বাগানের নির্বাসনে হতাশায় ডুবে ব্যারেটো, টোলগে

Last Updated: Tuesday, January 1, 2013 - 19:53

একজন অতীত আর একজন বর্তমান। মোহনবাগানের নির্বাসনের পর ক্লাবের অতীত আর বর্তমান একই দুনিয়ায় বাস করছে। তা হল হতাশা। গোটা বিশ্ব, গোটা দেশ, গোটা রাজ্য যখন বর্ষবরণের আলোয় ভেসেছে, তখন মোহনবাগানের পৃথিবীতে শুধুই অন্ধকার। আর এই অন্ধকারের দুনিয়ায় ডুবে টোলগে, ব্যারেটোর।
আই লিগ থেকে মোহনবাগানের নির্বাসনের খবর শোনার পর থেকে হতাশায় ডুবে অসি গোলমেশিন টোলগে ওজবে। ক্লাবের অনুশীলন বন্ধ। বর্ষবরণের উত্‍সবে যখন মত্ত গোটা শহর,তখন নিজেকে বিলাসবহুল ফ্লাটের মধ্যে আটকে রেখেছেন তিনি। ফেডারেশনের সিদ্ধান্ত নিয়ে কোনও মন্তব্য না করলেও,টোলগে বলছেন ক্লাবের আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে ফেডারেশন যেন ফুটবলারদের দিকটিও বিবেচনা করে।
সবে চোট কাটিয়ে মাঠে ফিরেছেন। নতুন বছরের শুরু থেকেই আই লিগের ম্যাচে দলের হয়ে মাঠে নামার জন্য মুখিয়ে ছিলেন। কিন্তু তা আর হয়ে উঠছে না। তবে টোলগের আশা নতুন বছরে সব কিছুই আবার আগের মত হয়ে যাবে।মোহনবাগানকে আবার আই লিগে খেলতে দেখা যাবে।
উত্‍সবের মধ্যেও এবছর মনটা একেবারেই ভাল নেই ব্রাজিলীয় স্ট্রাইকার হোসে রামিরেজ ব্যারেটোর। শনিবার বাড়িতে বসেই শুনেছেন প্রিয় ক্লাবের আই লিগ থেকে সাসপেনসনের খবর। মোহনবাগান সভ্য-সমর্থকদের চোখের জল আর হতাশা ছুঁয়ে যাচ্ছে সবুজ তোতার হৃদয়কেও। তবে ব্যারেটো সবচেয়ে বেশি ব্যতীত ওডাফা-টোলগেদের জন্য। ব্রাজিলীয় স্ট্রাইকার বলছেন,একজন পেশাদার ফুটবলার হিসাবে তিনি ভালমতই বুঝছেন মরসুমের মাঝে এই ধরনের খবরের পর মোহনবাগান ফুটবলারদের উপর দিয়ে কি ঝড় বয়ে যাচ্ছে।
 
ডার্বি ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে দল না নামানোর জন্য কঠোর শাস্তির মুখে পড়তে হয়েছে মোহনবাগানকে। যা নিয়ে সমর্থকদের ক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে কর্তাদের। যদিও ব্যারেটো বলছেন,সব দোষ মোহনবাগানকে দেওয়া উচিত হয়নি। সমর্থকদের মতই ব্যারেটোর আশা,খারাপ সময় কাটিয়ে উঠবে শতাব্দী প্রাচীন ক্লাবটি। আবার সবুজ বাগানে ফুল ফুটবে।



First Published: Tuesday, January 1, 2013 - 19:53


comments powered by Disqus