চন্দ্রবাবুর পর মোদীর হাত ছাড়ার হুঙ্কার জগন্মোহনেরও

বুধবার দক্ষিণের রাজ্যটিতে দিনভর রাজনৈতিক টানাপোড়েন চলে। বিকেলে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির সঙ্গে বৈঠক করেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নায়ডু

Updated: Mar 8, 2018, 12:10 PM IST
চন্দ্রবাবুর পর মোদীর হাত ছাড়ার হুঙ্কার জগন্মোহনেরও

নিজস্ব প্রতিবেদন: তেলেগু দেশমের পর মোদীকে চাপে রাখতে দোসর হল অন্ধ্রপ্রদেশের জগন্মোহন রেড্ডির ওয়াইএসআর কংগ্রেস। অন্ধ্রপ্রদেশকে বিশেষ রাজ্যের সম্মানের দাবিতে জগন্মোহনও হুঙ্কার দিলেন, তাদের মন্ত্রীও ইস্তফাপত্র দিয়ে অনাস্থা প্রস্তাব আনবে। এই মুহূর্তে লোকসভায় ৯ এবং রাজ্যসভায় একটি সাংসদ রয়েছে ওয়াইএসআর কংগ্রেসের।

আরও পড়ুন- দুবাইয়ে সিবিআই-এর হাতে গ্রেফতার দাউদ ঘনিষ্ঠ ফারুক তাকলা

প্রসঙ্গত, বুধবার দক্ষিণের রাজ্যটিতে দিনভর রাজনৈতিক টানাপোড়েন চলে। বিকেলে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির সঙ্গে বৈঠক করেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নায়ডু। বৈঠক ফলপ্রসু না হওয়ায় শেষমেশ চন্দ্রবাবু সিদ্ধান্ত নেন তাদের দুই মন্ত্রী মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দেবেন। এ দিন বৈঠকে অরুণ জেটলি স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, সাংবিধানিক ভাবে বিশেষ রাজ্যের সম্মান দেওয়া (অতিরিক্ত অর্থ সাহায্য) যাবে না অন্ধ্রকে। পরিবর্তে সমতুল সুযোগ সুবিধা দিতে রাজি কেন্দ্র। কিন্তু এই প্রস্তাবে চিঁড়ে ভেজেনি তেলেগু দেশম সুপ্রিমোর।  এরপরই কেন্দ্রীয় সরকার থেকে মন্ত্রী প্রত্যাহারের কথা জানান তিনি।

আরও পড়ুন- মোদীর হাত ছাড়লেন চন্দ্রবাবু

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশ মনে করছে, চন্দ্রবাবুর হাত ছাড়তে চাইছে রাজ্য বিজেপিও। প্রয়োজন হলে জগন্মোহনের দিকে ঝুঁকতে পারে তারা। কিন্তু জগন্মোহনের তরফ থেকেও হুঙ্কার আসায় বর্তমানে কিছুটা অস্বস্তিতে রাজ্য বিজেপি। এদিকে চন্দ্রবাবুকে পাল্টা চাপে রাখতে আজ রাজ্য মন্ত্রিসভা থেকে বিজেপি বিধায়করা ইস্তফা দিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন- এনডিএ-তে ভাঙনের ইঙ্গিত, বিজেপির সঙ্গ ছাড়তে পারেন চন্দ্রবাবু নাইডু