পুজোর পরই রাজ্য সরকারে ষাট হাজার কর্মী নিয়োগ!

পুজোর পরই রাজ্য সরকারে ষাট হাজার কর্মী নিয়োগ!

বিধানসভা নির্বাচনের আগে ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। জিতে আসার এক মাসের মধ্যে গ্রুপ-ডি পদে ৬০ হাজার কর্মী নিয়োগের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে সরকার। রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের তৈরি প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেবে

নির্ধারিত পরিমাণের তুলনায় খাদ্য সামগ্রী কম দেওয়ায় রেশন দোকান ও ডিলারের বাড়িতে ভাঙচুর

নির্ধারিত পরিমাণের তুলনায় খাদ্য সামগ্রী কম দেওয়ায় রেশন দোকান ও ডিলারের বাড়িতে ভাঙচুর

নির্ধারিত পরিমাণের তুলনায় খাদ্য সামগ্রী কম দেওয়ায় রেশন দোকান ও ডিলারের বাড়িতে ভাঙচুর চালাল গ্রামবাসীরা। আজ মুর্শিদাবাদের ইসলামপুরের টেঁকা রায়পুরে ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে পুলিস গেলে উত্তেজিত বাসিন্দারা

দেশের প্রতি পাঁচজন নিখোঁজ শিশুর মধ্যে একজন এরাজ্যের

দেশের প্রতি পাঁচজন নিখোঁজ শিশুর মধ্যে একজন এরাজ্যের

মিসিং গার্ল। পুত্র সন্তানের প্রতি বাড়তি নজর আর কন্যা সন্তানকে অবহেলা। যার জেরে শিশুকন্যাদের হারিয়ে যাওয়া। মিসিং গার্ল শব্দবন্ধের সঙ্গে পরিচয় করিয়েছেন অমর্ত্য সেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের

বেআইনি টোটোকে নিয়মে বেঁধে বৈধতা দেওয়ার কথা ভাবছে রাজ্য

বেআইনি টোটোকে নিয়মে বেঁধে বৈধতা দেওয়ার কথা ভাবছে রাজ্য

বেআইনি টোটোকে নিয়মে বেঁধে আইনি বৈধতা দেওয়ার কথা ভাবছে রাজ্য। ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করে দিয়েছে পরিবহণ দফতর। ১৩ মে বিভিন্ন জেলার RTO-র সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করবেন পরিবহণ দফতরের কর্তারা। জেলায় কত টোটো চলছে

মুখ্যমন্ত্রীর প্রার্থী তালিকা পছন্দ না হওয়ায় বিক্ষোভ তৃণমূলকর্মীদের

মুখ্যমন্ত্রীর প্রার্থী তালিকা পছন্দ না হওয়ায় বিক্ষোভ তৃণমূলকর্মীদের

অন্য কেউ নন, তিনি নিজেই প্রার্থী তালিকা তৈরি করবেন। দলে ক্ষোভ-বিক্ষোভ আটকাতে ঘোষণা করেছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঘোষণা হয়ে গেছে প্রার্থী তালিকাও। তবে বেশ কয়েকটি আসনে প্রার্থী পছন্দ

পশ্চিমবঙ্গের ঘরে ঘরে 'জীবন" পৌঁছে দিচ্ছে সরকার

পশ্চিমবঙ্গের ঘরে ঘরে 'জীবন" পৌঁছে দিচ্ছে সরকার

'ভিশন ২০২০'। ঘরে ঘরে পরিশ্রুত পানীয় জল পৌঁছে দেওয়ার জন্য সরাকারের একটি উদ্যোগ। ২১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা খরচ করে 'ভিশন ২০২০'এর মাধ্যমে প্রতিটি ঘরে ঘরে পানীয় জল পৌঁছে দিচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। পানীয় জলকে

প্রসেসড ফুডের হাত ধরে সরকারের আয় বেড়েছে ৪০০ শতাংশ

প্রসেসড ফুডের হাত ধরে সরকারের আয় বেড়েছে ৪০০ শতাংশ

কৃষি, শিল্পের উন্নয়নের সাথে সাথে প্রাণী সম্পদ উন্নয়নেও অগ্রনী ভূমিকা নিয়েছে রাজ্য সরকার। নানা উদ্যোগের মধ্যে একটি হলো 'বিশেষ গো সম্পদ বিকাশ অভিযান' -এর সম্প্রসারণ। এই অভিযানে ২০১৪-১৫ থেকে রাজ্যের

বিশ্বের দরবারে এগোচ্ছে আদিবাসীরাও

বিশ্বের দরবারে এগোচ্ছে আদিবাসীরাও

আদিবাসী মানেই পিছনের সারির মানুষ। সব সযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। কিন্তু  পশ্চিমবঙ্গে পাল্টাচ্ছে এই ছবিটা। সরকারের সহযোগিতায় আদিবাসীরা আর পিছিয়ে নেই। এগোচ্ছে তারাও। আদিবাসীদের উন্নয়নের জন্য পশ্চিমবঙ্গ

