বারাসত - Latest News on বারাসত| Breaking News in Bengali on 24ghanta.com
রক্ত দিয়েও কামদুনি জানাল, তাঁরা আন্দোলন থেকে সরছে না

রক্ত দিয়েও কামদুনি জানাল, তাঁরা আন্দোলন থেকে সরছে না

Last Updated: Sunday, October 06, 2013, 17:02

কামদুনিতে শান্তিরক্ষা কমিটির রক্তদান শিবিরে যোগ দিলেন কামদুনি প্রতিবাদী মঞ্চের সদস্যরাও। তবে তাঁরা সাফ জানিয়ে দিলেন, প্রতিবাদী মঞ্চ তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা তাঁদের নেই। রক্তদান শিবিরে চার মন্ত্রী, পাঁচ বিধায়কের উপস্থিতিই প্রমাণ করল, কামদুনি সরকারের কাছে কত বড় কাঁটা।

কামদুনির পরিবারকে চাকরি ও ১ লক্ষ টাকা দিল রাজ্য, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে রাজি বাবা-মাও

কামদুনির পরিবারকে চাকরি ও ১ লক্ষ টাকা দিল রাজ্য, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে রাজি বাবা-মাও

Last Updated: Saturday, September 28, 2013, 21:19

অবশেষে কামদুনির নির্যাতিতার পরিবারকে পাশে পেল রাজ্য। সরকারের দেওয়া চাকরি নিতে রাজি হয়েছেন নির্যাতিতার ভাই। একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে এক লক্ষ টাকা দেওয়া হয়েছে পরিবারকে। এ কথা জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। আজই মহাকরণে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন নির্যাতিতার বাবা, মা এবং ভাই। বৈঠকের পর তাঁরা জানিয়েছিলন, কামদুনির ঘটনার দ্রুত বিচার এবং দোষীদের শাস্তির দাবি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে জানিয়েছেন তাঁরা। মুখ্যমন্ত্রী তাঁদের আশ্বস্ত করেন বলেও জানিয়েছিলেন পরিবারের সদস্যরা। তবে রাতের দিকে চাকরি এবং আর্থিক সহায়তার কথা জানান খাদ্যমন্ত্রী।

এবার সুপ্রিম কোর্ট যাচ্ছে কামদুনি

এবার সুপ্রিম কোর্ট যাচ্ছে কামদুনি

Last Updated: Tuesday, August 13, 2013, 16:17

সুপ্রিম কোর্ট যাচ্ছে কামদুনির নির্যাতিতা পরিবার। দাবি, শুনানি চলুক বারাসতের আদালতেই। গলকাল মামলা কলকাতা নগর দায়েরা আদালতে সারানোর নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। ওই নির্দেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্ট যাচ্ছে নির্যাতিতার পরিবার।

কামদুনি মামলার শুনানি শেষ

কামদুনি মামলার শুনানি শেষ

Last Updated: Wednesday, July 24, 2013, 21:42

কামদুনি মামলার শুনানি প্রক্রিয়া শেষ হল কলকাতা হাইকোর্টে। তবে মামলার রায়দান আপাতত স্থগিত রেখেছেন বিচারপতি অসীমকুমার রায়। কামদুনি মামলার দ্রুত নিষ্পত্তি চেয়ে হাইকোর্টে যায় রাজ্য। অভিযুক্তদের আইনজীবী বারাসত আদালত থেকে মামলা সরানোর আবেদন জানান। অভিযুক্তদের আবেদন সমর্থন করে রাজ্য সরকার। 

কামদুনি মামলায় রাজ্যের যুক্তিতে ক্ষুব্ধ আদালত

কামদুনি মামলায় রাজ্যের যুক্তিতে ক্ষুব্ধ আদালত

Last Updated: Tuesday, July 23, 2013, 20:01

অভিযুক্ত ৯ জন। পলাতক ১। সে কারণে শুরু করা যায়নি ফৌজদারি মামলা। কামদুনি জনস্বার্থ মামলায় কলকাতা হাইকোর্টে আজ এই যুক্তি পেশ করেন রাজ্যের আইনজীবী। তবে গ্রেফতার হওয়া ৮ জনের বয়ানের ভিত্তিতে মামলা শুরু না করার জন্য সরকারি আইনজীবীকে ফের একবার ভর্ৎসনা করেন বিচারপতি অসীম রায়। পাশাপাশি তদন্তকারী সংস্থা সিআইডি-র অফিসার নিজেই কিভাবে অ্যাডভোকেট জেনারেলকে সঙ্গে নিয়ে মামলা করলেন, সে প্রশ্নও ওঠে আদালতে।  

কামদুনি মামলায় অভিযুক্তদের সমর্থন করল রাজ্য

কামদুনি মামলায় অভিযুক্তদের সমর্থন করল রাজ্য

Last Updated: Saturday, July 20, 2013, 10:58

কামদুনিকাণ্ডে অভিযুক্তদের পাশে দাঁড়াল রাজ্য সরকার। বারাসত আদালত থেকে মামলা সরিয়ে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিল অভিযুক্তরা। কলকাতা হাইকোর্টে  করা অভিযুক্তদের এই আবেদনকে সমর্থন করল রাজ্য। মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী মঙ্গলবার। 

ভোট দিল না কামদুনি

ভোট দিল না কামদুনি

Last Updated: Friday, July 19, 2013, 13:29

কার্যত ভোট দিল না কামদুনি। সকাল ১১টা পর্যন্ত ৯৫২ জনের বুথে ভোট দিয়েছেন ৮৩ জন। ভোট কেন্দ্রে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হলেও, বুথমুখো হননি গ্রামের বেশিরভাগ মানুষই। ভোট দেবেন না বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছিল নির্যাতিতার পরিবার।

ত্রুটিপূর্ণ চার্জশিট, রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হচ্ছে কামদুনি

ত্রুটিপূর্ণ চার্জশিট, রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হচ্ছে কামদুনি

Last Updated: Sunday, July 07, 2013, 21:32

মুখ্যমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছিলেন ১৫ দিনে চার্জশিট, একমাসের মধ্যে বিচার করে দোষীদের শাস্তি। কিন্তু, ডেডলাইন পালন করতে পারল না তাঁর পুলিস। কামদুনি কাণ্ডের ত্রুটিপূর্ণ চার্জশিট আদালতে জমা পড়ে ২৫ দিনের মাথায়। আর আজ ঘটনার একমাস পূর্ণ হল। দোষীদের শাস্তি পাওয়ার প্রতিশ্রুতি পূরণ হয়নি। সুবিচারের আশায় এবার রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হওয়ার কথা ভাবছেন কামদুনির মানুষ।  

প্রতিবাদের পথ দেখাচ্ছে কামদুনি

প্রতিবাদের পথ দেখাচ্ছে কামদুনি

Last Updated: Friday, June 28, 2013, 13:21

কামদুনি থেকে খরজুনা। বড়ঞা থেকে দাসপুর। প্রতিবাদের সামনের সারিতে মহিলারা। কামদুনিতে মুখ্যমন্ত্রীর ধমকানিতেও দমে যাননি টুম্পা কয়াল। বন্ধুকে ধর্ষণ করে খুনের প্রতিবাদে শাসকের চোখ রাঙানির ভয় করেননি তিনি। পথে নেমেছেন। প্রথমে টুম্পার প্রতিবাদের পাশে এসে দাঁড়ান আরেক বন্ধু মৌসুমী। এরপর গোটা গ্রাম।