রিপোর্টে দোষী মোহনবাগান, নির্বাসনের মুখে সবুজ মেরুন

শেষ পর্যন্ত কি আই লিগ থেকে নির্বাসিত হতে চলেছে মোহনবাগান! বৃহস্পতিবার কলকাতার ডার্বি কাণ্ডের রিপোর্ট ফেডারেশনের কাছে জমা পরার পর এমন কথাই খুব জোরালভাবে উঠতে চলেছে। অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অশোক কুমার গাঙ্গুলি রিপোর্টে দোষী সাব্যস্ত করা হয় মোহনবাগানকে। তার মানে দাঁড়াল খেলার মাঝপথে দল তুলে নেওয়ার অপরাধে নিয়ম মেনে মোহনবাগানকে আই লিগ থেকে নির্বাসিত করা হবে। তবে সেই শাস্তি ঠিক কী হবে তা নিয়ে জল্পনা চলছে।

Updated: Dec 27, 2012, 05:35 PM IST

শেষ পর্যন্ত কি আই লিগ থেকে নির্বাসিত হতে চলেছে মোহনবাগান! বৃহস্পতিবার কলকাতার ডার্বি কাণ্ডের রিপোর্ট ফেডারেশনের কাছে জমা পরার পর এমন কথাই খুব জোরালভাবে উঠতে চলেছে। ডার্বি কাণ্ডের রায় জমা পড়ল ফেডারেশনের কাছে। খামে বন্ধ করে তাঁর রিপোর্ট ফেডারেশনের কাছে জমা দিলেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অশোক কুমার গাঙ্গুলি। রিপোর্টে মোহনবাগানকে দোষি সাবস্ত্য করা হয়েছে বলে ফেডারেশন সূত্রের খবর। তার মানে দাঁড়াল খেলার মাঝপথে দল তুলে নেওয়ার অপরাধে নিয়ম মেনে মোহনবাগানকে আই লিগ থেকে নির্বাসিত করা হবে।
তবে সেই শাস্তি ঠিক কী হবে তা নিয়ে জল্পনা চলছে। অনেকের ধারনা কড়া শাস্তি হিসাবে দু বছর নির্বাসিত করা হতে পারে। আবার কারও মতে এক বছর নির্বাসন আর মোটা টাকার জরিমানা করা হতে পারে। তবে ওডাফা যে বড় শাস্তি পাবেন সেটা অনেকটাই পরিষ্কার। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানোর আগে চলতি মাসের ২৯ তারিখ আই লিগ কোর কমিটির বৈঠক ডেকেছে ফেডারেশন। বৈঠকের পরই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে ফেডারেশন।
 
মোহনবাগানের যুক্তি ছিল মাঠে নিরাপত্তার অভাববোধ করায় তারা দল তুলে নিতে বাধ্য হয়। কিন্তু ম্যাচ কমিশনারের রিপোর্ট পাওয়ার পর বাগানের সেই দাবি ধোপে টেকেনি। প্রসঙ্গত, ৯ ডিসেম্বর যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে আই লিগের ডার্বি ম্যাচে নিরাপত্তার অভাবের `অজুহাতে` খেলার মাঝপথে দল তুলে নেয় মোহনবাগান। ফলে খেলা পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়। গ্যালারি থেকে মোহনবাগানের ফুটবলার রহিম নবিকে ঢিল ছোঁড়া হয়। মাথা ফাটায় মাঠ ছাড়েন নবি। গ্যালারিতে ছড়িয়ে পড়ে উত্তেজনা।