বিপর্যয় মোকাবিলা করতে কোমর বেঁধে তৈরি রাজ্য সরকার

বিপর্যয় মোকাবিলা করতে কোমর বেঁধে তৈরি রাজ্য সরকার

প্রাকৃতিক বিপর্যয় বারবার আঘাত হেনেছে পশ্চিমবঙ্গের বুকে। এখনও শুকোয়নি আয়লার ক্ষত। সুনামির মত প্রাকৃতিক দুর্যোগও পার হয়ে গিয়েছে অনেক দিন আগে। কিন্তু এখনও ক্ষত চিহ্নও রয়ে গিয়েছে বেশকিছু এলাকায়। সেইসব

পশ্চিমবঙ্গে আর পিছিয়ে নেই পিছিয়ে পড়া জাতি

পশ্চিমবঙ্গে আর পিছিয়ে নেই পিছিয়ে পড়া জাতি

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সহযোগিতায় আর পিছিয়ে নেই পিছিয়ে পড়া শ্রেনী। এবার থেকে তারা তাদের সবরকম প্রয়োজনীয় নথি পেয়ে যাবে অন লাইনে। কাস্ট সার্টিফিকেট পেতেও এখন আগের থেকে অনেক কম সময় লাগে। আবেদনের ৪ সপ্তাহের

তথ্য বলছে শিল্পে এগোচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ

তথ্য বলছে শিল্পে এগোচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ

গত চার বছরে ব্যপক উন্নতির মুখ দেখেছে বাংলার ছোট, মাঝারি ও ক্ষুদ্র শিল্প। রাজ্যে প্রায় ৫০ হাজার ৮৫০ টি ইউনিট তৈরি হয়েছে। আর সেখানে কাজ পেয়েছেন ৫ লক্ষ ৪৫ হাজারেরও বেশি লোক। ছোট, মাঝারি ও ক্ষুদ্র

রাজ্যে আদিবাসী প্রধান এলাকাগুলির উন্নয়নে উদ্যোগী রাজ্য

রাজ্যে আদিবাসী প্রধান এলাকাগুলির উন্নয়নে উদ্যোগী রাজ্য

রাজ্যে আদিবাসী প্রধান এলাকাগুলির উন্নয়নে উদ্যোগী রাজ্য। তফশিলি উপজাতিভুক্ত ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য স্কলারশিপের ব্যবস্থা সহ একাধিক প্রকল্প চালু করেছে সরকার। শুরু হয়েছে শিক্ষাশ্রী প্রকল্প।

গত চার বছরে রাজ্যে তৈরি হয়েছে ১৫টি নতুন বিশ্ববিদ্যালয়, ৪৬টি নতুন কলেজ

গত চার বছরে রাজ্যে তৈরি হয়েছে ১৫টি নতুন বিশ্ববিদ্যালয়, ৪৬টি নতুন কলেজ

উচ্চশিক্ষা কি শুধুই থাকবে নির্দিষ্ট কিছু মানুষের মধ্যে? নাকি এটা ছড়িয়ে দিতে হবে সকলের মধ্যে। গত কয়েক দশকে এ প্রশ্ন মাঝে মাঝেই মাথা চাড়া দিয়ে উঠছে। হাতে গোনা কয়েকটা বিশ্ববিদ্যালয়, আর সেখানেই পড়ার

মাছ চাষে বাংলাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সরকারের উদ্যোগ

মাছ চাষে বাংলাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সরকারের উদ্যোগ

মৎস্য মারিব, খাইব সুখে। এই প্রবাদটা বোধহয় মাছে -ভাতে বাঙালির অজানা নয়।  নদী-নালা-পুকুরের অভাব নেই এরাজ্যে। আর তাই বাঙালির পাতে মাছের টুকরোও রোজকারের বিষয়। মাছ চাষে এগিয়ে রয়েছে এরাজ্য। কিন্তু মৎস্য

 জামদানি ফের আম জনতার দরবারে- সৌজন্যে বিশ্ব বাংলা

জামদানি ফের আম জনতার দরবারে- সৌজন্যে বিশ্ব বাংলা

একসময়ে অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিল জামদানি শাড়ি। সুক্ষ সুতোর বুননে চোখ ধাঁধানো শাড়ি তৈরিতে সময় লাগে বিস্তর। কিন্তু সেই অনুপাতে তাঁতিদের রোজগার ছিল অনেক কম। আর তাই,  নানান অসুবিধার জেরে প্রায় হারিয়েই যেতে

সংখ্যালঘু উন্নয়নের খতিয়ান 'এ টেল অফ ফোর ইয়ার্স'-এ

সংখ্যালঘু উন্নয়নের খতিয়ান 'এ টেল অফ ফোর ইয়ার্স'-এ

সংখ্যালঘু বিষয়ক বিভিন্ন উন্নয়নে এরাজ্য সামনের সারিতে। এমনই দাবি রাজ্যের। সম্প্রতি রাজ্য সরকার প্রকাশিত বইয়ে উল্লেখ রয়েছে এমনই নানান তথ্য।