ব্যর্থতা কাটাতে মোহন সচিব এখন বেশি পরিশ্রমী

Last Updated: Monday, October 8, 2012 - 23:28

দলের ফুটবলারদের থেকে এখন বেশি পরিশ্রম করছেন মোহনবাগান সচিব অঞ্জন মিত্র। সোমবার লাজং ম্যাচের ফুটবলারদের বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল। টোলগেরা এলেও হাল্কা স্ট্রেচিং করেই অনুশীলন শেষ করেন। কিন্তু যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে প্রচন্ড রোদের মধ্যে ঠায় বসে অনুশীলন দেখেন সচিব। সাফল্যের রেমিডি খুঁজে বেড়াচ্ছেন তিনিও। সাম্প্রতিককালে মোহনবাগানের শীর্ষকর্তাদের সকালে উঠে নিয়মিত অনুশীলনে আসার তত্পরতা দেখা যায়নি। অনুশীলন দেখে স্টেডিয়াম ছাড়ার সময় কোচ কাশ্যপের উপর তাঁদের আস্থার কথা আরও একবার জানিয়ে দিলেন। তবে কোচের মাথায় একজন টিডি বসানো নিয়ে এখনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি ক্লাবকর্তারা।
 
অন্যদিকে প্রয়াগ ইউনাইটেড ম্যাচ হতে চলেছে কাশ্যপের মোহনবাগানে ভবিষ্যত নির্ধারনী ম্যাচ। কর্তারা হাবেভাবে তা বুঝিয়েও দিয়েছেন। সেই ম্যাচে হার বাঁচিয়ে ড্র করলেও কাশ্যপের চাকরি বাঁচানো মুশকিল। প্রয়াগের বিরুদ্ধে দল যদি জেতেও দলের পারফরম্যান্সের মাপকাঠি বিচার করে তবেই সন্তোষ কাশ্যপ থাকবেন সবুজ-মেরুনে।
 
ফেডারেশন কাপের শুরু থেকে আইলিগের প্রথম ম্যাচ। ব্যর্থতার কারন জিজ্ঞেস করলেই মোহনবাগান কোচ সন্তোষ কাশ্যপের মুখে একটাই বুলি,দলে চোট সমস্যা। ডেঙ্গি বা জ্বরে অসুস্থ হয়ে কয়েকজন ফুটবলার অনুশীলন করতে পারেননি। কিন্তু মরসুমের চারটি ম্যাচ হতেই এত চোট সমস্যা কেন! গতবারের থেকে শিক্ষা নিয়ে মোহন কর্তারা এবার দুজন বিদেশি ফিটনেস বিশেষজ্ঞ রেখেছিলেন। গত মরসুমের পর এই মরসুমেও দলের সঙ্গে ছিলেন রিহ্যাব স্পেশ্যালিস্ট জোনাথন কর্নার। সঙ্গে সিঙ্গাপুর থেকে আনা হয়েছে ফিজিক্যাল ট্রেনার আর্নল্ডকে। এই দুজনের তত্ত্বাবধানে আদপে প্রিসিজন ট্রেনিংয়ে ফিটনেস অনুশীলন ঠিক কি হয়েছে,তা প্রশ্নের মুখে। এই দুই বিদেশির কাজ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে কর্তাদের একাংশের মধ্যেও। কোচ কাশ্যপের দাবি,দলের ফুটবলাররা ফিট। কিন্তু এখনও ম্যাচ ফিট হতে পারেননি। ফেডারেশন কাপে প্রথম ম্যাচে চোট পাওয়া টোলগে এখনও ম্যাচ ফিট হননি। গোড়ালিতে ব্যথা এখনও রয়েছে। পুরোপুরি ম্যাচ ফিট নন ওডাফা। চোট সমস্যা রয়েছে আরেক গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার নবিরও।
ফেডারেশন কাপে ডাহা ফেল। আইলিগের প্রথম ম্যাচে পাহাড়ে ভূপতিত মোহনবাগান। গনগনে উনুনের উপর বসে রয়েছেন কোচ সন্তোষ কাশ্যপ। সোমবার সকালে যুবভারতীতে অনুশীলন শুরু হলেও,ব্যর্থতার ভারে কাঁধ ঝুলে গিয়েছে মোহনবাগানের ফুটবলারদের। মোটিভেশন তলানিতে। লাজং ম্যাচে হারের কারন হিসেবে সন্তোষের নোটবুকে উঠে এসেছে দুটি কারণ। এক, নতুন দল ও নতুন কোচ হওয়ায় কম্বিনেশন তৈরিতে সমস্যা। দুই, লাজং ম্যাচে রেফারিং নিয়ে অসন্তোষ।
 



First Published: Tuesday, October 9, 2012 - 13:13


comments powered by Disqus