খাগড়াগড় বিস্ফোরণ কাণ্ডে ছয় অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাসি চালাচ্ছে এনআইএ খাগড়াগড় বিস্ফোরণ কাণ্ডে ছয় অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাসি চালাচ্ছে এনআইএ

খাগড়াগড় বিস্ফোরণ কাণ্ডে ছয় অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাসি চালাচ্ছে এনআইএ। ছয়জনের মধ্যে রয়েছে, কাদর গাজি, ইউসুফ শেখ, বোরহান শেখ, জহিরুল ইসলাম ও তুহিন। গোয়েন্দাদের সূত্রের খবর,  বেশকিছু অনুষ্ঠানে পরিবারের সঙ্গে লুকিয়ে দেখাও করেছে তারা। কখনও-সখনও ছদ্মবেশে গ্রামের বাড়িতে নিয়মিত যাতায়াত করছে এদের কেউ কেউ। বিভিন্ন সূত্র থেকে এমনই তথ্য এসেছে বলে দাবি তদন্তকারি সংস্থা এনআইয়ের। যেসব অভিযুক্তরা এখনও অধরা তাদের মধ্যে তিনজন বর্ধমান এবং তিনজন বীরভূম জেলার বাসিন্দা। তাই দুটি জেলার ওপরেই বিশেষ নজর দেওয়া হচ্ছে। অভিযুক্তদের সনাক্ত করতে যেসব জায়গায় তারা গা ঢাকা দিতে পারে সেই সব এলাকায় ছয় অভিযুক্তের ছবিও পোস্টারে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এনআইএ।

 কাঁথির অযোধ্যাপুরের পরিত্যক্ত টালি ভাটা থেকে উদ্ধার তাজা বোমা কাঁথির অযোধ্যাপুরের পরিত্যক্ত টালি ভাটা থেকে উদ্ধার তাজা বোমা

কাঁথির অযোধ্যাপুর হরিজনপল্লিতে একটি পরিত্যক্ত টালি ভাটা থেকে উদ্ধার বেশ কয়েকটি তাজা বোমা। মিলেছে বোমা তৈরির মসলাও। আর পুলিসকে এই বোমার খবর দিয়ে আক্রান্ত গ্রামেরই এক বাসিন্দা। গতকাল রাতে  পুলিস এসে বোমা উদ্ধারের পরই ওই ব্যাক্তির উপর হামলা হয় বলে অভিযোগ। তলোয়ার দিয়ে তাঁকে আঘাত করা হয়। জেলার তৃণমূল নেতা-জেলা পরিষদের শিক্ষা কর্মাধক্ষ্য মামুদ হোসেনের অভিযোগ, এলাকায় সন্ত্রাস ছড়াতে দুষ্কৃতীরা এই বোমা তৈরি করছিল। যদিও এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তবে, শীঘ্রই অপরাধীকে গ্রেফতার করা হবে, এই ভরসা দেন তাঁরা।

বোমা বাঁধতে গিয়ে উড়ল হাত, ভোটের মুখে তৃণমূলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগ এলাকাবাসীর  বোমা বাঁধতে গিয়ে উড়ল হাত, ভোটের মুখে তৃণমূলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগ এলাকাবাসীর

বোমা বাঁধতে গিয়ে হাত উড়ে গেল ২ দুষ্কৃতীর। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে রাজপুর-সোনারপুর পুরসভার ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের বোড়ালের সরলদিঘির একটি বাড়িতে। গতকাল রাতে ওই বাড়িটিতে দুষ্কৃতীরা বোমা বাঁধছিল বলে অভিযোগ। হঠাত্‍ই বিস্ফোরণ ঘটে। হাত উড়ে যায় দুই দুষ্কৃতীর। বাড়িটিতেও আগুন লেগে যায়। বিকট আওয়াজ শুনে এবং ধোঁয়া বেরোতে দেখে ছুটে আসেন স্থানীয় বাসিন্দারা। আহত দুই যুবককে মহামায়াতলার একটি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়। খবর পেয়ে এলাকায় পৌছে যায় সোনারপুর থানার বিশাল পুলিস বাহিনী এবং ইএফআর। পরে ঘটনাস্থলে যান আইসি সোনারপুর অনিল রায়। বাড়িটি থেকে ৩ টি তাজা বোমা ও প্রচুর পরিমাণ বোমার মশলা উদ্ধার হয়েছে। এলাকার বেশ কয়েকটি বাড়িতে তল্লাসি চালায় পুলিস। ভোটের মুখে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা সন্ত্রাস সৃষ্টি করতে বোমা বাঁধছিল বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ। তৃণমূল অবশ্য এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে।