বাম আমলে অধিগৃহীত ৫০ একর জমি ফেরত দিক রাজ্য, নির্দেশ হাইকোর্টের

বাম আমলে অধিগৃহীত ৫০ একর জমি ফেরত দিক রাজ্য, নির্দেশ হাইকোর্টের

বারুইপুরের ৫০ একর জমি মালিককে ফিরিয়ে দিতে হবে। আজ রাজ্য সরকারকে এমনই নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের। ২০০৬-এ জেলা সদর গড়ার জন্য বারুইপুরের ৫০০ একর জমি অধিগ্রহণ করে তত্‍কালীন বাম সরকার। কিন্তু, সেখানে কোনও কাজ না হওয়ায় হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয় মালিকপক্ষ।

আর্সেনালের অন্যতম মালিক কিনলেন প্রায় একটা লস অ্যাঞ্জেলস! আর্সেনালের অন্যতম মালিক কিনলেন প্রায় একটা লস অ্যাঞ্জেলস!

স্ট্যান কোরিয়েঙ্কের নাম শুনেছেন নিশ্চয়ই? তিনি ইংল্যান্ডের আর্সেনাল ফুটবল ক্লাবের সবথেকে বেশি শেয়ারের মালিক। ভদ্রলোক তো কোটিপতি শুধু নন, ধনকুবের একেবারে। আর তাঁর স্ত্রী অ্যান ওয়ালটনও কম যান না। তাঁর বাবা ছিলেন ওয়ালমার্টের অংশীদার। তা এমন দম্পতির টাকার অভাব থাকার কথা নয়। শখও দুজনের বড্ড বেশি।

কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের সঙ্গে জমি নিয়ে ফের বিবাদে রাজ্য সরকার কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের সঙ্গে জমি নিয়ে ফের বিবাদে রাজ্য সরকার

কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের সঙ্গে জমি নিয়ে ফের বিবাদে রাজ্য সরকার। অভিযোগ, পর্যটনের প্রসারে চালু হওয়া বিলাসবহুল ক্রুজের বার্দিং বা নোঙর করার জন্য গঙ্গাবক্ষে জমি দিতে পারছে না বন্দর কর্তৃপক্ষ। বার্দিংয়ের জায়গা না পেয়ে গঙ্গাতেই ভাসমান অবস্থায় রাখতে হচ্ছে ক্রুজগুলিকে। রাজ্যে পর্যটনের প্রসারে বেশ কয়েকটি বিলাসবহুল ক্রুজ চালু হয়েছে। কিন্তু ক্রুজগুলির বার্দিং অর্থাত নোঙর করার মত পরিকাঠামো এখনও সেভাবে তৈরি হয়নি। এবিষয়ে ক্রুজ সংস্থাগুলি বারবার রাজ্য সরকারকে জায়গা দিতে চাপ দিচ্ছে।

 এই ৭ টি বাস্তু পরামর্শ মেনে চলুন, ভালো হবে আপনার এই ৭ টি বাস্তু পরামর্শ মেনে চলুন, ভালো হবে আপনার

বাস্তু বিষয়ক পরামর্শ দেওয়া হল। এগুলো মেনে চললে আপনার ভালো হবে। এমনটাই মত, পরামর্শদাতাদের। নতুন বছরে নিজের ঘর নতুনভাবে গুছিয়ে নিয়ে শুরু করুন না। দেখুন হয়তো কেটে যাবে আপনার বাস্তু দোষ।

 রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভেঙে পড়েছে, নাকতলা জমিকাণ্ডে মন্তব্য কলকাতা হাইকোর্টের রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভেঙে পড়েছে, নাকতলা জমিকাণ্ডে মন্তব্য কলকাতা হাইকোর্টের

রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভেঙে পড়েছে। নাকতলা জমিউদ্ধার কাণ্ডে মন্তব্য কলকাতা হাইকোর্টের। হাইকোর্টের নির্দেশের পরও নাকতলায় জমি উদ্ধারে ব্যর্থ হয় পুলিস। আজ সেই মামলায়  রাজ্যকে কড়া ভর্তসনা করে আদালত। ৪২ কাঠা এই জমি উদ্ধার করতে গিয়ে শুক্রবার  নাকাল হয় পুলিস। নগরপালকে দাঁড় করিয়ে আত্মহত্যার হুমকি দেন তৃণমূল কাউন্সিলের স্বামী ভাস্কর দাম। খালি হাতে ফেরে পুলিশ। জ্যোর্তিময় ভট্টাচার্যের এজলাসে মামলা উঠতেই রাজ্যের ভূমিকায় তীব্র অসন্তোষ উগরে দেন বিচারপতি। নগরপালের উপস্থিতিতেও আদালতের নির্দেশ মানা হয়নি। রাজ্যের সামগ্রিক আইনশৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে। নগরপালের সামনে আত্মহত্যার হুমকি দিচ্ছেন একজন। নগরপাল তা মূক ও বধিরের মতো দেখছেন! তৃণমূল কাউন্সিলরের স্বামীকে গ্রেফতার করা উচিত, রাজ্য সরকার ও কলকাতা পুরসভার কাজকর্ম নিয়েও অসন্তোষ চেপে রাখেননি বিচারপতি।

জমিকাণ্ড নাকতলায়, প্রায় বিয়াল্লিশ কাঠার একটি জমি নিয়ে বিবাদ জমিকাণ্ড নাকতলায়, প্রায় বিয়াল্লিশ কাঠার একটি জমি নিয়ে বিবাদ

