মোহনবাগানকে হারিয়ে শিল্ড ফাইনালে ইস্টবেঙ্গল

Last Updated: Sunday, March 17, 2013 - 17:26

ইস্টবেঙ্গল (৪) মোহনবাগান (২) (টাইব্রেকার)
নির্ধারিত সময়ে খেলার ফল ১-১

গতবার আইএফএ শিল্ডের ফাইনালে প্রয়াগ ইউনাইটেডকে টাইব্রেকারে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ইস্টবেঙ্গল।
শিল্ড ফাইনালে প্রয়াগ ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে খেলবে ইস্টবেঙ্গল
টানা ১৮ টি ম্যাচ অপরাজিত থাকল ইস্টবেঙ্গল।
টাই ব্রেকারে মোহনবাগানকে হারিয়ে শিল্ড ফাইনালে ইস্টবেঙ্গল।

এক নজরে টাইব্রেকার
ইস্টবেঙ্গল--- চিডি (গোল) (১-০), বরিসিচ (গোল) (২-০), সঞ্জু (গোল) (৩-০), নওবা (বাইরে) (৩-১),  বলজিত্‍ (গোল) (৪-২)
মোহনবাগান---ওডাফা (মিস) (০-১), নির্মল (বাইরে) (০-২), জুয়েল (গোল) (৩-১), আইবর (গোল) (৩-২)
এবার গোল করলেই শিল্ড ফাইনালে উঠে যাবে ইস্টবেঙ্গল। ঠিক তাই হল। বলজিতের গোলে ফাইনালে উঠল ইস্টবেঙ্গল।
মোহনবাগানের হয়ে টাইব্রেকার গোল করলেন জুয়েল রাজা।

এবার গোল করলেই ফাইনালে উঠে যাবে ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু পারলেন না নওবা সিং। ম্যাচের ফল এখন ৩-১

অবশেষে টাইব্রেকারে গোল পেল মোহনবাগান। গোল করলেন জুয়েল রাজা।

টাইব্রেকারে লাল হলুদের তৃতীয় শটে গোল সঞ্জু প্রধানের। ফাইনালের পথে ইস্টবেঙ্গল।
টাইব্রেকারে মোহনাবাগানের দ্বিতীয় শটটি বাইরে মারলেন নির্মল ছেত্রী। ০-২ পিছিয়ে মোহনবাগান।
টাইব্রেকারে ইস্টবেঙ্গলের দ্বিতীয় শটটি নিচ্ছেন বরিসিচ। গোল করলেন বরিসিচ।

টাইব্রেকারে মোহনবাগানের প্রথম শটটি নেবেন ওডাফা। ওডাফার শট বাঁচালেন ইস্টবেঙ্গলের গোলকিপার গুরপ্রীতি সিং।

টাইব্রেকারে প্রথম শটটি নেবেন চিডি। গোল করলেন চিডি

অতিরিক্ত সময়ের খেলা শেষ। ১২০ মিনিট পরেও দু দল দাঁড়িয়ে এক বিন্দুতে। আইএফ শিল্ড সেমিফাইনালের ভাগ্য এবার টাইব্রেকারে নির্ধারিত হবে।

১০৯ মিনিট-- সঞ্জুর দারুণ দৌড়। কিন্তু মিস পাস করে ফেললেন।
১০৮ মিনিট-- টোলগে বল বাড়ালেন সাবিথকে। কিন্তু কী করলেন সাবিথ....
১০৬ মিনিট-- কর্নার পেল ইস্টবেঙ্গল।
১০৫ মিনিট-- অতিরিক্ত সময়ের প্রথমার্ধের খেলা শেষ।
১০৩ মিনিট-- টোলগের শট....। না বল সাইড নেটে লেগেছে।
১০০ মিনিট-- আবার গোলের সুযোগ পেলেন বরোসিচ। তাঁর হেড মোহনবাগানের ফুটবলারের পায়ে লেগে মাঠের বাইরে গেল। কর্নার পেল লাল হলুদ
৯৭ মিনিট-- চিডিকে খারাপ ট্যাকল করায় হলুদ কার্ড দেখলেন ডেনসন দেবদাস।

