মাহিময় মোহালিতে অবিশ্বাসকে হারাল আত্মবিশ্বাস। ধোনির ১৩৯ রানের সৌজন্যে ভারত তুলল ৩০৩ রান।

Last Updated: Saturday, October 19, 2013 - 15:38

ভারত- ৩০৩/৯ (৪৬.১ ওভার)  ধোনি- ১৩৯ অপ (১২১ বলে) ১২ টা বাউন্ডারি, ৫টা ওভার বাউন্ডারি।

যাদের স্কোরটা ঘণ্টাখানেক আগেও দেখে মনে হচ্ছিল ২০০ পেরোবে না, তারাই করল ৩০৩ রান। হ্যাঁ,মোহালির স্কোরবোর্ডটা দেখে এখনও অনেকে বিশ্বাস করতে পারছেন না। অবশ্য বিশ্বাস করা না করাটা আপনার ওপর। ধোনি যুগে বিশ্বাস আর অবিশ্বাস কথাটার ফারাক শুধু সময়ের। রায়না, যুবরাজ ফিরে যাওয়ার পর তিনি যখন নামলেন তখন মনে হচ্ছিল অবিশ্বাস। যখন কোহলি আউট হলেন অবিশ্বাস শব্দটার পর আরও একটা শ্বাস পড়ল। তারপর জাদেজা আউট। তখন বিশ্বাসও ব্যাগ গোছাতে শুরু করল। ভারতের স্কোর সেই সময় ৬ উইকেটে ১৫৪। ক্রিকেটের সাধারণ যুক্তি হিসাব কী বলে। লেজের দিকের ব্যাটসম্যান নিয়ে কতটা আর এগোনো সম্ভব! বড়জোর ২০০, ২৫০। না, ধোনির কাছে ওসব নয়। ধোনি যুগে অসম্ভবটাও সম্ভব। ধোনির আগের অবিশ্বাস্য ইনিংসগুলো সম্ভব কথাটা লোকের মনে গেঁথে দিতে পেরেছেন বলেই বোধহয় অনেকেই টিভি বন্ধ কেরেননি। 'ধুস ওদের দিয়ে কিছু হবে না, এই চিরচারিত কথাটা অনেকেই বলার সাহস পাননি'। সেটাই হল। অশ্বিন থেকে ভূবনেশ্বর কুমারদের নিয়ে লড়াই চালিয়ে গেলেন। বল এলো বাউন্ডারির বাইরে পাঠালেন। সেই হেলিকপ্টার শট, সেই মার্কামারা স্ট্রেট ড্রাইভ। সব এলো নিয়মের বেড়া টপকে নিয়ম মেনে। শেষ ২৫ বলে ৬০ রান করলেন, শেষ ওভারে নিলেন ২১ রান। এসব কথাগুলো দিয়ে ধোনির ইনিংস বোঝানো যাবে না। এই ইনিংস বোঝাতে গেলে শুধু লাগবে দুটো চোখ। যে দুটো চোখ দিয়ে দেখা যাবে ব্যাটসম্যানের আত্মবিশ্বাস। ব্যাটসম্যান যেখানে শুধু ব্যাট নয় আত্মবিশ্বাস আর ইচ্ছাশক্তিকে ভর করে প্রতিপক্ষর দিকে ধেয়ে যাবেন।
সেটাই করলেন মাহি। আমিই পারি, এই ঔদ্ধত্যটা ব্যাটের ভাষায় বুঝিয়ে দিলেন। বন্যেরা বনে সুন্দর, শিশুরা মাতৃক্রোড়ের মত বলতে হয় ধোনিকে ডেথ ওভারে বলা করাটা বাউন্ডারির বাইরে যাওয়ার মতই সুন্দর আর স্বাভাবিক। এই যে ইনিংসের শেষ ওভারে ফকনারের তৃতীয় বলটায় ছক্কা হাঁকালেন সেটায় বোলারের দোষ কী ছিল! ধোনি হেলিকপ্টার শট মেরে ওভার বাউন্ডারিতে পাঠানোর পর বোলার যেভাবে তাঁর অধিনায়কের দিকে তাকালেন সেটার মানে, 'তুমি ওকে বল করতে দিলে এটাই আমার অপরাধ।'
হ্যাঁ, এটাই ধোনি যুগ। যে যুগের সম্বল আত্মবিশ্বাস। ক্রিকেটের টেকনিক যেখানে থেমে যায়, হিসাব যেখানে থমকে থাকে, সম্ভব যেখানে মাথা চুলকোয়। সেখান থেকেই আসল কাজ করে আত্মবিশ্বাস। ধোনি যুগ বলে আসুক বিপদ,ভরসা রাখো নিজেতে, বাকিটা দেখা যাবে।

