ভরাডুবির ভয়েই তৃণমূল নেই: আত্মবিশ্বাসী মানিক

পশ্চিমবঙ্গের পরিবর্তনের স্লোগান কী থমকে গিয়েছে ত্রিপুরার ভোটে? অন্তত এমনটাই মনে করছে ক্ষমতায় আসা নিয়ে আত্মবিশ্বাসী বাম শিবির। মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের দাবি, পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চায়েত ভোটের আগে ত্রিপুরায় ভরাডুবির ঝুঁকি নিতে চায়নি তৃণমূল কংগ্রেস। তাঁর মতে, পশ্চিমবঙ্গে পরিবর্তনের স্লোগানে দিয়ে তৃণমূল ক্ষমতায় এলেও সরকারের কাজে মানুষ অতিষ্ট। রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে তাই আর ত্রিপুরায় ভোটে লড়ার ঝুঁকি নিতে চায়নি তৃণমূল কংগ্রেস।

Updated: Feb 11, 2013, 08:32 PM IST

পশ্চিমবঙ্গের পরিবর্তনের স্লোগান কী থমকে গিয়েছে ত্রিপুরার ভোটে? অন্তত এমনটাই মনে করছে ক্ষমতায় আসা নিয়ে আত্মবিশ্বাসী বাম শিবির। মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের দাবি, পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চায়েত ভোটের আগে ত্রিপুরায়  ভরাডুবির ঝুঁকি নিতে চায়নি তৃণমূল কংগ্রেস। তাঁর মতে, পশ্চিমবঙ্গে পরিবর্তনের স্লোগানে দিয়ে তৃণমূল ক্ষমতায় এলেও সরকারের কাজে মানুষ অতিষ্ট। রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে তাই আর ত্রিপুরায় ভোটে লড়ার ঝুঁকি নিতে চায়নি তৃণমূল কংগ্রেস।
অন্যদিকে, ত্রিপুরায় ভোটপ্রচারে গিয়ে বামেদের হঠানোর ডাক দিলেন কংগ্রেসের সহ সভাপতি রাহুল গান্ধী। সোনিয়া-মনমোহনের কেউই না যেতে পারায় চরম অস্বস্তিতে পড়েছিল সেই রাজ্যের কংগ্রেস শিবির। সোমবার একদিনে চার-চারটি জনসভা করে সেই অস্বস্তিই কাটানোর চেষ্টা করলেন সোনিয়াপুত্র। আগামিকালও ত্রিপুরায় দুটি নির্বাচনী সভা করবেন রাহুল গান্ধী।
সোমবার চারটে সভায় সবমিলিয়ে একঘণ্টার মতো বক্তব্য রেখেছেন রাহুল গান্ধী। বক্তৃতা জুড়ে ছিল  প্রতিশ্রুতি। ডাক দিলেন ত্রিপুরায় সরকার পরিবর্তনেরও। রাহুল গান্ধীকে পেয়ে স্বভাবতই উচ্ছসিত কংগ্রেস প্রার্থীরা।
১৪ ফেব্রুয়ারি ত্রিপুরায় বিধানসভা নির্বাচন। বারবারই উঠে আসছে পশ্চিমবঙ্গের গত নির্বাচনের সঙ্গে তুলনা। আলোচনা চলছে সরাসরি প্রার্থী না দিয়ে কংগ্রেসের সঙ্গে তৃণমূলের গাঁটছড়ার প্রসঙ্গও। তবে এসবকে আদৌ আমল দিতে নারাজ মানিক সরকার।
ত্রিপুরার জয়ের মধ্য দিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে আরও বড় লড়াইয়ের ডাক দিয়েছেন সিপিআইএমের পলিটবুরো সদস্য।