জমিকাণ্ড নাকতলায়। প্রায় বিয়াল্লিশ কাঠার একটি জমি নিয়ে বিবাদ। জল গড়াল হাইকোর্টে। উনিশশো বাহাত্তরে লীনা দত্ত নামে এক মহিলার এই জমিটি উন্নয়নের কাজে অধিগ্রহণ করে সরকার। কিন্তু সেখানে একটি পাম্পিং স্টেশন ছাড়া আর কিছুই এতদিনে করে উঠতে পারেনি সরকার। ফলে জমি ফেরতের দাবিতে হাইকোর্টে মামলা করেন লীনা দত্ত। গত পাঁচই অক্টোবর হাইকোর্ট রায় দেয়, জমির মালিককে জমি ফিরিয়ে দিতে হবে। একজন স্পেশাল অফিসার নিয়োগ করে হাইকোর্ট। কলকাতা পুলিস কমিশনার, ল্যান্ড অ্যাকুইজিশন কালেক্টর এবং কলকাতা মিউনিসিপ্যাল ওয়াটার অ্যান্ড ফুয়ারেজ অফিসারের উপস্থিতিতে জমি ফিরিয়ে দিতে বলে হাইকোর্ট। সেইমতো আজ তাঁরা প্রক্রিয়া শুরু করতে গেলে বাধা দেয় স্থানীয় ক্লাব। সবুজ বাঁচানোর দাবি তুলে তারা হাইকোর্টে আবেদন জানায়। কলকাতা পুরসভার কোনও প্রতিনিধি উপস্থিত না থাকায় জমি ফেরানো যায়নি। আজ মামলাও ওঠেনি হাইকোর্টে।

 টেন্ডার ডাকার পথেই হাঁটল জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ টেন্ডার ডাকার পথেই হাঁটল জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ

যাবতীয় জল্পনা শেষ। মুখরক্ষা করতে শেষমেশ টেন্ডার ডাকার পথেই হাঁটল জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ। প্রথমে জমিজট, পরে টাকার অভাব। ফলে প্রায় পাঁচ বছর থমকে ছিল চৌত্রিশ নম্বর জাতীয় সড়ক সম্প্রসারণের কাজ।আর তা নিয়ে চরমে ওঠে কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাত।দুহাজার দশে চৌত্রিশ নম্বর জাতীয় সড়ক সম্প্রসারণের সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্র।

শর্ট স্ট্রিটে জমিযুদ্ধ, গুরুত্বপূর্ণ নথি ২৪ ঘণ্টার হাতে, ২০১০ থেকে জমি নিয়ে তদন্ত শুরু করে কলকাতা পুলিস

৯ এ শর্ট স্ট্রিট। যত দিন যাচ্ছে, ততই সামনে আসছে জমি দখলকে কেন্দ্র করে নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য। ওই জমির যে দলিল বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিস, তা এসেছে ২৪ ঘণ্টার হাতে। ওই দলিলের ভিত্তিতেই পুলিস পরাগ মজমুদার এবং রাজেশ দামানিকে গ্রেফতার করেছে। সঞ্জয় সুরেখাকে জমি বিক্রি করেছিল এরাই। দলিল থেকে জানা যাচ্ছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। এই দলিলকে হাতিয়ার করেই তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিস। কীভাবে জমির হাতবদল হয়, তাতেও মিলছে নিত্যনতুন অনেক তথ্য। মুম্বইয়ের হার্টলাইন সংস্থার আদতে কোনও অস্তিত্ব নেই। এই সব কটি সংস্থাই পরাগ মজমুদার বেনামে চালাতেন বলে খবর।

মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের ল্যান্ড ব্যাঙ্ক এখনও বিশ বাঁও জলে

বুধবার শিল্পপতিদের সঙ্গে বৈঠকে ল্যান্ড ব্যাঙ্ক থেকে জমি পছন্দ করতে বলে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। বাস্তবে অবশ্য, ল্যান্ড ব্যাঙ্ক তৈরি তো দূরের কথা, জমি চিহ্নিতই হয়নি বেশির ভাগ জেলায়। ল্যান্ড ম্যাপ তৈরির কাজ হয়েছে মাত্র ছটি জেলায়। আগামিকাল তা প্রকাশ করবে অর্থ দফতর।

জমি না পেয়ে রাজ্য ছাড়ল বিএসএফের ফ্রন্টিয়ার

জমি না পেয়ে রাজ্য ছাড়ল বিএসএফের ফ্রন্টিয়ার। মালদায় ফ্রন্টিয়ারের নতুন সেক্টর গড়ার কথা ছিল। এর ফলে একদিকে যেমন সুরক্ষা ব্যবস্থায় ঘাটতি তৈরি হল, অন্যদিকে তেমনি পরিকাঠামোর দিক থেকেও পিছিয়ে পড়ল সীমান্তরক্ষী বাহিনী।

সিঙ্গুরের জমি রাজ্য সরকারের হাতেই রয়েছে: মমতা

সিঙ্গুরের অনিচ্ছুক কৃষকদের জমি ফেরতের ইস্যুতে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণায় ফের বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে। আজ সিঙ্গুরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, "জমি রাজ্য সরকারের হাতেই রয়েছে।" মামলার নিষ্পত্তি হলেই তা কৃষকদের ফিরিয়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশ্ন উঠেছে, যে জমি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা চলছে, সেই জমি রাজ্য সরকারের হাতে রয়েছে বলে কীভাবে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী? কীভাবেই বা তিনি ধরে নিচ্ছেন মামলায় রাজ্য সরকারেরই জয় হবে?