৩ বছরের শিশুকে ধর্ষণ, অভিযুক্তদের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ বাসন্তীতে

৩ বছরের শিশুকে ধর্ষণ, অভিযুক্তদের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ বাসন্তীতে

নাবালিকাকে ধর্ষণ করে খুন। ৩ অভিযুক্তের ফাঁসির দাবিতে বাসন্তী থানার সামনে বিক্ষোভ এলাকাবাসীর। জনতার ছোঁড়া ইটের ঘায়ে আহত ওসি কৌশিক কুণ্ডু। শনিবার রাতে  বাসন্তীর শ্রীরামপুরে  ইলিয়াস সর্দারের বাড়ি থেকে নাবালিকার রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয়।

ইয়াকুবের শেষ কথা, 'আমি আর আমার ভগবানই জানে আসল সত্যিটা কী' ইয়াকুবের শেষ কথা, 'আমি আর আমার ভগবানই জানে আসল সত্যিটা কী'

আমি আর আমার ভগবানই জানে আসল সত্যিটা কী। আপনার তো শুধু ডিউটি করছেন, তাই আমি আপনাদের ক্ষমা করছি ((I and my God know the truth. You people are just doing your duty, so I forgive you).” এটাই ছিল ফাঁসির আগে মুম্বই বিস্ফোরণের প্রধান অভিযুক্ত ইয়াকুব মেমনের শেষ কথা।  এক সর্বভারতীয় সংবদামাধ্যমে ফাঁস হয় মেমনের এই শেষ কথা। জানা গিয়েছে, ফাঁসির সেই ভোরে একদমই বিচলিত ছিলেন না ইয়াকুব। জীবনের শেষের কয়েকটি মিনিট ছিলেন শান্ত। ফাঁসির মঞ্চে আনার আগে এক পুলিসকর্মী তাঁকে শুধু বলেন চপ্পল। ব্যাপারটা বুঝতে পেরে ইয়াকুব বলেন, হ্যাঁ খুলছে (হাঁ নিকাল লেতা হু) এরপর নিজের পায়ের জুতোটা খুলে নেন ইয়াকুব।

ইয়াকুব মেমনের ফাঁসির বিরুদ্ধে টুইটে বিতর্কিত মন্তব্য শশী থারুরের ইয়াকুব মেমনের ফাঁসির বিরুদ্ধে টুইটে বিতর্কিত মন্তব্য শশী থারুরের

ইয়াকুব মেমনের ফাঁসির বিরুদ্ধে মুখ খুলে ফের বিতর্কে কংগ্রেস নেতা তথা সাংসদ শশী থারুর। ইয়াকুবের ফাঁসিকে তিনি ঠাণ্ডা মাথায় প্রাণদণ্ড হিসেবেই দেখছেন। তাঁর মতে , ঠাণ্ডা মাথায় পরিকল্পিত ফাঁসি কোথাও কোনও সন্ত্রাসবাদী হানা রুখতে পারেনি। তবে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সর্বশক্তি সবাইকে একজোট হয়ে লড়াই করতে হবে বলে টুইটে মন্তব্য করেছেন থারুর।

মৃত্যুদণ্ডে 'হ্যাঁ না' ও তার পরিসংখ্যান মৃত্যুদণ্ডে 'হ্যাঁ না' ও তার পরিসংখ্যান

গত চার বছরে ভারত সন্ত্রাস দমনে দৃষ্টান্তমূলক কড়া বার্তা দিয়েছে কয়েকজন হাইপ্রোফাইল সন্ত্রাসবাদীদের ফাঁসি দিয়ে। সম্প্রতিক তিন অভিযুক্ত সন্ত্রাসবাদী আজমল কাসভ, আফজল গুরু ও ইয়াকুব মেননকে ফাঁসি দিয়ে সন

রাতে জেলে ইয়াকুবের কাছে জন্মদিনের কেক পাঠায় পরিবার, মেয়ের সঙ্গে কথা বলেন রাতে জেলে ইয়াকুবের কাছে জন্মদিনের কেক পাঠায় পরিবার, মেয়ের সঙ্গে কথা বলেন

