পিয়ালি মুখার্জির মৃত্যু-রহস্য ঘনীভূত হচ্ছে

রহস্য ক্রমেই দানা বাঁধছে। মঙ্গলবার রাতে বিমান বন্দর থানার নারায়ণপুর এলাকার একটি আবাসনের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় পিয়ালি মুখার্জির ঝুলন্ত দেহ। সোমবার সন্ধে থেকে মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত পিয়ালির সঙ্গে কে কে দেখা করতে এসেছিলেন তা খতিয়ে দেখছে পুলিস। সোমবার রাত সাড়ে নটা নাগাদ নিজের গাড়িতে শ্যামবাজার থেকে নারায়ণপুরে সিদ্ধা পাইন অ্যাপার্টমেন্টের ফ্ল্যাটে ফেরেন পিয়ালী মুখার্জি। গাড়িতে ছিলেন তাঁর বান্ধবী রূপকথা গাঙ্গুলি ও আরও এক ব্যক্তি। এমনটাই দাবি গাড়ির চালক হেমন্ত মান্নার।

বর্ধমানের তৃণমূল নেত্রীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার

বর্ধমানের এক তৃণমূল নেত্রীর অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে রহস্য দানা বেঁধেছে। মৃতার নাম পিয়ালি মুখার্জি। এয়ারপোর্ট থানার নারায়ণপুরের একটি আবাসনে থাকতেন তিনি। গতকাল নিজের ঘর থেকে পিয়ালি মুখার্জির ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়।

থানায় হেনস্থা আইনজীবীকে, প্রতিবাদে আইনের কারবারিরা

আইনজীবীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন জোড়াসাঁকো থানার ওসি। এই অভিযোগে  আজ কর্মবিরতির ডাক দিয়েছেন ব্যাঙ্কশাল কোর্ট এবং সিটি সেশন কোর্টের আইনজীবীরা। রবিবার নিজের মক্কেলকে নিয়ে জোড়াসাঁকো থানায় যান আইনজীবী মেওয়ালাল তেওয়াড়ি। সেই সময় থানার ওসি তাঁকে হেনস্থা করেন বলে অভিযোগ। এরই প্রতিবাদে আন্দোলনে নেমেছেন আইনজীবীরা।

গার্ডেনরিচ কাণ্ডের প্রতিবাদ: কংগ্রেসের বিক্ষোভে লাঠি পুলিসের

কংগ্রেস কর্মীদের বিক্ষোভে লাঠি চালাল পুলিস। গার্ডেনরিচ কাণ্ডে কংগ্রেস কর্মীদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে আজ ব্যাঙ্কশাল কোর্ট চত্বরে বিক্ষোভ শুরু করে কংগ্রেস। বিক্ষোভের নেতৃত্বে ছিলেন কংগ্রেস নেতা প্রদীপ ঘোষ। ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। পুলিসের সঙ্গে কংগ্রেস কর্মীদের বচসা বাধে । বচসা থেকে শুরু হয় হাতাহাতি। এরপরেই লাঠিচার্জ করে পুলিস।