এক দশক পর বিরাট নিয়ে বিস্ফোরক বেঙ্গসরকার, কটাক্ষ শ্রীনিকে

২০০৮ সালে বিরাট কোহলির জন্য সওয়াল করেই নির্বাচক প্রধানের পদ খোয়াতে হয়েছিল তাঁকে। ১০ বছর পর, বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন দিলীপ বেঙ্গসরকার। কিন্তু এর নেপথ্যে কে ?

Updated: Mar 8, 2018, 02:14 PM IST
এক দশক পর বিরাট নিয়ে বিস্ফোরক বেঙ্গসরকার, কটাক্ষ শ্রীনিকে

নিজস্ব প্রতিবেদন: ২০০৮ সালে বিরাট কোহলির জন্য সওয়াল করেই নির্বাচক প্রধানের পদ খোয়াতে হয়েছিল তাঁকে। ১০ বছর পর, বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন দিলীপ বেঙ্গসরকার। কিন্তু এর নেপথ্যে কে ?

ভারতীয় দলে বিরাট কোহলির জন্য জোরালো সওয়াল করায়, মেয়াদ শেষের আগেই ২০০৮ সালে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচক কমিটির প্রধান দিলীপ বেঙ্গসরকারকে সরে যেতে হয়েছিল। তামিলনাডুর ব্যাটসম্যান বদ্রীনাথের বদলে বিরাটের হয়ে কথা বলার বিষয়টি তখন মোটেও ভালভাবে নেননি বোর্ডের তত্কালীন কোষাধ্যক্ষ এন শ্রীনিবাসন, এমনটাই মত দিলীপের।    

 

ঠিক কী হয়েছিল?  
বেঙ্গসরকার বলেন, "২০০৮ সালে শ্রীলঙ্কা সফরে একদিনের ভারতীয় দলে বিরাট কোহলিকে সুযোগ দেওয়ার কথা বলেছিলাম। কারণ, ওটাই সঠিক সময় ছিল। সবে অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ জিতেছিল বিরাট কোহলি। বাকি চার নির্বাচকও আমার সঙ্গে বিরাট নিয়ে একমত ছিলেন। কিন্তু অধিনায়ক ধোনি এবং কোচ গ্যারি কার্স্টেন কোনওভাবেই রাজি ছিলেন না। ধোনি ও গ্যারির যুক্তি ছিল তাঁরা বিরাটকে সেভাবে দেখেননি।" পাশাপাশি বেঙ্গসরকার জানান, "আমি জানতাম, তারা দলে বদ্রীনাথকে রাখতে চায়, কারণ বদ্রীনাথ চেন্নাই সুপার কিংসের ক্রিকেটার। খুব সহজ অঙ্ক, যদি কোহলিকে দলে নেওয়া হত তাহলে বদ্রীনাথ বাদ পড়ত। আর এন শ্রীনিবাসন তখন বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ ছিলেন। বদ্রীনাথ সুযোগ না পেলে হতাশই হতেন শ্রীনি।"

শেষ পর্যন্ত ২০০৮ সালে শ্রীলঙ্কা সফরে বদ্রীনাথ এবং বিরাট কোহলি দু'জনকেই একদিনের স্কোয়াডে রাখা হয়েছিল। সিরিজের পাঁচটি ম্যাচেই খেলেছিলেন বিরাট। বদ্রীনাথ খেলেছিলেন ৩টি ম্যাচ।

আরও পড়ুন- নারী দিবসে বিরাট বার্তা: সমান সমান নয়, নারীরা পুরুষের উর্ধ্বে

এ প্রসঙ্গে দিলীপ বেঙ্গসরকার আরও জানান, "উনি (শ্রীনিবাসন) আমার কাছে জানতে চেয়েছিলেন, কী কারণে বদ্রীনাথ বাদ পড়ল? আমি তার ব্যাখ্যা হিসেবে বলেছিলাম, অস্ট্রেলিয়া ট্যুরে উদীয়মান ক্রিকেটার হিসেবে বিরাটকে দেখেছি। ও (বিরাট) সত্যিই খুব ভালো মানের ক্রিকেটার, তাই দলে রেখেছি।" এরপরই পাল্টা প্রশ্নে শ্রীনি বলেন, "তামিলনাডুর হয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে ৮০০-র বেশি রান করেছে বদ্রীনাথ। আর কবে সুযোগ পাবে সে?" তখন বেঙ্গসরকার বলেছিলেন," সময় আছে, বদ্রীনাথ ঠিকই সুযোগ পাবে।"

ঘটনাচক্রে, পরের দিনই ভারতীয় দলের নির্বাচক প্রধান হিসেবে বেঙ্গসরকারকে সরিয়ে কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্তকে দায়িত্ব দেন শরদ পাওয়ারের বোর্ড। ২০০৬ সালে কিরণ মোরের মেয়াদ শেষে টিম ইন্ডিয়ার নির্বাচক প্রধান হন দিলীপ বেঙ্গসরকার। ২ বছর যেতে না যেতেই শ্রীনির জন্যই সরে যেত হয় বেঙ্গসরকারকে। এই বেঙ্গসরকারই কিন্তু চ্যাপেল জমানা শেষে, জাতীয় দলে ফিরিয়ে এনেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কেও। তবে সম্পূর্ণ অধ্যায়টিই দিলীপ বেঙ্গসরকারের ব্যাখ্যা। এ বিষয়ে অন্য কোনও পক্ষ এখনও মুখ খোলেননি।

খেলার খবর জানতে দেখুন স্পোর্টস ২৪, রাত ৮ টা ৪০ মিনিটে। শুধুমাত্র ২৪ ঘণ্টায়