রবিবার ৭ পুরসভায় ভোট, অস্তিত্ব রক্ষার লড়াইয়ে বিরোধীরা

Last Updated: Saturday, August 12, 2017 - 19:19
রবিবার ৭ পুরসভায় ভোট, অস্তিত্ব রক্ষার লড়াইয়ে বিরোধীরা

ওয়েব ডেস্ক: রবিবার সাত পুরসভায় ভোট। দুর্গাপুর, পাঁশকুড়া, হলদিয়া, নলহাটি, ধূপগুড়ি, বুনিয়াদপুর ও কুপার্স ক্যাম্প। পাশাপাশি চাঁপদানি পুরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ড ও ঝাড়গ্রাম পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডে উপনির্বাচন। পুর নির্বাচন হলেও পঞ্চায়েত ভোটের আগে সেমিফাইনাল হিসেবেই ধরছে শাসক ও বিরোধীরা। রাজ্যের সাম্প্রতিক প্রেক্ষাপটে বিজেপি কেমন ফল করবে? বামেরা কি ঘুরে দাঁড়াতে পারবে? তৃণমূলই বা নিজেদের শক্তি কতটা বাড়াতে পারবে? বাংলার রাজনৈতিক ছবিটা স্পষ্ট করে দেবে সাত পুরসভার ভোটের ফল।

এর মধ্যে সবচেয়ে বড় পুরসভা দুর্গাপুর। ৪৩ আসনের দুর্গাপুর পুরসভায় তৃণমূলের দখলে ৩১টি ওয়ার্ড। বামেদের ৯ জন কাউন্সিলর। বিজেপি ও কংগ্রেসের দখলে একটি করে ওয়ার্ড রয়েছে। এর মধ্যে একটি ওয়ার্ডে ইতিমধ্যেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে গিয়েছে তৃণমূল। বিরোধীরা শাসক দলের বিরুদ্ধে ভয় দেখানোর অভি‌যোগ করেছে। তা অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। সেক্ষেত্রে ৪২টি ওয়ার্ডেই ভোট হবে। এই পুরসভায় জোট বেঁধে লড়াই করছে বাম-কংগ্রেস। বামেরা ৩৫টি ওয়ার্ডে প্রার্থী দিয়েছে। কংগ্রেস ৯টি। তার মধ্যে আবার একজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র তুলে নিয়েছেন। বিজেপি ৪১টি ওয়ার্ডে প্রার্থী দিয়েছে।

হলদিয়া এককালে বামদূর্গ ছিল। সেখানে এখন রাজনৈতিক সমীকরণ বদলেছে। ২৬টি আসনের পুরসভায় বর্তমানে তৃণমূলের ও বামেদের দখলে ‌যথাক্রমে ২১ ও ৪টি ওয়ার্ড রয়েছে। গতবার বামেরা এই পুরসভায় জিতেছিল। তবে বাম কাউন্সিলররা দলবদল করায় তৃণমূল পুরসভাটি দখল করে। একসময়ের প্রভাবশালী সিপিএম নেতা লক্ষ্মণ শেঠ এখন পদ্মশিবিরে। বিজেপির শক্তিও আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। রাজনৈতিক মহলের মতে, হলদিয়ায় বামেদের শক্তিক্ষয় হয়েছে। তাই তৃণমূলের সঙ্গে লড়াই বিজেপির।

পাঁশকুড়ায় ওয়ার্ডের সংখ্যা ১৭। গতবার তৃণমূলের দখলে ছিল ১২ ও বামেদের ৫টি ওয়ার্ড। এই পুরসভায় ইতিমধ্যেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দুটি ওয়ার্ডে জিতে গিয়েছে তৃণমূল।

নলহাটি পুরসভায় ওয়ার্ড সংখ্যা ১৫। গতবার তৃণমূলের দখলে ছিল ১০টি ওয়ার্ড। কংগ্রেসের ৩টি। বাম ও বিজেপির দখলে একটি করে ওয়ার্ড। হলদিয়ার মতো বীরভূমের নলহাটিতেও বিজেপির পারফরম্যান্সের দিকে নজর থাকবে রাজনৈতিক মহলের।

কুপার্স ক্যাম্পে মোট ওয়ার্ড সংখ্যা ১২। সবকটি ওয়ার্ড তৃণমূলের দখলে। পুরসভাটি ছিল কংগ্রেসের দখলে। এখানেও কাউন্সিলররা দলবদল করে তৃণমূলে ‌যোগ দেন।

ধূপগুড়ি পুরসভায় ওয়ার্ড সংখ্যা ১৬। গতবার তৃণমূল পেয়েছিল ১৩টি ওয়ার্ড। বামেদের দখলে ২টি ও বিজেপির ১টি ওয়ার্ড।   

বুনিয়াদপুর পুরসভাটি ২০১৪ সালে গঠিত হয়েছিল। এবারই সেখানে প্রথম পুর নির্বাচন হচ্ছে। ওয়ার্ড সংখ্যা ১৪।

আরও পড়ুন,মুজফ্ফর আহমেদের জন্মজয়ন্তীতে বাম নিশানায় তৃণমূল ও বিজেপি

 


First Published: Saturday, August 12, 2017 - 19:19
comments powered by Disqus