বড় ম্যাচে আধডজন গোল দিল ইস্টবেঙ্গল

Last Updated: Saturday, February 23, 2013 - 16:41

ইস্টবেঙ্গল (৬) মহামেডান (১)
(বলজিত-৩, রবিন-২, চিডি) (উই)
ঘরোয়া লিগে ইস্টবেঙ্গলের গোলের সুনামি চলছেই। এরিয়ানকে সাত গোল দেওয়ার পর শনিবার মহমেডানকেও ছয়-এক গোলে উড়িয়ে দিল মরগ্যানের দল। যুবভারতীতে হ্যাটট্রিক করলেন বলজিত সিং। গতবছরও ঘরোয়া লিগে মহমেডানকে ছয় গোলে হারিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। সেই ম্যাচের নায়ক টোলগে এখন মোহনবাগানে। তা সত্বেও অলোক মুখার্জির দলের বিরুদ্ধে গোলসংখ্যা কমেনি লাল-হলুদ শিবিরের।
দুই অর্ধে তিনটি করে গোল করে ইস্টবেঙ্গল। খেলার পনেরো মিনিটের মধ্যেই বলজিত আর চিড্ডির গোলে ২-০ এগিয়ে গেছিল ইস্টবেঙ্গল। সেই ধাক্কা আর সামলে উঠতে পারেনি সাদা-কালো শিবির। বিরতির পর নিজের হ্যাটট্রিক সেরে ফেলেন বলজিত। ঘরোয়া লিগে পাঞ্জাবি স্ট্রাইকারের এটি তৃতীয় হ্যাটট্রিক। জাতীয় দল থেকে ফিরে ক্লাবের জার্সি গায়ে চাপিয়ে জোড়া গোল করে যান রবিন সিংও। মহমেডানের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন উই। সুপার নাইনের ছয় ম্যাচে ২৬ গোল করল ইস্টবেঙ্গল। সেইসঙ্গে টানা ছয় ম্যাচ জিতে সুপার নাইনে শীর্ষস্থান ধরে রাখল মরগ্যানের দল।
লিগ জয়ের মুখে ইস্টবেঙ্গল-- মহমেডান স্পোর্টিংয়ের বক্সে মুড়ি মুড়কির মত আক্রমণ। ছয় গোলের মালা পরানো। শনিবার যুবভারতীতে শতাব্দীপ্রাচীন ক্লাবের ঐতিহ্যকে কার্যত লুঠ করে নেওয়া ইস্টবেঙ্গল শিবির একেবারে স্পিকটি নট। কোচ মরগ্যান থেকে ফুটবলারদের মুখে কুলুপ। সাহেব কোচের মৌনব্রত পালনের কারণ,কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের উপর তাঁর গোঁসা হয়েছে।তাঁর অভিযোগ,মিডিয়ার একাংশ তাঁর মন্তব্য বিকৃতি করেছে।
ফল,তিনি ও তাঁর দলের কেউই মুখ খুলবেননা। তবে মহমেডান স্পোর্টিংয়ের মত বড় দলকে এত গোলে হারানো নিয়ে লাল হলুদ ফুটবলাররা উচ্ছ্বসিত। ফুটবলারদের একাংশ খানিকটা অবাক মহমেডান স্পোর্টিংকে দেখে। মহমেডানকে এত গোলের মালা পরাবেন তা ভাবতে পারেননি অনেক ফুটবলারই। সব মিলিয়ে সুপার নাইনের দুটি ম্যাচ আগেই যেন লিগ জয়ের গন্ধ পাচ্ছে ইস্টবেঙ্গল।

 



First Published: Saturday, February 23, 2013 - 20:24


comments powered by Disqus