রবিবার রাতে ইলামবাজারে খুন করা হল এক তৃণমূল নেতাকে

রবিবার রাতে ইলামবাজারে খুন করা হল এক তৃণমূল নেতাকে

রবিবার রাতে ইলামবাজারে খুন করা হল এক তৃণমূল নেতাকে। রাত ৮টা নাগাদ ধরমপুর পঞ্চায়েত অঞ্চল সভাপতি শেখ হাবোলকে নৃশংসভাবে পিটিয়ে ও পরে কুপিয়ে খুন করে একদল দুষ্কৃতী। খুনের কারণ নিয়ে ধন্দে পুলিস।তৃণমূল নেতার খুনের ঘটনায় শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। বিরোধীরা একে তৃণমূলের গোষ্ঠীদন্দের ফল বললেও তৃণমূলের তরফে গোষ্ঠীদন্দের কথা অস্বীকার করা হয়েছে। প্রশাসনের তরফ থেকে এই খুনের বিষয়ে কোন মন্তব্য করা হয়নি। শেখ হাবোলের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ইলামবাজার থানার পুলিস।

 হস্টেলের ঘর থেকে টেনে হিঁচড়ে বের করে পিটিয়ে মারা হল ছাত্রকে হস্টেলের ঘর থেকে টেনে হিঁচড়ে বের করে পিটিয়ে মারা হল ছাত্রকে

হস্টেলের ঘর থেকে টেনে হিঁচড়ে বের করে পিটিয়ে মারা হল ছাত্রকে। বোলপুরের বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ঘটনা। নিহত নিশান্ত কিরণ ক্যামেরিলায় গ্রুপের BITM কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। সহপাঠীরা জানিয়েছেন, শনিবার রাতে হস্টেলে ঢুকে নিশান্তের ওপর হামলা চালায় জামবনির শেখ জিয়াউল নামে এক যুবক। হস্টেল থেকে বের করে এনে বেধড়ক মারধর করা হয় নিশান্তকে। তাতেই তাঁর মৃত্যু হয়। নিশান্তকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত হন সৌরভ সিং নামে তাঁর এক সহপাঠী। আপাতত বোলপুর প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি তিনি। অভিযুক্ত শেখ জিয়াউলকে খুঁজছে পুলিস। কী কারণে হামলা তা এখনও স্পষ্ট নয় তদন্তকারীদের কাছে।