ইস্টবেঙ্গলের দায়িত্বে আসতে পারেন ফিগোদের প্রাক্তন কোচ!

মরগ্যানের পর ইস্টবেঙ্গলের কোচ হতে চলেছেন আরও এক বিদেশিই। এমনই জল্পনা ময়দান জুড়ে। আর সেই দৌড়ে এগিয়ে এক সময় লুই ফিগোর দলের কোচ। একসময় মালদ্বীপ ও অ্যাঙ্গোলার জাতীয় কোচের দায়িত্ব পালন করা ম্যানুয়েল গোমসের বায়োডাটা বেশ পছন্দ হয়েছে ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের একাংশের। সূত্রের খবর, ফিগোদের প্রাক্তন কোচ পর্তুগীজ ম্যানুয়েল গোমসের সঙ্গে নাকি কথাবার্তাও শুরু করেছে ইস্টবেঙ্গল।

Updated: May 6, 2013, 06:21 PM IST

মরগ্যানের পর ইস্টবেঙ্গলের কোচ হতে চলেছেন আরও এক বিদেশিই। এমনই জল্পনা ময়দান জুড়ে। আর সেই দৌড়ে এগিয়ে এক সময় লুই ফিগোর দলের কোচ। একসময় মালদ্বীপ ও অ্যাঙ্গোলার জাতীয় কোচের দায়িত্ব পালন করা ম্যানুয়েল গোমসের বায়োডাটা বেশ পছন্দ হয়েছে ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের একাংশের। সূত্রের খবর, ফিগোদের প্রাক্তন কোচ পর্তুগীজ ম্যানুয়েল গোমসের সঙ্গে নাকি কথাবার্তাও শুরু করেছে ইস্টবেঙ্গল।
প্রাথমিক আলোচনাও হয়েছে। শুধু ম্যানুয়েল গোমসই নন, আলভেজ নামে একজন কোচের নামও রয়েছে তালিকায়। আরও দুই কোচের নামও নাকি রয়েছে সেই তালিকায়। শেষপর্যন্ত ফিগো, নুনো গোমস, ফার্নান্দো কুটোদের কোচ মেহতাব-খাবরাদের দায়িত্ব নেন কিনা, তা নির্ভর করছে মরগ্যানের সিদ্ধান্তের উপরই।
ইস্টবেঙ্গলে আগামি মরসুমে থাকা নিয়ে এখনও কর্তাদের ঝুলিয়ে রেখেছেন ট্রেভর জেমস মরগ্যান। তীর্থের কাকের মত ইস্টবেঙ্গল কর্তারা এতদিন মরগ্যানের দিকে চেয়ে বসে থাকলেও, এবার তাঁরা অন্যান্য কোচের বায়োডাটা নিয়ে নাড়াচাড়া শুরু করলেন। শেষপর্যন্ত মরগ্যান নাই থাকেন, তবে অন্তিম লগ্নে ভাল মানের কোচ পাওয়া কঠিন।
এমনিতেই ডেম্পোর সঙ্গে ড্রয়ের পর ফুটবলারদের একাংশ থেকে কর্তাদের বিরাট অংশের রোষের মুখে মরগ্যান। ব্রিটিশ কোচ নিজেও বুঝতে পারছেন। আর এই পরিস্থিতিতে যে কোচের বায়োডাটা নিয়ে ক্লাবের অন্দরমহলে আলোচনা চলছে,তাঁর মধ্যে সবার আগে রয়েছেন ফিগোদের প্রাক্তন কোচ ম্যানুয়েল গোমস। দুবছর আগে চার্চিল ব্রাদার্সের কোচিং করার সুবাদে ভারতীয় ফুটবল নিয়ে ধারনাও রয়েছে ম্যানুয়েল গোমসের।
ডেম্পোর সঙ্গে ড্রয়ের পর ট্রেভর জেমস মরগ্যান যতই সমালোচনার মুখে পড়ুন না কেন, আইলিগের ইতিহাসে এই ম্যাচে ড্র করে নতুন নজির গড়ল ব্রিটিশ কোচের অধীনে থাকা ইস্টবেঙ্গল। আইলিগে গোয়া পর্বে এই প্রথম অপরাজিত থাকল ইস্টবেঙ্গল। যা পনেরো বছরের আইলিগ ইতিহাসে ইস্টবেঙ্গলের রেকর্ড। গোয়া মানেই চার্চিল ব্রাদার্স,ডেম্পো,সালগাঁওকরের মত শক্ত প্রতিপক্ষ।
যেখানে অ্যাওয়ে ম্যাচে অপরাজিত থাকা মানে কলকাতা বা অন্য কোনও শহরের দলগুলির কাছে প্রায় জয়ের সামিল। সেখানে চলতি আইলিগে মান্ডবীর তীরে অপরাজিত থাকার রেকর্ড গড়ে এএফসির কাপের পর আইলিগেও নজির গড়ল মরগ্যানের ইস্টবেঙ্গল।