হবেন, কীভাবে তাঁদের নির্বাচন করা হবে, এবাং কীভাবেইবা ধর্ষিতাকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে, সে বিষয়েও কেন্দ্র এবং রাজ্যের কাছে জবাব তলব করেছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত।
গতকালই পশ্চিবঙ্গের মন্ত্রিসভার বৈঠকে স্থির হয় এ রাজ্যেও ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট গঠন করা হবে। এই মর্মে শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, রাজ্যে ৮৮টি ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট গঠন করা হবে। ৯৪টি বিচারক পদ তৈরি করা হবে বলেন জানান শিল্পমন্ত্রী।



First Published: Friday, January 4, 2013 - 16:33


comments powered by Disqus