গোকুল পিঠে

পুলি পিঠে আর পাটিসাপটা এখনও পৌষপার্বণে বাঙালি বাড়ির রান্নাঘর আলো করে বছর বছর আসে। তবে ব্যস্ত জীবনের চাপে হারিয়ে যেতে বসেছে গোকুল পিঠের মত অমূল্য কিছু রত্ন। সেই হারিয়ে যাওয়া গোকুল পিঠেকে আবার নতুন করে খুঁজে এনে আপনাদের কাছে নিয়ে এলাম।

ধুপি পিঠে

ধুপি পিঠে মূলত বাঙাল দেশের পদ। পৌষ মাসের হাড়কাঁপানো ঠান্ডায় গুড়, নারকেল, সন্দেশের আদরে ভাপানো গরম গরম ধুপি পিঠে সারা জগতের বিস্ময়। কামড় দিলেই মিলবে নারকেল, গুড়ের মোহময়ী প্রেমের আভাস। তবে যদি পিঠে অল্প ভেঙে নিয়ে গুড় ঢেলে খান তাহলে ভাপা গুড় আর টাটকা গুড়ের মিলমিশে ধুপি পিঠে জিতে নেবেই পিঠে পার্বণের সেরার শিরোপা।

রসবড়া

রসবড়া আবার ঠিক সরাসরি পিঠে পরিবারের সদস্য নয়। তবে এমন এক প্রতিবেশী যে বহুদিন পাশাপাশি থাকতে থাকতে একে অপরের অবিচ্ছেদ্য সঙ্গী হয়ে উঠেছে। পৌষের শীত মেখে বাকি পিঠেদের সঙ্গে সেও হাজির বাঙালির পাতে। কিন্তু চালের গুঁড়োর সঙ্গে বিউলির ডালের একটা ফিউসন নিয়ে সে কিন্তু সযত্নে নিজের স্বাতন্ত্র বজায় রেখেছে।