জার্মানির সেরা ফুটবলের সাক্ষী থাকল দিল্লি

ঐতিহাসিক ম্যাচের সাক্ষী থাকল ভারতীয় ফুটবল। দিল্লি মাতিয়ে দিয়ে গেলেন বিশ্বফুটবলের সুপারস্টাররা। মেগা ম্যাচের মাধ্যমেই ভারতের নীল জার্সিকে বিদায় জানালেন বাইচুং ভুটিয়া। জামার্নির চ্যাম্পিয়ন ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৪ গোলে হারতে হল ভারতীয় দলকে।

Updated: Jan 10, 2012, 09:25 PM IST

ঐতিহাসিক ম্যাচের সাক্ষী থাকল ভারতীয় ফুটবল। দিল্লি মাতিয়ে দিয়ে গেলেন বিশ্বফুটবলের সুপারস্টাররা। মেগা ম্যাচের মাধ্যমেই ভারতের নীল জার্সিকে বিদায় জানালেন বাইচুং ভুটিয়া। জামার্নির চ্যাম্পিয়ন ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৪ গোলে হারতে হল ভারতীয় দলকে। শক্তি বা ক্ষমতার বিচারে কয়েক যোজন পিছিয়ে থাকলেও, রবেন, মুলারদের বিরুদ্ধে ৯০ মিনিট লড়াই চালিয়ে যান বাইচুংয়ের নেতৃত্বাধীন ভারত। ভারতীয় ফুটবল প্রেমীদের স্বপ্নপূরণ করতে সেরা একাদশই মাঠে নামিয়েছিলেন বায়ার্ন কোচ। রবেন, মুলারদের দেখার ঘোর কাটিয়ে ওঠার আগেই মারিও গোমেজের গোলে পিছিয়ে পড়ে ভারতীয় দল। তারপর জোড়া গোল দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতা মুলারের। বিরতির বাঁশি বাজার আগেই দুরন্ত শটে শোয়াইনস্টেইগারে ট্রেডমার্ক গোল। বায়ার্নের এই মিডফিল্ডার পায়ের ঝলকে বোঝালেন কেন তাঁকে জার্মান ফুটবলের রাজপুত্র বলা হয়। দ্বিতীয়ার্ধে ফ্র্যাঙ্ক রিবেরি নামলেও গোলসংখ্যা বাড়াতে পারেনি বায়ার্ন। জেজে, বাইচুংরা দ্বিতীয়ার্ধে উজ্জ্ববিত ফুটবলও খেলেন। ৮৪ মিনিটে শেষবারের মত জাতীয় দলের ফুটবলার হিসাবে মাঠ ছাড়েন বাইচুং। এইসব ম্যাচে স্কোরশিট নেহাতই আপেক্ষিক। ভারতের মাটিতে একক ভাবে বা বিক্ষিপ্ত ভাবে অনেক বিশ্বকাপার খেলে গেলেও পূর্ণ শক্তি নিয়ে ভারতে খেললো প্রথম বায়ার্ন মিউনিখই। জার্মানির সেরা ফুটবলের ঝলকের সাক্ষী থাকল ভারতীয় ফুটবল।