বিক্ষোভর মুখে রাজ্যের মন্ত্রীরা, হাসপাতালে অমিত, সুব্রত

ছাত্রনেতা সুদীপ্ত গুপ্তর পুলিস হেফাজতে মৃত্যুর প্রতিবাদে তীব্র বিক্ষোভের মুখে পড়লেন সপার্ষদ মুখ্যমন্ত্রী। আজ যোজনা কমিশনের অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখান এসএফআই সমর্থকেরা। প্রতিবাদের মুখে আটকে পড়ে মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ি। এক প্রস্থ হাতাহাতি হয় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্ররও। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে ক্ষুব্ধ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এরপর `সিপিআইএমকে দেখে নেবেন` বলে হুমকি দিয়েছেন।

Updated: Apr 9, 2013, 04:49 PM IST

ছাত্রনেতা সুদীপ্ত গুপ্তর পুলিস হেফাজতে মৃত্যুর প্রতিবাদে তীব্র বিক্ষোভের মুখে পড়লেন সপার্ষদ মুখ্যমন্ত্রী। আজ যোজনা কমিশনের অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখান এসএফআই সমর্থকেরা। প্রতিবাদের মুখে আটকে পড়ে মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ি। এক প্রস্থ হাতাহাতি হয় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্ররও। এইমসে যান অমিত মিত্র, সুব্রত মুখোপাধ্যায়। বুকে, পেটে, পিঠে আঘাত থাকায় অমিত মিত্রকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।
তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে ক্ষুব্ধ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এরপর `সিপিআইএমকে দেখে নেবেন` বলে হুমকি দিয়েছেন।
যোজনা কমিশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান মন্টেক সিং আলুওয়ালিয়ার সঙ্গে বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, "ওরা আমার মাথায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করতে গিয়েছিল। ববি (ফিরহাদ হাকিম) আমাকে বাঁচায়।"
ঘটনার নিন্দা করেন মন্টেক সিং আলুওয়ালিয়াও।
আজ যোজনা কমিশনে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক ঘিরে আগে থেকেই আঁটসাট ব্যবস্থা নিয়েছিল দিল্লি পুলিস। সূত্রে খবর, এই বিক্ষোভের খবর প্রোটোকল আধিকারক এবং নিরাপত্তা রক্ষীদের কাছে গেলে ১ নম্বর গেট এড়িয়ে তাঁকে ২ নম্বর গেট দিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথা ভাবা হয়। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী তা মানেননি। সকলকে অবাক করে এক নম্বর গেট দিয়েই ঢোকার চেষ্টা করে মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ি। ফলে প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়ে তাঁর গাড়ি। সরাসরি বিক্ষোভ সামলাতে হয় অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রকে। এর পর যোজনা কমিশনের দফতরে কমিশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান মন্টেক সিং আহলুওয়ালিয়ার সামনে ক্ষোভে ফেটে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী। উত্তেজিত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর পর হুমকির সুরে বলেন তিনি সিপিআইএমকে দেখে নেবেন।
আজ দিল্লিতে সুদীপ্ত গুপ্তর মৃত্যুর বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবিতে বিক্ষোভ দেখানো হয়। আটকে দেওয়া হয় মন্ত্রীদের গাড়ি। পুলিসই মুখ্যমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীকে বিক্ষোভ থেকে উদ্ধার করে। দেড়িতে হলেও বৈঠক শুরু হয়েছে যোজনা কমিশনের দফতরে। বাইরে অবস্থানে অনড় বিক্ষোভকারীরা।