ইডেনে ভারত-পাক ম্যাচ এগিয়ে এল তিনদিন

Last Updated: Wednesday, October 17, 2012 - 19:10

আগামি বছর ইডেন গার্ডেন্সের মেগা ম্যাচ এগিয়ে আনা হল। ৬ জানুয়ারির বদলে ইডেনে ভারত-পাকিস্তান একদিনের ম্যাচ হবে ৩ জানুয়ারি। প্রথমে ৬ জানুয়ারি ভারত-পাক সিরিজের তৃতীয় একদিনের ম্যাচ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রস্তাব মেনে ম্যাচ এগিয়ে এল তিনদিন। ইডেনে ভারত-পাক একদিনের ম্যাচের তারিখ পরিবর্তন করল বিসিসিআই। আগে ঠিক ছিল ৬ জানুয়ারি সিরিজের তৃতীয় একদিনের ম্যাচটি ইডেনে হবে। কিন্তু স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রস্তাব মেনে বিসিসিআই ৩ জানুয়ারি ইডেনে দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচটি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
পাক ক্রিকেটারদের নিরাপত্তার বিষয়টি ছাড়াও দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে একটি নৈশভোজে পাক দলকে আমন্ত্রণ জানানো হতে পারে। এমনই ইঙ্গিত পাওয়ার পর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড সূচি পরিবর্তন করে।
অন্যদিকে, সামাজিক দূষণ রোধে বিশেষ উদ্যোগ নিল সিএবি। আসন্ন ভারত-ইংল্যান্ড টেস্ট ম্যাচে মাঠের ভিতরে এমন কোনও বিজ্ঞাপন রাখা হবে না যা সমাজের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। আগেই মাঠে মদের বিজ্ঞাপন নেওয়া বন্ধ করেছিল সিএবি। এবার ওয়ার্কিং কমিটি এই নয়া সিদ্ধান্ত নিল।
ইডেনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও পরিকাঠামো দেখে সন্তোষ প্রকাশ করলেন ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের প্রতিনিধিরা। বুধবার ইডেন পরিদর্শনে এসেছিল তিন সদস্যের ইসিবি-র প্রতিনিধি দল। দলের নেতৃত্বে ছিলেন ইসিবি-র ডিরেক্টর অফ অপারেশন জন কার। ইসিবি-র প্রতিনিধিরা তিনটি প্র্যাচটিস পিচ চেয়েছেন। সিএবি জানিয়ে দেয় তারা প্র্যাকটিসের জন্য চারটি পিচের ব্যবস্থা রাখবেন। ইংল্যান্ড দলের নিরাপত্তার ব্যাপারে ইসিবি-র প্রতিনিধিরা লালবাজারে পুলিস কমিশনারের সঙ্গেও বৈঠক করেন। দশদিন দল যেহেতু কলকাতায় থাকবে তাই ব্রিটিশ ক্রিকেটাররা  কিছু বিনোদনমূলক কাজে অংশ নেবে। আর তার জন্য কলকাতা পুলিসের সহযোগিতা চেয়েছেন তারা।
             
এদিকে ইংল্যান্ড দল পয়লা ডিসেম্বর কলকাতায় আসবে। ইডেনে ভারত-ইংল্যান্ড টেস্টে ব্রিটিশ সমর্থকদের টিকিটের চাহিদা ক্রমে বেড়েই চলেছে। অনলাইনে আগেই বেশ কিছু ব্রিটিশ সমর্থক টিকিট বুকিং করেছিলেন। এবার ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের কাছ থেকেই সিএবিকে জানানো হল আরও কিছু টিকিটের বন্দোবস্ত করতে। ইসিবি-র ডিরেক্টর অপারেশন জন কারের  এই প্রস্তাবে অবশ্য সম্মতি জানিয়েছে সিএবি। ইদানিং টেস্টে দর্শকের সংখ্যা ক্রমশ কমছে। কিন্তু ভারত-ইংল্যান্ড ম্যাচে ঠিক বিপরীত দৃশ্য দেখা যাবে বলেই মনে করছেন সিএবি কর্তারা। তাঁদের দাবি টেস্ট ম্যাচের চতুর্থ ও পঞ্চম দিন শনি ও রবিবার পড়ায় টিকিটের চাহিদা আরও বাড়বে।



First Published: Wednesday, October 17, 2012 - 19:10


comments powered by Disqus