বর্ধমান কাণ্ড: বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠী না সিমি? কেন্দ্রীয় গোয়ান্দা সংস্থা-রাজ্যের রিপোর্টের ফারাকে বাড়ছে রহস্য  বর্ধমান কাণ্ড: বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠী না সিমি? কেন্দ্রীয় গোয়ান্দা সংস্থা-রাজ্যের রিপোর্টের ফারাকে বাড়ছে রহস্য

বর্ধমান বিস্ফোরণের পিছনে কারা? এ নিয়ে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ও রাজ্যের রিপোর্টে বিস্তর ফারাক। বিস্ফোরণের জন্য বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠীকেই দায়ী করেছেন রাজ্য সরকার। বাংলাদেশের যোগের উল্লেখ NIA -রিপোর্টেও রয়েছে। কিন্তু, তাঁরা আরও বেশি জোর দিয়েছে সিমির ওপর। সিমি প্রশ্নে আবার রাজ্যের রিপোর্ট নীরব। বর্ধমান বিস্ফোরণ নিয়ে রাজ্যের রিপোর্টে বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠীর দিকেই আঙুল তোলা হয়েছে। বলা হয়েছে অভিযুক্তেরা সকলেই বাংলাদেশের জামাত-উল-মুজাহিদিন সংক্ষেপে JMB-র সদস্য। এবং সেই যোগসূত্রের মূলে রয়েছেন নিহত শাকিল গাজি। রিপোর্টে উল্লেখ,

বিরোধীদের ডাকে তিন দিনের বনধ বাংলাদেশে, ছড়াচ্ছে হিংসার আগুন

বিএনপি সহ ১৮ দলের জোটের ডাকে ৭২ ঘণ্টার অবরোধে ফের উত্তপ্ত বাংলাদেশ। অবরোধের শুরুতেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় একাধিক হিংসার ঘটনা ঘটেছে। আজ সকাল থেকে রাজশাহী, সিলেট, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জায়গায় বাসে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে অবরোধ সমর্থকরা। ঢাকায় বনধ সমর্থকদের মিছিল থেকে বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। ঢাকায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে দলের যুগ্ম মহাসচিব রহুল কবীর রিজভিকে গ্রেফতার করেছেন গোয়েন্দারা। নির্দলীয় সরকারের তত্বাবধানে নির্বাচনের দাবিতে এর আগে মঙ্গলবার থেকে অবরোধ ডেকেছিল বিরোধী জোট। একাত্তর ঘণ্টার ওই অবরোধে কুড়ি জন নিহত হন।