তন্ময় ভট্টাচার্যের কংগ্রেসের মিছিলে পা মেলানোর জবাব চাইবে তাঁর দল

তন্ময় ভট্টাচার্যের কংগ্রেসের মিছিলে পা মেলানোর জবাব চাইবে তাঁর দল

কংগ্রেসের মিছিলে গেলেন কেন? কেন মানা হল না পরিষদীয় দলের সিদ্ধান্ত? দমদম উত্তরের বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্যকে জিজ্ঞেস করবে সিপিএম। সোমবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলা কমিটির বৈঠকে উঠবে এই প্রসঙ্গ।

কারাট গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সরব থাকার পর ফের জোটের পক্ষে সরব গৌতম দেব কারাট গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সরব থাকার পর ফের জোটের পক্ষে সরব গৌতম দেব

২৭ ঘণ্টা আলোচনা করেও ফল না মেলায় এবার পুরো সিপিএম পলিট ব্যুরোই চলে আসছে কলকাতায়। ১০ই জুলাই রাজ্য কমিটির বৈঠকে হাজির থেকে খোঁজার চেষ্টা করবেন জোটের প্রাসঙ্গিকতা। তবে কট্টর জোটপন্থী নেতা গৌতম দেব ফের জানালেন জোটই পথ।

কংগ্রেস এখনই হাত তুলতে রাজি নয়, জোট থেকে দূরত্বের ইঙ্গিত সিপিএমের কংগ্রেস এখনই হাত তুলতে রাজি নয়, জোট থেকে দূরত্বের ইঙ্গিত সিপিএমের

বিধানসভায় শাসক বিরোধী আক্রমণে জোট বেধে একসুরেই লড়াই চালাচ্ছেন মান্নান-সুজনরা। ভোটের পরেও জোটের ছবিতে কোনও চিড় ধরেনি। এটাই তো ছিল চেনা ছবি।

বাংলায় হাত-হাতুড়ির জোটের ভবিষ্যতের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হওয়ার আগেই ফের বিস্ফোরক গৌতম দেব বাংলায় হাত-হাতুড়ির জোটের ভবিষ্যতের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হওয়ার আগেই ফের বিস্ফোরক গৌতম দেব

আজ সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকের দ্বিতীয় দিন। কাল তীব্র বাদানুবাদের পর আজও কেরল-লবি বনাম বঙ্গবিগ্রেডের সওয়াল-পাল্টা সওয়ালে সরগরম হতে পারে বৈঠক। বাংলায় হাত হাতুড়ির জোটের ভবিষ্যত নিয়ে আজই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারে দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও। তবে তার আগেই ফের বিস্ফোরক গৌতম দেব। নিশানায় প্রকাশ কারাট। কংগ্রেসের সঙ্গে জোট নিয়ে আলোচনা পর্বের সময়ে কেন আপত্তি জানালেন না কারাট? ভোটের আগে চুপ থেকে এখন কেন সরব?  সাক্ষাত্কারের সিডি পেশ করে প্রশ্ন গৌতম দেবের।

কংগ্রেসের সঙ্গে রাজ্যে জোটের প্রশ্নে জোরালো সওয়াল সূর্যকান্ত মিশ্রের কংগ্রেসের সঙ্গে রাজ্যে জোটের প্রশ্নে জোরালো সওয়াল সূর্যকান্ত মিশ্রের

সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকের শুরুতেই জোট নিয়ে কেরল লবির তীব্র আক্রমণের মুখে পড়তে হল বাংলা ব্রিগেডকে। বৈঠকের শুরুতেই বিতর্কের ঝড় ওঠে। অংশ নেন পলিটব্যুরো সদস্যরাও। কংগ্রেসের সঙ্গে রাজ্যে জোটের প্রশ্নে জোরালো সওয়াল করেন সূর্যকান্ত মিশ্র। তাঁর যুক্তি, দেশের অন্য কোথাও কমিউনিস্টরা ২ কোটি ১৫ লক্ষ ভোট পায়নি। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতেই জোট করতে হয়েছে দাবি সূর্যকান্ত মিশ্রের।

নারদ কাণ্ডে চক্রান্ত ছিল বলে মনে করছেন মুখ্যমন্ত্রী নারদ কাণ্ডে চক্রান্ত ছিল বলে মনে করছেন মুখ্যমন্ত্রী

