কোচবিহারের এ বি এন শীল কলেজে বহিরাগতদের রোষের মুখে পড়লেন সাংবাদিকেরা!

কোচবিহারের এ বি এন শীল কলেজে বহিরাগতদের রোষের মুখে পড়লেন সাংবাদিকেরা!

কলেজ রাজনীতিতে বহিরাগতদের প্রবেশ বরদাস্ত করা হবে না। শিক্ষামন্ত্রী এই ঘোষণার এক ঘণ্টার মধ্যেই কোচবিহারের এ বি এন শীল কলেজে বহিরাগতদের রোষের মুখে পড়লেন সাংবাদিকেরা। আজ দলের কর্মিসভায় যোগ দিতে কোচবিহার গিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেখানে কলেজে অশান্তি প্রসঙ্গে বহিরাগতদের ভূমিকা নিয়ে তাঁকে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকেরা। উত্তরে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, কলেজে বহিরাগতদের প্রবেশ বরদাস্ত করা হবে না। শিক্ষামন্ত্রীর মন্তব্যের এক ঘণ্টা পরেই সাংবাদিকেরা লক্ষ্য করেন এবিএন শীল কলেজে অবাধে ঢুকে পড়ছেন বহিরাগতরা। সেই ছবি তুলতে গেলে বহিরাগতদের রোষের মুখে পড়তে হয় চব্বিশ ঘণ্টার প্রতিনিধিকে। গালিগালাজ করার পাশাপাশি তাঁকে ছবি তুলতেও বাধা দেওয়া হয়। এমনকি তোলা ছবির ফুটেজ মুছে ফেলার জন্যও চাপ দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

কোচবিহারের জেনকিন্স স্কুলের এক ছাত্রের মুখ্যমন্ত্রীর থেকে সাইকেল নিতে অস্বীকার! কোচবিহারের জেনকিন্স স্কুলের এক ছাত্রের মুখ্যমন্ত্রীর থেকে সাইকেল নিতে অস্বীকার!

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী গীতশ্রী সরকার, হোক কলরবের সময় প্রতিবাদ জানিয়ে  সমাবর্তন অনুষ্ঠানে মানপত্র নিতে অস্বীকার করেছিলেন । এবার কোচবিহারের জেনকিন্স স্কুলের এক ছাত্র। মুখ্যমন্ত্রীর সবুজ সাথী প্রকল্পের সাইকেল নিতে অস্বীকার করেছেন।জেনকিন্স স্কুলের ক্লাস টুয়েলভের  ছাত্র নিরুপম দাস, সাইকেল না নিয়ে জানিয়েছেন, চা-বাগানে মৃত্যু মিছিল ও সিতাই-এ ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদ জানাতেই তাঁর এই পদক্ষেপ। কোচবিহারে জেনকিন্স স্কুলে বৃহস্পতিবারেই শুরু হয় সবুজ সাথীর প্রকল্পের সাইকেল দেওয়া। এরমধ্যে নিরুপম দাসের এই প্রতিবাদ এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।বিষয়টাকে কেউ নিয়েছেন ভালোভাবে। কেউ আবার বেজায় চটেছেন এমন করতে দেখে।