অতিরিক্ত সময়ের খেলা শুরু।

এবার খেলা গড়াবে অতিরিক্ত সময়ে। অতিরিক্ত সময়ে দুই অর্ধে ১৫ মিনিট করে মোট আধ ঘণ্টার খেলা হবে। তাতেও ফয়সালা না হলে। ম্যাচের নিষ্পত্তি হবে টাইব্রেকারে
৯২ মিনিট-- বরোসিচকে খুব বাজেভাবে ফেলে দিলেন আইবর। ফ্রিকিক পেল ইস্টবেঙ্গল। 
৯০ মিনিট-- কুইন্টন জেকবসের বদলে মাঠে নামলেন টোলগে
৯০ মিনিট-- পাঁচ মিনিট ইনজুরি টাইম দিলেন রেফারি।
পেনের পরিবর্ত খেলোয়াড় হিসাবে মাঠে নেমেছিলেন বরিসিচ।
৮৭ মিনিট-- ম্যাচে সমতায় ফিরল ইস্টবেঙ্গল। দুরন্ত গোল বরিসিচের।
৭৯ মিনিট-- এবার ফ্রিকিক নিলেন লালরানডিকা। গোল হল না।
৭৮ মিনিট-- ফ্রিকিকে বল হাতে লাগানোয় হলুদ কার্ড দেখলেন সাবিথ। ফের ফ্রিকিক পেল ইস্টবেঙ্গল। রেফারির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাচ্ছেন বাগান ফুটবলাররা। এবারও ফ্রিকিক থেকে গোল পেল না ইস্টবেঙ্গল।
৭৮ মিনিট-- হলুদ কার্ড দেখলেন মোহনবাগানের দুই ফুটবলার নির্মল, সাবিথ।
৭৭ মিনিট-- পেনাল্টি বক্সের ঠিক আগে দারুণ জায়গা থেকে ফ্রিকিক পেল ইস্টবেঙ্গল। ফ্রি কিক মারলেন চিডি। মানবপ্রাচীরে ধাক্কা খেল চিডির শট।
৭১ মিনিট-- আঘাত পেলেন মোহনবাগান গোলরক্ষক শিল্টন পাল। মাঠেই চিকিত্‍সা করা হচ্ছে শিল্টনকে।
মোহনবাগানের খেলায় দারুণ বৈচিত্র্য দেখা যাচ্ছে। বাগানের ফুটবলার ইচে যেন মাঠে ফুল ফোটাচ্ছেন।

৬৯ মিনিট-- খেলোয়াড় পরিবর্তন ইস্টবেঙ্গলের-- পেনের পরিবর্তে নামলেন বরিসিচ

৬৬ মিনিট-- হলুদ কার্ড দেখলেন ইস্টবেঙ্গলের মেহতাব হোসেন।
মোহনবাগানের হয়ে এই মরসুমে সাবিথের এটি অষ্টম গোল।
৫৭ মিনিট-- খেলোয়াড় পরিবর্তন ইস্টবেঙ্গলের-- রবীন সিংয়ের পরিবর্তে মাঠে এলেন বলজিত্‍।
ডার্বি জমে গেছে। আক্রমণ, পাল্টা আক্রমণে যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে ডার্বি জমজমাট।

৫৬ মিনিট-- রবীন সিংকে হলুদ কার্ড দেখালেন রেফারি সন্তোষ কুমার। ম্যাচের এটি দ্বিতীয় কার্ড। প্রথমটি দেখেন মোহনবাগানের নির্মল ছেত্রী।

৫৩ মিনিট-- চিডির সেন্টার, দারুণ সেভ শিল্টন পালের
গতবার আই লিগে ভারতীয়দের মধ্যে সর্বাধিক গোলদাতা ছিলেন সাবিথ। সেই সাবিথই আজেকর ডার্বিতে গোল করলেন
৫০ মিনিট-- এবার আক্রমণে মোহনবাগান। গোল কি হবে? না... রেফারি অফসাইড দিলেন। বল বাইরে চলে গেল
৪৯ মিনিট-- পাল্টা আক্রমণ ইস্টবেঙ্গলের। কিন্তু এবারও ইচের প্রাচীরে আটকে গেল ইস্টবেঙ্গল।

৪৮ মিনিট-- দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল পেল মোহনবাগান। ওডাফার সঙ্গে যুগলবন্দিতে গোল করলেন সাবিথ।
ওডাফার বাড়িয়ে দেওয়া বল ইস্টবেঙ্গলের তিন কাঠিতে পাঠালেন সাবিথ।