নারদ তদন্তে নগরপাল। ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর। যদিও, ওই ঘটনায় চক্রান্ত ছিল বলেই তিনি মনে করেন। রাজ্যের তদন্তে ভরসা নেই বিরোধীদেরও। কেউ বলছেন প্রহসন। কারও দাবি আই ওয়াশ।

পুলিসের সামনেই কংগ্রেস নেতার বাড়িতে ভাঙচুর পুলিসের সামনেই কংগ্রেস নেতার বাড়িতে ভাঙচুর

তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে ইলেকট্রিকের তার লাগিয়ে বিদ্যুত্‍স্পৃষ্ট করার চক্রান্তকে ঘিরে উত্তেজনা ছড়াল রায়গঞ্জের বিরঘই গ্রামে। ঘটনায় অভিযোগের তির স্থানীয় কংগ্রেস নেতা তথা পঞ্চায়েত সদস্য অতুল বর্মনের দিকে। 

সন্ত্রাস ও পরিবর্তিত পরিস্থিতি শব্দদুটিকেই হাতিয়ার করে কাউন্টার অ্যাটাকের প্রস্তুতি সূর্যকান্তের সন্ত্রাস ও পরিবর্তিত পরিস্থিতি শব্দদুটিকেই হাতিয়ার করে কাউন্টার অ্যাটাকের প্রস্তুতি সূর্যকান্তের

''কেন্দ্রীয় কমিটি যদি মনে করে তাদের সিদ্ধান্ত অমান্য করে আমরা জোট গড়েছি, তার সব দায় এবং দায়িত্ব আমার। যে কোনও শাস্তি আমি মাথা পেতে নেব।'' প্রকাশ কারাট, সীতারাম ইয়েচুরির উপস্থিতিতে এটাই ছিল সূর্যকান্ত মিশ্রের সমাপ্তি ভাষণ। যেখানে শেষ করেছিলেন সেখান থেকেই শুরু করলেন সাংবাদিক সম্মেলনে।

'জোট গড়েই আগামীদিন চলতে হবে', বার্তা অধীর চৌধুরীর 'জোট গড়েই আগামীদিন চলতে হবে', বার্তা অধীর চৌধুরীর

জোট গড়েই আগামীদিন চলতে হবে। প্রথমে সাংবাদিক সম্মেলনে, পরে বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠকে এই বার্তাই আরও একবার দিলেন অধীর চৌধুরী।  বিধানসভার ভিতরে বামেদের সঙ্গে সমন্বয় করেই এগোতে হবে। বিরোধী দলনেতাকে এই দায়িত্বই দিয়ে গেলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি।

কংগ্রেসের হাত ছাড়তে এখনই রাজি নয় রাজ্য সিপিএম কংগ্রেসের হাত ছাড়তে এখনই রাজি নয় রাজ্য সিপিএম

জোট বিতর্ককে ক্লোজড চ্যাপ্টার করতে চাইছে সিপিএম। বরং কংগ্রেস নিয়ে ঐক্যবব্ধ লড়াইকেই কার্যত গ্রিন সিগন্যাল দেওয়া হল। বঙ্গব্রিগেডকে আশ্বস্ত করে গেলেন সীতারাম ইয়েচুরি।

 জোট না হলে আরও খারাপ ফল হত, বললেন সূর্যকান্ত মিশ্র জোট না হলে আরও খারাপ ফল হত, বললেন সূর্যকান্ত মিশ্র

নির্বাচনী বিপর্যয়ের জন্য সাংগঠনিক দুর্বলতাই দায়ী। এজন্য জোটকে দোষারোপ করা ঠিক হবে না। জোট না হলে আরও খারাপ ফল হত। রাজ্য কমিটির বৈঠকে এমনই দাবি করলেন সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। বিধানসভা নির্বাচনে বিপর্যয় নিয়ে আজ রিপোর্ট পেশ করেছেন তিনি। তিনি বলেন, জোট না হলে সব বুথে এজেন্ট দেওয়া সম্ভব হত না। জোটের হাওয়ায় সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল। রাজ্যের দু কোটি মানুষ জোটকে ভোট দিয়েছেন। এখন তাঁদের হাত ছাড়তে বলা দুর্ভাগ্যজনক হবে।

