ঋতুপর্ণর সঙ্গে কাজ করা হল না: অরবিন্দ স্বামী

বাঙালি তাঁকে চিনেছিল রোজা ছবিতে। তাঁকে দেখে মুগ্ধ হয়েছিল বম্বে ছবিতে। ১৯তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সবে তাঁকে কাছে পেল বাঙালি। এক সপ্তাহ কলকাতায় কাটিয়ে অরবিন্দ স্বামী জানালেন, ঋতুপর্ণর ছবিতে

ঋতুপর্ণ এবার চরিত্র

ঋতুপর্ণ ঘোষকে নিয়ে ছবি করতে চলেছেন পঙ্খ খ্যাত পরিচালক সুদীপ্ত চট্টোপাধ্যায়। ছবির নাম ঘুম নেই। মুখ্য চরিত্রে থাকতে পারেন শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় বা হর্ষ ছায়া।

সৃজিতের ছবিতে রিয়া

ঋতুপর্ণ ঘোষের হাত ধরে আগেই বাংলা ছবিতে পা রেখেছেন রিয়া সেন। এবার সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের আগামী ছবি জাতিস্মরে দেখা যাবে রিয়াকে। ছবিতে রাহুলের বিপরীতে দেখা যাবে তাঁকে। রিয়া-রাহুল ছাড়াও ছবিতে রয়েছেন

সংরক্ষিত থাকবেন জীবনের ঋতু

ঋতুপর্ণ ঘোষের মৃত্যুর পর কেটে গিয়েছে দু`সপ্তাহ। এখনও তাঁর স্মৃতিতে ভারাক্রান্ত শিল্পীমহল। ছবির পর্দার বাইরেও ঋতুর জীবন ছিল অপার বিস্ময়ে ভরা। তাঁর স্মৃতিকে চিরস্মরনীয় করে রাখতে সরকারের কাছে ঋতুপর্ণর

ছোট পর্দায় আসছেন ঋতুর রাঙা পিসিমা

এক দশক আগে আগাথা ক্রিস্টির মিস মার্পলকে রাঙা পিসিমার(শুভ মহরত) রূপ দিয়েছিলেন ঋতুপর্ণ। মৃত্যুর আগে সেই রাঙা পিসিমাকেই ছোট পর্দায় আনার পরিকল্পনা ছিল তাঁর। প্রয়াত পরিচালকের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে খুব

সুজয় নন, ঋতুর টিম শেষ করবে সত্যান্বেষী

মৃত্যুর মাত্র তিন দিন আগে সত্যান্বেষীর শুটিং শেষ করেছিলেন ঋতুপর্ণ। ভাবা হচ্ছিল ঋতুর ব্যোমকেশ পরিচালক সুজয় ঘোষই হয়ত কাঁধে তুলে নেবেন ছবি শেষ করার দায়িত্ব। শেষপর্যন্ত ঋতুর টিমই কাঁধে তুলে নিল সেই

বিজ্ঞাপনেও নতুন ধারার জন্ম দিয়েছিলেন ঋতুপর্ণ

ঋতুপর্ণ ঘোষের শুরুটা অনেকটা সত্যজিত রায়ের মতোই। বিজ্ঞাপন জগত। এখনও সমানভাবে জনপ্রিয় তাঁর তৈরি বিজ্ঞাপনের প্রতিটি ক্যাচলাইন। এর জন্য পেয়েছেন অসংখ্য পুরস্কার। সমানভাবে সাবলীল ছিলেন লেখালেখিতেও। নিজের

নক্ষত্র পতন, চলে গেলেন ঋতুপর্ণ ঘোষ

বড় অকালে ঝড়ে গেল বাংলা তথা ভারতীয় সিনেমার উজ্জ্বল এক তারা। সবাইকে কাঁদিয়ে আজ সকাল সাড়ে সাতটা নাগাদ জীবনাবসন হল প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষের। মাত্র ৪৯ বছর বয়সে শেষ হয়ে গেল সিনেমার যথার্থ

আবহমান ঋতুপর্ণ

জন্ম- ৩১ অগাস্ট, ১৯৬৩ পড়াশোনা- সাউথ পয়েন্ট হাই স্কুল, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়কেরিয়ার- বিজ্ঞাপন জগতে প্রথম কর্মজীবন শুরুফিল্মোগ্রাফিপরিচালক ঋতুপর্ণ ১৯৯৪- হীরের আংটি

ঋতুপর্ণ ও তাঁর নারীরা

চলে গেলেন ঋতুপর্ণ ঘোষ। বড় অকালে। দিয়ে গেলেন একরাশ শূন্যতা। বাংলা তথা ভারতীয় চলচ্চিত্র হারাল তার দোসর।

ঋতুপর্ণ ঘোষের অকালপ্রয়াণ- টাইমলাইন

চলে গেলেন প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষ। আজ সকালে প্রিন্স আনয়ার শাহের বাসভবনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি মৃত্যুর সময়ে তাঁর বয়স হয়েছিল মাত্র ৪৯ বছর গত কয়েকদিন ধরে প্যানক্রিয়াটাইটিসে

ঋতুপর্ণর শেষ টুইট

টুইটারে বরাবরই তাঁক বেশ কিছু মজার, দারুণ টুইট করতে দেখা যেত। টলিউডের অনেকেই বলতেন, ঋতুদার টুইটগুলো দেখেই বোঝা যেত কতটা ভাল মানুষ আর স্বচ্ছধারণার মানুষ তিনি। সেই ঋতুপর্ণ ঘোষের শেষ টুইটে নিয়েই এই

চলে গেলেন অভিনেতা ঋতুপর্ণ, রেখে গেলেন কিছু মাইলফলক

মাঝেমধ্যেই বোঝার সুবিধার জন্য  বিভিন্ন চরিত্র অভিনয় করে দেখিয়ে দিতেন কলাকুশলীদের। তারপর একসময় নিজের গায়েই চাপিয়ে নিলেন অভিনেতার পোশাক। পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষের আড়াল থেকে বেরিয়ে এলেন অভিনেতা ঋতুপর্ণ ঘোষ

ঋতুপর্ণ ঘোষের অকালপ্রয়াণে প্রতিক্রিয়ায় বিশিষ্টরা

চিত্রপরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষের অকালপ্রয়াণে শোকস্তব্ধ গোটা রাজ্য। টলিউড থেকে বলিউড, রাজনীতিবিদ থেকে খেলার ময়দানের বিশিষ্টরা সবাই আজ শোকের রাজ্যে। ঋতুপর্ণ ঘোষকে নিয়ে রাজ্যের বিশিষ্টজনেরা কী প্রতিক্রিয়া

আপনার শোকবার্তা পাঠান আমাদের ওয়েবসাইটে

ঋতুপর্ণ ঘোষের মৃত্যুতে শোকাহত চলচ্চিত্র জগত। মর্মাহত আমরাও। আপনাদের শোকবার্তা পাঠান। আপনি কেমন ভাবে দেখতেন ঋতুপর্ণ ঘোষকে, ভাগ করে নিন আমাদের সঙ্গে। কমেন্ট করুন আমাদের ওয়েবসাইটে।