বিরতির বাঁশি বেজে গেল। ডার্বির স্কোরবোর্ড গোলশূন্য।
ম্যাচের প্রথমার্ধে এখনও পর্যন্ত মোহনবাগানের সেরা খেলোয়াড় ইচে। ইচের কাছেই বারবার আটকে যাচ্ছে ইস্টবেঙ্গল।
৪৫ মিনিট-- তিন মিনিট ইনজুরি টাইম দিলেন রেফারি সন্তোষ কুমার।
ওডাফাকে কড়া দৃষ্টিতে রেখেছেন ইস্টবেঙ্গলের ফুটবলাররা।
৪২ মিনিট-- মেহতাব ফাউল করলেন মোহনবাগানের কুইন্টন জ্যাকবসকে। ফ্রি কিক পেল সবুজ মেরুন ফুটবলাররা
মোহনবাগানের উইং প্লে হচ্ছে না। তাই বলের জোগানই পাচ্ছেন না ওডাফা।
৩৮ মিনিট-- আবার গোলের খুব কাছে চলে গেলেন চিডি। কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা পেল মোহনবাগান।
৩৭ মিনিট-- অফসাইডের ফাঁদে পড়লেন ওডাফা।
৩৬ মিনিট-- মোহনবাগানের ডিফেন্সের মারাত্মক ভুল। অল্পের জন্য গোল করতে পারলেন না চিডি। এই তৃতীয় সুবর্ণ সুযোগ হারালেন চিডি।
৩৫ মিনিট-- ম্যাচে প্রথম কর্নার পেল মোহনবাগান। লালরানডিকার কর্নারে অবশ্য গোল হল না।
৩২ মিনিট-- ম্যাচে তৃতীয় কর্নার পেল ইস্টবেঙ্গল। ডিকার নেওয়া কর্নার সোজা চলে গেল শিল্টনের হাতে।
৩২ মিনিট-- ম্যাচে তৃতীয় কর্নার পেল ইস্টবেঙ্গল। ডিকার নেওয়া কর্নার সোজা চলে গেল শিল্টনের হাতে।
আজকের ম্যাচে মোহনবাগানের প্রথম একাদশ (৪-৩-৩)- শিল্টন, নির্মল, আইবর, ইচে, জুয়েল, জেকবস, ডেনসন, মেহরাজ, মণীশ ভার্গব, ওডাফা, সাবিথ
আজকের ম্যাচে ইস্টবেঙ্গলের প্রথম একাদশ-- গুরপ্রীত, খাবরা, ওপারা, গুরবিন্দর, সঞ্জু, সৌমিক, পেন, মেহতাব, ডিকা, চিডি, রবীন

৩০ মিনিট-- খেলায় চোরাগোপ্তা আক্রমণ চলছে দু দলের ফুটবলারদের মধ্যে। রবীন সিং মেজাজ হারালেন। তবে একটু পরেই হাসি ফুটল রবীনের মুখে।
চোট পেলেন মেহতাব। খেলা কিছুক্ষণের জন্য বন্ধ হল।
২৩ মিনিট-- গোলের সুযোগ তৈরি করলেন চিডি। বাগানের দুর্গ বাঁচালেন ইচে।
ম্যাচ সেভাবে জমছে না।
২০ মিনিট-- ইস্টবেঙ্গল ছন্দবদ্ধ আক্রমণের রাস্তায় যাচ্ছে
পরিসংখ্যান-- এই মরসুমে মোহনবাগানের ওডাফা ২৮ টি গোল করেছেন, সেখানে ইস্টবেঙ্গলের চিডি করেছেন ২৬ টি গোল।
১৫ মিনিট-- ম্যাচের প্রথম কর্নার পেল ইস্টবেঙ্গল। তবে গোল হল না।

১২ মিনিট-- জুয়েল রাজার দারুণ দৌড়। এই প্রথম গোলের সুযোগ তৈরি করল মোহনবাগান।

ম্যাচের প্রথম দশ মিনিটে আধিপত্য ইস্টবেঙ্গলের।
১০ মিনিট-- অবৈধ ফাউল করায় হলুদ কার্ড দেখলেন মোহনবাগানের নির্মল ছেত্রী।

৫ মিনিট-- আবার গোলের সুযোগ ইস্টবেঙ্গলের
ম্যাচের দু মিনিটে মোহনবাগানের গোলকিপার শিল্টন পালের ভুলের সুযোগ অল্পের জন্য হাতছাড়া চিডির।
১৮ মাস পর যুবভারতীতে নৈশালোকে ম্যাচ হচ্ছে
আজকের ম্যাচে মোহনবাগানের প্রথম একাদশ (৪-৩-৩)- শিল্টন, নির্মল, আইবর, ইচে, জুয়েল, জেকবস, ডেনসন, মেহরাজ, মণীশ ভার্গব, ওডাফা, সাবিথ
আজকের ম্যাচে ইস্টবেঙ্গলের প্রথম একাদশ-- গুরপ্রীত, খাবরা, ওপারা, গুরবিন্দর, সঞ্জু, সৌমিক, পেন, মেহতাব, ডিকা, চিডি, রবীন
সন্ধ্যা ৫.৩০টা-- খেলা শুরু হল
পরিসংখ্যান-- শিল্ডের সেমিফাইনালে এই নিয়ে ছবার মুখোমুখি হচ্ছে কলকাতার দুই প্রধান। এর
আগের পাঁচবারের সাক্ষাতে ইস্টবেঙ্গল জেতে চারবার। মোহনবাগান শিল্ড
সেমিফাইনালের ডার্বি জেতে একবার।
সন্ধ্যা ৫.২৫টা-- দুই দলের
ফুটবলারদের সঙ্গে পরিচয় করছেন রেফারি সন্তোয কুমার। দুই দলের ফুটবলাররা হাত
মেলালেন। খেলা একটু পরেই শুরু হবে।
নমস্কার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন
থেকে আপনাকে স্বাগত। আইএফএ শিল্ডের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি
মোহনাবাগান-ইস্টবেঙ্গল। সেই ম্যাচের লাইভ আপডেট--



First Published: Sunday, March 17, 2013 - 20:50


comments powered by Disqus