আজই তাঁর ৫৩ তম জন্মদিন। জন্মদিনের জন্য গতকাল রাতে কেক পাঠানো হয় নাগপুর সেন্ট্রাল জেলে। মেমনের পরিবার জেল সুপারের হাতে এই কেক তুলে দেওয়া হয়। তখনও পরিবার আশায় ছিল ফাঁসির আর্জি হয়তো রদ করা হবে। মেমনের পরিবার তখন বিচারপতির বাড়িতে। ১৪ দিনের জন্য প্রাণভিক্ষার আর্জি জানান তাঁরা।

ইয়াকুবের জীবনের শেষের কয়েক ঘণ্টা ইয়াকুবের জীবনের শেষের কয়েক ঘণ্টা

সারারাতে কিছু খাননি। শুধু বলেছিলেন, আমি মরবই, শেষবার একবার মেয়েকে দেখতে চাই। রাত ৩টার সময় ঘুম থেকে তোলা হয় ইয়াকুবকে। ১৫ মিনিট বাদে স্নান করানো হয়। এরপরেই পাঁচ মিনিটের মধ্যে নতুন পোশাক পরিয়ে তৈরি করা হয়। এর মধ্যেই এসে পড়ে জলখাবার। জীবনের শেষ খাবার খেতে চাননি। সাড়ে ৩টা থেকে দু ঘণ্টা ধরে ধর্মগুরুর উপস্থিতিতে করেন বিশেষ প্রার্থনা। সাড়ে পাঁচটার কিছু পরে ইয়াকুবকে সাজা পড়ে শোনানো হয়।  এরপর অপরাধের পর ক্ষমাপ্রার্থনা করেন ইয়াকুব। ৫.৩৫-এ স্বাস্থ্যপরীক্ষা করে ফিট ঘোষণা করেন ডাক্তররা। ৫.৪৫-এ সেলের মধ্যে ঘুরিয়ে সহ -বন্দিদের সঙ্গে কথা বলতে দেওয়া হয়। সহ-বন্দিদের মধ্যে কেউ কেউ আবেগে ভেঙে পড়েন। ৬টা থেকে ৬টা ২৫-ধর্মগ্রন্থ পাঠ ও বিশ্রাম করেন। ৬টা ২৫-এ তাঁর সেল থেকে ২৫ পা দূরে ফাঁসির মঞ্চে নিয়ে যাওয়া হয়। ৬.৩৫-এ ফাঁসি কাঠে ঝোলানো হয়। নিয়ম মেনে ৩০ মিনিট ঝুলিয়ে রাখার পর ৭টায় ডাক্তাররা মৃত বলে ঘোষণা করেন। ২১ বছর জেলে থাকার পর মুম্বই বিস্ফোরণের মূল অভিযুক্তর জীবনকাহিনিতে দাঁড়ি পড়ে।

৭টায় ফাঁসি, ইয়াকুবকে ঘুম থেকে তোলা হবে ভোর ৩টেয় ৭টায় ফাঁসি, ইয়াকুবকে ঘুম থেকে তোলা হবে ভোর ৩টেয়

কয়েক ঘণ্টা পরই মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হতে চলেছে ১৯৯৩ মুম্বই বিস্ফোরণের মাস্টার মাইন্ড ইয়াকুব মেমনের। ফাঁসির মঞ্চ সাজছে মহারাষ্ট্রের নাগপুর জেলে। সকলা ৭টায় হতে চলেছে ফাঁসি। তবে ইয়াকুবকে এদিন ঘুম থেকে তুলে দেওয়া হবে ভোর ৩টের সময়।

একসঙ্গে ১২ জনকে ফাঁসি দিল পাকিস্তান একসঙ্গে ১২ জনকে ফাঁসি দিল পাকিস্তান

মৃত্যুদণ্ডের ওপর থেকে স্থগিতাদেশ তুলে নেওয়ার পর মঙ্গলবার একসঙ্গে ১২ জন অভিযুক্তকে ফাঁসিকাঠে ঝুলিয়ে দিল পাকিস্তান। ২০০৮ সালে সেনা শাসনকে সরিয়ে নতুন সরকার আসার পর মৃত্যুদণ্ডের ওপর স্থগিতাদেশ জারি করেছিল পাকিস্তান। কিন্তু গত বছর ডিসেম্বরে পেশোয়ারে সেনা স্কুলে তালিবানি হামলার পর ফের মৃত্যুদণ্ডের শাস্তি ফিরিয়ে আনা হয়।

