সন্ত্রাসের প্রতিবাদে সিপিআইএমের ডাকে বনধ কামারহাটি ও ইংরেজবাজারে   সন্ত্রাসের প্রতিবাদে সিপিআইএমের ডাকে বনধ কামারহাটি ও ইংরেজবাজারে

দলের ২ নেতার ওপর হামলার প্রতিবাদে কামারহাটিতে আজ সিপিআইএমের ডাকে চলছে ১০ ঘণ্টার বনধ। তবে কোথাও গাড়িঘোড়া আটকাবে না, সিপিআইএম। সন্ধে ৬ টায় বনধ শেষ হওয়ার পর বাদামতলা মোড়ে প্রতিবাদ সভা হবে। সেখানে যোগ দেবেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু ও CPIM রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। সিপিআইএমের অভিযোগ, বেলঘরিয়ার ঘটনায় হামলাকারীদের বদলে বেছে বেছে গ্রেফতার করা হচ্ছে আক্রান্তদেরই। অভিযোগ সিপিআইএমের। সোমবার রাতে দলের নেতাকে  বাঁচাতে গিয়ে বেলঘরিয়ায়  হামলার মুখে পড়েন সিপিআইএম নেতা মানস মুখার্জি ও সুভাষ মুখার্জি। দুজনেরই অভিযোগ, তৃণমূল কর্মীরা যখন মারধর করছে  তখন পুলিস ছিল স্রেফ দর্শকের ভূমিকায়।

বিহারে বনধ, সংঘর্ষে বিজেপি-জেডি(ইউ)

বিজেপির ডাকা ধর্মঘটকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে উত্তাল হল বিহার। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিজেপি ও জেডিইউ সমর্থকদের সংঘর্ষে উত্তেজনা ছড়ায়। বনধের প্রভাব পড়েছে রাজধানী পাটনার জনজীবনে। দোকান পাট খোলেনি। পরিবহণ ব্যবস্থাও ছিল বিপর্যস্ত। জায়গায় জায়গায় রেল অবরোধ করেন বিজেপি সমর্থকরা। যদিও, ব্যাঙ্ক সহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠান খোলা ছিল। পাটনায় ধর্মঘট ব্যর্থ করতে প্রচুর নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করা হয়। মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের শহর নালন্দাতেও বনধ ঘিরে সংঘর্ষের খবর পাওয়া গিয়েছে। বনধে অশান্তির জন্য জেডিইউকেই দায়ী করেছে বিজেপি।