মহারথীদের ব্যর্থতার দিনে ওয়াংখেড়ে উজ্জ্বল একা পুজারা

চেতাশ্বর পুজারার ব্যাটিং নৈবেদ্যর থেকে বঞ্চিত হলেন না ওয়াংখেড়ের দর্শকরা। ফের শতরান করলেন তিনি । টালমাটাল পরিস্থিতি থেকে কার্যত একার হাতে দলকে টেনে নিয়ে যাচ্ছেন ভারতীয় ক্রিকেটের এই নতুন তারকা। চার মেরে শতরানের দোরগোড়া ছুঁলেন তিনি। ভারতীয় ক্রিকেটেকে উপহার দিলেন ঝাঁ চকচকে একটা যথার্থ ক্রিকেটীয় ইনিংস।

Updated: Nov 23, 2012, 04:14 PM IST

চেতাশ্বর পুজারার ব্যাটিং নৈবেদ্যর থেকে বঞ্চিত হলেন না ওয়াংখেড়ের দর্শকরা। ফের শতরান করলেন তিনি । টালমাটাল পরিস্থিতি থেকে কার্যত একার হাতে দলকে টেনে নিয়ে যাচ্ছেন ভারতীয় ক্রিকেটের এই নতুন তারকা। চার মেরে শতরানের দোরগোড়া ছুঁলেন তিনি। ভারতীয় ক্রিকেটেকে উপহার দিলেন ঝাঁ চকচকে একটা যথার্থ ক্রিকেটীয় ইনিংস।
প্রথম টেস্টের দ্বিশতরান আর তারপর এই টেস্টের দলকে বাঁচানো শতরানের পর পুজারার মধ্যে  মিস্টার ডিপেনডেবলের ছায়া খুঁজে পাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ মহল। পুজারার এই স্বপ্নের শতরানের প্রতিটি রানের মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে তাঁর অসীম তাঁর ধৈর্য, সাধনা আর দক্ষতা। শুরু থেকেই মন্টি পানেসরের বোলিং ঝড়ে ভারতীয় ব্যাটিং বিপর্যস্ত। একের পর এক মহারথীরা যখন `শুধু যাওয়া আসা`-র ফর্মুলা মেনে প্যাভিলিয়নমুখী তখন দলকে বাঁচাতে তিন নম্বর স্থানে আসা রক্ষণশীল পুজারা হাল ধরলেন। পাহাড় প্রমাণ চাপের মধ্যেও কোন রকম তাড়াহুড়ো না করে সারাক্ষণ অবিচল, অনড় থেকেছেন পুজারা। লক্ষ্যে অবিচল পুজারার তাই কোনও অসুবিধাই হল না নিজের কেরিয়ারের তৃতীয় শতরানটি পুরণ করতে। অশ্বিনও ভালো সাথ দিয়ে চলেছেন। তিনি ৪৮ রানে অপরাজিত রয়েছেন।
যদিও নিউটনের তৃতীয় সুত্রের মতো ওয়াংখেড়ের প্রসিদ্ধ স্পিনিং পিচ বুমেরাং হয়ে ফিরচ্ছে ধোনিবাহিনীর কাছেই। আর এই কাজটা এখনও পর্যন্ত একাই সারচ্ছেন ভারতীয় বংশোদ্ভুত ব্রিটিশ অর্থোডক্স স্পিনার মন্টি পানেসর। ম্যাচের সকালে গৌতম গম্ভীর মাত্র ৪ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। ম্যাচের প্রথম ওভারে অ্যান্ডারসনের বলে এল বি ডব্লিউ হন। কিন্তু সেওয়াগ ছিলেন পুরানো ছন্দে। তাঁর আজ তেমন কোনও তাড়াহুড়ো ছিল না। একশতম টেস্টে একটা নজিরবিহীন উপহার হয়ত দিতে চেয়েছিলেন ভারতবাসীকে। কিন্তু মন্টির লোভনীয় হাফভলি বলে `নজফগড়ের নবাব` ফ্লিক করতে গিয়ে বোল্ড হলেন। তখন তাঁর রান চারটে বাউন্ডারির বিনিময়ে ৩০। ফিরতে হল মাস্টার ব্লাস্টার সচিনকেও। সেই মন্টি পানেসর! এক অবর্ণনীয় বলে লিটল মাস্টার একটু হলেও থমকালেন। ক্রিকেটের ঈশ্বরকে আউট করতে গেলে ঐশ্বরিক ডেলিভারি দরকার। সেটাই ঘটল ধোনির পচ্ছন্দসই ওয়াংখেরের পিচে। মাত্র ৮ রানে তিনি ফিরলেন। চেতাশ্বর পুজারা এখনও মাটি আঁকড়ে লড়ে যাচ্ছেন। তিনি অর্ধশতরান করে ফের প্রমাণ করে দিলেন ব্যাটিং অর্ডারের গুরুত্বপূর্ণ তৃতীয় স্থানটি শুধুমাত্র তাঁর দখলে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৯ রানে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নমুখী হয়েছেন বিরাট কোহলি। যুবরাজ কোনও রান না করে সোয়ানের বলে আউট হলেন। অধিনায়ক ধোনি ২৯ রান করে পানেসরের বলেই ধরা দেন নিজেকে।
এর আগে স্পিনের স্বর্গক্ষেত্র ওয়াংখেড়ে টস জিতে ব্যাটিং-এর সিদ্ধান্ত নেন ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। মাহীর বোলিং স্কোয়াডে স্পিনিং ট্র্যাকের সুবিধা নেওয়ার জন্য হাজির ৩ স্পিনার। ভারতের প্রথম ইনিংসের পর ওয়াংখেড়ের ভাঙা পিচে এই ৩ জনের বোলিং ম্যাজিকের উপর কিন্তু ভারতের জয় বেশ কিছুটা নির্ভরশীল।