শেষ মুহূর্তের পেনাল্টি গোলে জয় ইস্টবেঙ্গলের

Last Updated: Wednesday, March 6, 2013 - 17:27

ইস্টবেঙ্গল (২) ওএনজিসি (১)
সবাই ধরেই নিয়েছিল ম্যাচটা ড্র হতে চলেছে। কিন্তু ৯৪ মিনিটে সঞ্জু প্রধানের কর্নারটা দিল ম্যাচের ফলাফলটা। পেনাল্টি বক্সে বলে হাত লাগিয়ে ওনজিসির পরিবর্ত ফুটবলার লালরিনমুআনা ইস্টবেঙ্গলকে পেনাল্টি উপহার দিলেন। সেই পেনাল্টি থেকেই মননদীপ সিংয়ের গোল লাল হলুদকে প্রায় হাতছাড়া হতে বসা জয় উপহার দিল। বুধবারের ম্যাচ জিতে আইএফএ শিল্ডের শেষ চারে ওঠার পথে অনেকটাই এগিয়ে গেল মরগ্যানের দল। শুক্রবার ইউনাইটেড সিকিমের বিরুদ্ধে অন্তত ড্র করতে পারলেই শিল্ডের সেমিফাইনালে যাওয়া নিশ্চিত লাল হলুদের।
শিলিগুড়ির কাঞ্চনজঙ্ঘা এদিনের ম্যাচটা ছিল বেশ ঘটনাবহুল। ম্যাচের ১৮ মিনিটে বোরিসিচের গোলে এগিয়ে যায় ইস্টবেঙ্গল। প্রথমার্ধের খেলা শেষ হওয়ার মিনিট তিনেক আগে ওএনজিসিকে সমতায় ফেরে অদ্ভুত এক গোলে। খাবরা ব্যাক পাস করেন গোলকিপার অভিজিত্‍ মণ্ডলকে। কিন্তু খাবরার ব্যাক পাস পেয়ে মারাত্মক ভুল করে বসেন অভিজত্‍। ওএনিজিসির বিমল মিঞ্জকে ড্রিবল করতে গিয়ে ব্যর্থ হন অভিজত্‍। সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ফাঁকা গোলে বল জালে জড়ান লালমুয়ানপুইয়া। ম্যাচের ৬০ মিনিটে বক্সিং রিংয়ে পরিণত হয় শিলিগুড়ি স্টেডিয়াম। বোরিসিচের ফাউলকে কেন্দ্র করে হঠাত্‍ই হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন লালরানডিকা ও পরমিন্দর। স্বভাবতই রেফারির পকেট থেকে লাল কার্ড বের হওয়ায় মাঠ ছাড়েন লালরানডিকা ও পরমিন্দর। ম্যাচের নাটকের বৃত্তটা একেবারে সম্পূর্ণ হয় একেবারে শেষে মননদীপের পেনাল্টি গোলে।

যুবভারতীতে এবারের আই লিগের প্রথম পর্বে ইস্টবেঙ্গলের কাছে ৫-০ গোলে
বিধ্বস্ত হয়েছিল ওএনজিসি। কিন্তু ফিরতি পর্বে দিল্লিতে সেই ইস্টবেঙ্গলকেও
হারিয়ে দেয় কাশ্যপের দল।
গত রবিবার শিলিগুড়িতে পৈলান অ্যারোজের
বিরুদ্ধে ম্যাচ জিতে শিল্ড অভিযান শুরু করেছে লাল হলুদ ব্রিগেড। সেইসময়
চিডি সঞ্জুরা জানতেন তাদের পরের ম্যাচ বুধবার বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধার
বিরুদ্ধে। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধা শেষ মুহূর্তে না আসতে পারায় শিল্ডে নতুন দল
নিয়ে আসতে হিমসিম খেতে হয় আইএফএকে। শেষপর্যন্ত ওএনজিসিকে শিল্ডে খেলানোর
ব্যবস্থা করে তারা।

ইস্টবেঙ্গল-অ্যারোজে ম্যাচের পর আইএফএ সতর্কতা যে কোনও কাজে আসেনি, তা শিলিগুড়িতে প্রমাণিত। রেফারি অ্যান্ড্রু শেখর লালকার্ড দেখান দুজনকেই। এই একটি সিদ্ধান্ত বাদে বাকি ম্যাচ জুড়ে ভুলে ভরা রেফারিং। চিড্ডির হতাশজনক পারফরম্যান্স দেখে বাধ্য হয়ে পেনকে নামান মরগ্যান। ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে লালরিনমুয়া বক্সে হ্যান্ডবল করায় পেনাল্টি পায় ইস্টবেঙ্গল। অবশেষে মননদীপের পেনাল্টি থেকে করা জয়সূচক গোলে স্বস্তি ফিরল মরগ্যানের সংসারে।



First Published: Wednesday, March 6, 2013 - 19:10


comments powered by Disqus