৫৭ বছরের সংগ্রামের সমাপ্তি, ভারতের ২৯ তম রাজ্য তেলেঙ্গানা

Last Updated: Tuesday, July 30, 2013 - 11:30

৫৭
বছরের সংগ্রামের অবসান। ভারতের ২৯তম ব্রাজ্য হিসাবে আত্মপ্রকাশ করছে
তেলেঙ্গানা। তেলেঙ্গানা গঠনে সর্বসম্মতিক্রমে শিলমোহর দিল কংগ্রেস ওয়ার্কিং
কমিটি।
শান্তি বজায় রাখার জন্যই গঠিত হল তেলেঙ্গানা। জানালেন
কংগ্রেস নেতা অজয় মাকেন। আগামী ১০ বছর হায়দরাবাদ অন্ধ্র ও তেলেঙ্গানার
সাধারণ রাজধানী থাকবে। 
তার আগে আজ তেলেঙ্গানা প্রস্তাবে সবুজ সঙ্কেত দেয় ইউপিএ সমন্বয় কমিটি। আজ প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে বৈঠকে বসে ইউপিএ সমন্বয় কমিটি। এই বৈঠকে তেলেঙ্গানা নিয়ে কংগ্রেস কোর গ্রুপের প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে শরিকদের থেকে সবুজ সঙ্কেত পাওয়ার পরই বৈঠকে বসে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি। এই বৈঠকেই পৃথক তেলেঙ্গানা নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ছাপ্পান্ন বছরের দাবি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আগে আজ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেও বৈঠক করেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী। এদিকে, তেলেঙ্গানা ইস্যুতে আগামিকালই বিশেষ বৈঠকে বসছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।
অন্যদিকে, তেলেঙ্গানা ইস্যুতে আজও উত্তাল ছিল অন্ধ্রপ্রদেশের বিভিন্ন প্রান্ত। পৃথক রাজ্য গঠনের বিরোধিতায় আজ বিজয়ওয়াড়ায় মিছিল করে একাধিক ছাত্র সংগঠন। চলে পথ অবরোধ। নেতৃত্বে ছিল জয়েন্ট অ্যাকশন কমিটি। তেলেঙ্গানার দাবিতেও আজ দিনভর বিক্ষোভ চলে অন্ধ্রপ্রদেশে।
এদিকে আজ সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কিরণ রেড্ডি। তেলেঙ্গানা ইস্যুতে ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রীর ইস্তফা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছিল জল্পনা। যদিও, কংগ্রেস হাইকমান্ড এই জল্পনাকে সম্পূর্ণ অমূলক বলেই উড়িয়ে দিয়েছে। দশ জনপথে গিয়ে গোটা বিষয়টিতে রাহুল গান্ধীর হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন অন্ধ্রপ্রদেশের কংগ্রেস সাংসদরা। তেলেঙ্গানা ইস্যুতে নিজেদের পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করতে আগামিকাল বৈঠকে বসছেন রায়ালসীমার কংগ্রেস বিধায়করা।



First Published: Tuesday, July 30, 2013 - 19:23


comments powered by Disqus