কংগ্রেসে বড় ভাঙন, ত্রিপুরায় তৃণমূলই হতে চলেছে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসে বড় ভাঙন, ত্রিপুরায় তৃণমূলই হতে চলেছে প্রধান বিরোধী দল

দল ছাড়লেন ত্রিপুরার ৬ জন কংগ্রেস বিধায়ক। এর আগেই পদত্যাগ করেছেন ত্রিপুরা বিধানসভার বিরোধী দলনেতা, কংগ্রেসের সুদীপ রায় বর্মন। তিনি ইতিমধ্যেই তৃণমূলে যোগ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন।

ঘর ছাড়াদের ঘরে ফেরাতে এবার পথে নামছে বাম এবং কংগ্রেস ঘর ছাড়াদের ঘরে ফেরাতে এবার পথে নামছে বাম এবং কংগ্রেস

ঘর ছাড়াদের ঘরে ফেরাতে এবার পথে নামছে বাম এবং কংগ্রেস। প্রশাসনের কাছে প্রথম ডেপুটেশন। না মানলে জেলাশাসকের দফতরের সামনে লাগাতার ধরনার হুমকি অধীর চৌধুরীর। দিল্লিতে সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করে একই কথা জানিয়ে এলেন বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান। ভোটের পর থেকে সন্ত্রাস চলছে।বাম এবং কংগ্রেসের তালিকা অনুযায়ী প্রায় সাত থেকে আট হাজার কর্মী সমর্থক এখনও ঘর ছাড়া। ঘরে থাকতে পারছেন না তাঁদের পরিবারের লোকেরাও। সব চেয়ে খারাপ অবস্থা উত্তর চব্বিশ পরগনা এবং হাওড়ায়। অভিযোগ, উনিশে মের পর থেকে শুধু হাওড়ার উদয়নারায়ণপুরেই দেড় হাজার মানুষ ঘরে ফিরতে পারেননি।

তৃণমূলের বিজয় মিছিল দেখতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ কিশোর তৃণমূলের বিজয় মিছিল দেখতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ কিশোর

তৃণমূলের বিজয় মিছিল দেখতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হল কিশোর। উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরের ঘটনা। আহতকে নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক টানাটানি।

মালদহে প্রকাশ্যে মদ্যপানে বাধা দেওয়ায় আক্রান্ত অবসরপ্রাপ্ত সেনাকর্মী মালদহে প্রকাশ্যে মদ্যপানে বাধা দেওয়ায় আক্রান্ত অবসরপ্রাপ্ত সেনাকর্মী

ফের প্রতিবাদী আক্রান্ত। এবার মালদহে। ইংরেজবাজারের অমৃতি গ্রামে মদ্যপানের প্রতিবাদ করে আক্রান্ত অবসরপ্রাপ্ত সেনাকর্মী। ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাঁকে কোপায় দুষ্কৃতীরা। পাড়া প্রতিবেশীরা জড়ো হতেই গুলি ছুঁড়তে ছুঁড়তে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি। তুঙ্গে উঠেছে রাজনৈতিক তরজা।

পশ্চিমবঙ্গে জোটের বিরোধিতায় ত্রিপুরা কংগ্রেসে ভাঙন পশ্চিমবঙ্গে জোটের বিরোধিতায় ত্রিপুরা কংগ্রেসে ভাঙন

এ রাজ্যের পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন, কেরল কিংবা ত্রিপুরায় গল্পটা একেবারেই অন্যরকম। পশ্চিমবঙ্গে জোটের বিরোধিতায় ত্রিপুরা কংগ্রেসে ভাঙন। কংগ্রেস ছাড়লেন ত্রিপুরা বিধানসভার প্রাক্তন বিরোধী দলনেতা নেতা সুদীপ রায় বর্মণ। তিনি বিক্ষুব্ধ হিসেবেই পরিচিত। এ রাজ্যে দুই রাজনৈতিক দলের জোট নিয়ে জল্পনা হয়েছে অনেক। কিন্তু নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর দেখা গিয়েছে, সেই জোটের কোনও প্রভাব মানুষের মধ্যে সেভাবে পড়েনি, অন্তত আসন সংখ্যার বিচারে। তাই এবার জোটের বিরোধিতা করে তৃণমূলে যোগ দিতে চলেছেন তিনি। রবিবার কলকাতায় তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে চূড়ান্ত বৈঠক করেন তিনি।