-------------
বল বাই বল আপডেট
শেষ ২৫ বলে ধোনি করলেন ৬০ রান। ধোনির আজকের রেকর্ড-
অধিনায়ক
হিসাবে ৫০০ রানের গণ্ডি ছুঁলেন। ধোনি তৃতীয় ভারতীয় হিসাবে এই কৃতিত্ব
দেখালেন। এর আগে এই রেকর্ড আজহার আর সৌরভ গাঙ্গুলির আছে।
অবিশ্বাস্য
বললেও কম বলা হবে। ধোনি বাজি, ধোনি ধামাকা, নাকি ধোনি ফেস্টিভ্যাল। কোনও
কথা দিয়েই ধোনির এই ইনিংসকে বর্ণনা করা যাবে না। ১২১ বলে ধোনি ১৩৯ অপরাজিত
রানের ইনিংস খেললেন। যে দলের স্কোরবোর্ড ছিল ৬ উইকেটে ১৫৪ রান। তারাই তুলল
৩০৩ রান। এক এবং একমাত্র কারণ মহেন্দ্র সিং ধোনি।
দুরন্ত শতরান
করলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। বিপদে থাকা দলকে নির্ভরতা দিল মাহির ব্যাট।
মোহালিতে একদিকে ওয়ানডে ক্রিকেটে নিজের নবম শতরান করলেন মাহি, অন্যদিকে
দলকে নিয়ে গেলেন ভদ্রস্থ জায়গায়
৪০ ওভারে ২০০ রানের গণ্ডি ছুঁল
ভারত। উইকেট হাতে নেই তাই শেষ দশ ওভারে সুবিধা নিতে অসুবিধা হবে ভারতের।
ধোনি অর্ধশতরানপূর্ণ করলেন এটা বড় ভরসার।
এ বার আউট রবীন্দ্র
জাদেজা (২)। জনসনের বলে আউট জাদেজা। তিন উইকেট তুলে নিলেন জনসন। রায়না,
যুবরাজের উইকেটও নেন এই জনসন। মোহালিতে মহাবিপদে মাহিরা। নামলেন অশ্বিন।
 
ফের
ধাক্কা খেল ভারত। ম্যাচের গতি নিজেদের হাতে নেওয়ার সুযোগ হাতছাড়া। আউট
বিরাট কোহলি। স্পিনার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের বলে কট বিহাইন্ড আউট কোহলি (৬৮)।
ধাক্কা
সামলে উঠছে ভারত। কোহলি অর্ধশতরান পূর্ণ কলেন। ধোনিও বেশ জাঁকিয়ে বসছেন।
জোড়া ধাক্কা। মিচেল জনসনের পরপর দু বলে আউট রায়না, যুবরাজ। জনসনের শর্টবলে
আউট রায়না (১৭), আর যুবরাজ ফিরে গেলেন প্রথম বলেই। ১৩ ওভার শেষে ভারতের
স্কোর ৪ উইকেটে ৭৬ রান।
প্রথম ১০ ওভারে ভারতের স্কোর ২ উইকেটে ৬০।
জয়পুর ম্যাচের হিরো রোহিত শর্মাও আউট হয়ে গেলেন ম্যাচের সপ্তম ওভারে।
শুরুতেই দুই ওপেনারকে হারিয়ে ভারত মহাবিপদে। অসি পেসাররা ম্যাচে জাঁকিয়ে
বসছেন। সাহায্য করছে মোহালির সেই চিরচারিত সিম সহায়ক পিচ।
ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারেই আউট শিখর ধাওয়ান (৮)।
ভারত, অস্ট্রেলিয়া দু`দলেই কোনও পরিবর্তন নেই। মোহালির মাঠ সম্পূর্ণ ভরেনি।
স্টেডিয়ামের বেশ কিছু অংশ ফাঁকা।
টসে জিতল অস্ট্রেলিয়া। প্রথমে ফিল্ডিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন অস্ট্রেলিয়ান
অধিনায়ক জর্জ বেইলি। পরে বল করলে শিশির ফ্যাক্টর ভোগাবে তাই এই সিদ্ধান্ত।
মোহালিতে এই সময় যেরকম শিশির পরে তাতে পরে বল করলে ভারতকে অসুবিধায় পড়তে
হবে তা বলাই বাহুল্য।

ওয়ানডে ক্রিকেটে এক বনাম দুই নম্বর দলের লড়াই বেশ জমে উঠেছে। আজ মোহালিতে
তৃতীয় ওয়ানডে চলছে। এই প্রতিবেদনে থাকল মোহালি থেকে সরাসরি ম্যাচের আপডেট



First Published: Saturday, October 19, 2013 - 21:43


comments powered by Disqus