হাজার মেইল মেপে কংগ্রেস-বিজেপির সঙ্গে তৃণমূলের দূরত্ব আঁকলেন সুব্রত

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জয়রাম রমেশের মন্তব্য নিয়ে সরগরম রাজ্য রাজনীতি। গতকাল বিজেপির সঙ্গে তৃণমূলের গোপণ সমঝোতার অভিযোগ করেছিলেন রমেশ। রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জির বক্তব্য, কংগ্রেস ও বিজেপির থেকে হাজার মাইল দূরে তৃণমূল কংগ্রেস। সিপিআইএম নেতা মহম্মদ সেলিম বলছেন, নরেন্দ্র মোদীর সভায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্যেরই এক মন্ত্রী।   

বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে চলছে তৃণমূল, কলকাতায় বললেন জয়রাম

তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে সুর চড়াতে শুরু করল কংগ্রেসও। মমতা ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত জয়রাম রমেশ কলকাতায় এসে তোপ দাগলেন তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে। তাঁর অভিযোগ, বিজেপি-র সঙ্গে গোপনে হাত মিলিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। 

জয়রামের নিশানায় মমতা

তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে তোলা নিয়ে আগেই তোপ দেগেছিলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। এবার, একই অভিযোগ তুললেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জয়রাম রমেশ। তাঁর অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেসের এখন দুটি মুখ। একদিকে তৃণমূল। অন্যদিকে বিজেপি।

সরকার ইচ্ছা করে ভোট পিছিয়ে দিতে চাইছে, অভিযোগ জয়রামের

পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে রাজ্য সরকারকে কাঠগড়ায় তুললেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জয়রাম রমেশ। আজ শিলিগুড়িতে তিনি বলেছেন, সরকার ইচ্ছাকৃত ভাবে ভোট পিছিয়ে দিতে চাইছে। সরকার কিন্তু ক্রমাগত দায়টা কমিশনের ঘাড়েই ঠেলে দিতে চাইছে। এরমধ্যেই জানা যাচ্ছে, গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে রাজ্যের সতেরোটি জেলায় হাজারখানেক পঞ্চায়েত আসন ফাঁকা পড়ে আছে। কমিশন বহুবার ভোট করানোর আবেদন করলেও তা কানেই তোলেনি সরকার। 

লালগড়ে দাঁড়িয়ে পঞ্চায়তে জোর লড়াইয়ের ডাক দিলেন জয়রাম

লালগড়ে কংগ্রেসের সভামঞ্চ থেকে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের দলের সাংগঠনিক লড়াই মজবুত করার ডাক দিলেন কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়নমন্ত্রী জয়রাম রমেশ। এদিন জয়রামের নজরে একদিকে ছিল রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচন, তেমনই তার নিশানায় ছিলেন মুখ্যমুন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জয়রাম বলেন, "কংগ্রেসকে পশ্চিমবঙ্গ থেকে কেউ সরাতে পারবে না`। পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রদেশ কংগ্রেস নতুন রাজনৈতিক শক্তি নিয়ে লড়াই করবে বলেও মন্তব্য করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

আজ জঙ্গলমহল সফরে জয়রাম রমেশ

ফের জঙ্গলমহল সফরে কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী জয়রাম রমেশ। সরজমিনে খতিয়ে দেখবেন উন্নয়নের কাজ। পরিবর্তিত রাজনৈতিক সমীকরণে কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী সফর ঘিরে প্রত্যাশায় জঙ্গলমহলবাসী। ২০১১-র ১৯ নভেম্বর। জঙ্গলমহল সফরে এসেছিলেন কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী জয়রাম রমেশ। কেন্দ্রে তখন ইউপিএ-র অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শরিক তৃণমূল কংগ্রেস।

একশ দিনের কাজের তদারকি করতে সোমবার সুব্রতকে ফোন করবেন জয়রাম

প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনা প্রকল্পে অর্থ বরাদ্দ  হওয়ার পর, এবার একশ দিনের কাজের প্রকল্পে গতি আনতে কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী জয়রাম রমেশের সঙ্গে কথা বলবেন রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। সোমবার টেলিফোনে তাঁদের কথা হবে বলে মহাকরণ সূত্রে জান গিয়েছে।

৩২-বিতর্কে পিছু হঠল কেন্দ্র

বত্রিশ টাকাকে শহুরে আম আদমির দারিদ্র-সূচক আর ছাব্বিশ টাকাকে গ্রামের মানুষের দারিদ্রের মাপকাঠি হিসাবে চিহ্নিত করায় দেশজুড়ে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল মনমোহন সিং সরকারকে। সেই বিতর্কে ইতি টানতে সোমবার বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী জয়রাম রমেশ এবং যোজনা কমিশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান মন্টেক সিং আলুওয়ালিয়া।