কোলাপুরের দুই বোনের প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজ রাষ্ট্রপতির, প্রথম মহিলা অপরাধীর ফাঁসি হতে চলেছে দেশে কোলাপুরের দুই বোনের প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজ রাষ্ট্রপতির, প্রথম মহিলা অপরাধীর ফাঁসি হতে চলেছে দেশে

সম্পর্কে তারা দুই বোন। আজ থেকে ১৩ বছর আগে ২০০১ সালে ১৩টি শিশুকে অপহরণ ও ৯টি শিশুকে খুন করার অপরাধে ফাঁসির আদেশ হয় তাদের। শনিবার তাদের প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজ করে দিয়ে রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি বলে

রমনার মামলায় বাংলাদেশে ৮ জনকে ফাঁসির আদেশ

রমনার মামলায় বাংলাদেশে ৮ জনের মৃত্যুদণ্ড

দিল্লি ধর্ষণ কাণ্ডে ঐতিহাসিক রায়, ৪ জনের ফাঁসির আদেশ আদালতের

ন-মাস পর বিচার পেলেন নির্ভয়া। বিরলতম অপরাধে দিল্লি গণধর্ষণ কাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত ৪ জনকে ফাঁসির আদেশই দিল আদালত। অভিযুক্ত অক্ষয় ঠাকুর, পবন গুপ্তা, বিনয় শর্মা, মুকেশ সিংকে মৃত্যুদণ্ড দেন বিচারক যোগেশ খান্না। শুক্রবার দুপুর আড়াইটে নাগাদ তাদের ফাঁসির সাজা ঘোষণা করে অ্যাডিশনাল সেসনস জজ যোগেশ খান্না।

নীরবতায় প্রতিবাদ

প্রতিবাদের এক অন্য ভাষা দেখাল বাংলাদেশ। নীরবতার মাধ্যমে যুদ্ধঅপরাধীদের ফাঁসি ও জামায়েত শিবিরকে নিষিদ্ধ করার দাবি জানালেন অগণিত মানুষ। মঙ্গলবার বিকেল চারটে থেকে রাজধানী ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে তিন মিনিট নিরবতা পালন করেন বহু মানুষ। তবে শান্তিকামী এই আন্দোলনে পাশাপাশি হিংসারও সক্ষী থাকল মঙ্গলবারের ঢাকা। জামায়েতে ইসলামির পাল্টা মিছিলে অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা।

চিঠি পেল অফজলের পরিবার

অবশেষে সোপর গ্রামে চিঠি পৌঁছল। কিন্তু যতক্ষণে পৌঁছল ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে। আফজল গুরুর ফাঁসির ঠিক দু`দিনের মাথায় তাঁর পরিবার সরকারি চিঠি পেল। এর আগেই ২০০১ সংসদ হামলার অন্যতম অভিযুক্ত আফজলকে তিহারের জেলে ফাঁসি কাঠে ঝোলানো হয়ে গিয়েছে। ফলে শেষ বারের মতো দেখার সুযোগটাও পেল না তাঁর পরিবার।

আফজলকে পরিবারের সঙ্গে দেখা করানো উচিৎ ছিল, মত ওমর আবদুল্লার

আফজল গুরুর ফাঁসি ইস্যুতে এবার কংগ্রেসের সঙ্গে ন্যাশনাল কনফারেন্সের চাপানউতোর প্রকাশ্যে চলে এল। শনিবারই তিহার জেলে ফাঁসি দেওয়া হয় সংসদ হামলার সাজাপ্রাপ্ত আফজল গুরুকে। মৃত্যুর পর তিহার জেলেই কবর দেওয়া হয় আফজলকে।