রাজ্যের সবচেয়ে নজরকাড়া আসনে কাল নির্বাচন

রাজ্যের সবচেয়ে নজরকাড়া আসনে কাল নির্বাচন

রাজ্যের সবচেয়ে নজরকাড়া আসনে কাল নির্বাচন। আসনের নাম ভবানীপুর। তৃণমূল প্রার্থী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চ্যালেঞ্জার দীপা দাশমুন্সি। শহরের বাকি তিন আসনেও কড়া টক্কর।

ভবানীপুরে ভোট প্রচারে দিদিকে হারিয়ে এগিয়ে বৌদি ভবানীপুরে ভোট প্রচারে দিদিকে হারিয়ে এগিয়ে বৌদি

কেন্দ্র ভবানীপুর। জেলা, রাজ্য, দেশ তথা গোটা বিশ্বের আতসকাচের তলায় কলকাতা দক্ষিণের এই নজরকাড়া কেন্দ্র। দিদির গড়ে বৌদির লড়াই। হার-জিতের আগেই ভোটের বাদ্যি সবথেকে যে কেন্দ্রে বেজেছে, তার নাম ভবানীপুর। ট্রামে, বাসে, মেট্রোতে এখন একমাত্র চর্চা ভবানীপুর। নিন্দুকদের গলায় কটাক্ষের সুর, 'তৃণমূল সব জায়গায় জিতলেও হারবে ভবানীপুরেই।' বিজেপি সভাপতি অমিতজিও ভোট প্রচারে এসে বলে গেলেন ভবানীপুরে মমতাকে হারিয়েই পরিবর্তন আনুক মানুষ। এককাট্টা হয়েছে বিরোধীরাও। "রাজ্যের ২৯৪টি আসনে আমিই প্রার্থী", রাজ্য চষে বেড়ানো মুখ্যমন্ত্রী নিজের অলিগলিতে সময়টা একটু হলেও কম দিয়েছেন, আর সেটাই 'এনক্যাশ' করেছে জোটের প্রার্থী দীপা দাশমুন্সি। "৮ টি ওয়ার্ডের রন্ধ্রে রন্ধ্রে পৌঁছেছেন", দাবি দীপার। লোকসভার নিরিখে এই কেন্দ্রে বিজেপির কাছে পিছিয়ে তৃণমূল। অবশ্য ভাবনীপুরে বিজেপি লড়াইতে নেই বলেই দাবি শাসক-বিরোধী ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।   

সাদা শাড়ি আর হাওয়াই চটি পড়লেই সততার প্রতীক হওয়া যায় না, মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ রূপার সাদা শাড়ি আর হাওয়াই চটি পড়লেই সততার প্রতীক হওয়া যায় না, মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ রূপার

সাদা শাড়ি আর পায়ে হাওয়াই চটি পড়লেই সততার প্রতীক হওয়া যায় না। ষষ্ঠ দফার শেষ দিনের প্রচারে এভাবেই ফের মুখ্যমন্ত্রীকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন বিজেপি মহিলা মোর্চার নেত্রী রূপা গাঙ্গুলি।

অধীরের ইচ্ছায় মমতার বিরুদ্ধে প্রার্থী হিসাবে উঠে এল দীপা দাশমুন্সির নাম অধীরের ইচ্ছায় মমতার বিরুদ্ধে প্রার্থী হিসাবে উঠে এল দীপা দাশমুন্সির নাম

অধীর চৌধুরীর ইচ্ছায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে প্রার্থী হিসাবে উঠে এল দীপা দাশমুন্সির নাম। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে হাইকমান্ড। তবে, দীপা নিজে কি শেষপর্যন্ত এই কঠিন চ্যালেঞ্জ নিতে রাজি হবেন? প্রদেশ কংগ্রেসে কৌতুহল তুঙ্গে।

চমক রেখেই প্রথম দফায় ৪২ প্রার্থীর নাম ঘোষণা করতে চলেছে বিজেপি চমক রেখেই প্রথম দফায় ৪২ প্রার্থীর নাম ঘোষণা করতে চলেছে বিজেপি

বিজেপির প্রার্থী তালিকায় এবার বেশ কিছু নতুন মুখের উঁকি। সম্ভবত অশোকনগর কেন্দ্র থেকে দাঁড়াচ্ছেন রূপা গাঙ্গুলি। ভবানীপুর থেকে দাঁড়াতে পারেন নেতাজীর আত্মীয় চন্দ্রবোস।

 ভবানীপুর থেকেই প্রার্থী হচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভবানীপুর থেকেই প্রার্থী হচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

জল্পনার অবসান। বিধানসভা নির্বাচনে ভবানীপুর কেন্দ্র থেকেই প্রার্থী হচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনটাই খবর তৃণমূল সূত্রে। শনিবার দলের কর্মিসভায় তৃণমূল নেত্রী স্পষ্ট করে দেন,  এবার ভোটে তাঁর মূল টার্গেট বাম-কংগ্রেস জোটই।

জোট ছাড়াও ইতিমধ্যেই প্ল্যান বিও ছকে ফেলেছেন রাজ্য সিপিএমের শীর্ষনেতারা জোট ছাড়াও ইতিমধ্যেই প্ল্যান বিও ছকে ফেলেছেন রাজ্য সিপিএমের শীর্ষনেতারা

দোরগোড়ায় বিধানসভা নির্বাচন। দিল্লিতে জোরদার জোট তত্পরতা। বামসঙ্গ চেয়ে দরবার প্রদেশ নেতৃত্বের। বল এখন সোনিয়া গান্ধীর কোর্টে। তবে শুধুই কংগ্রেস নয় রাজ্যের বাম শিবিরের নজরও এখন দশ জনপথেই। তবে শুধুই জোটের ওপর ভরসা করে দুহাজার ষোলোর শক্তিপরীক্ষায় নামতে নারাজ  বামেরা। প্ল্যান এ বাম-কংগ্রেস জোট হলেও ইতিমধ্যেই প্ল্যান বিও ছকে ফেলেছেন রাজ্য সিপিএমের শীর্ষনেতারা।  কীরকম সেই প্ল্যান বি? অ্যাকশন প্ল্যানের নিরিখে বাছাই করা কেন্দ্রগুলিকে ভাগ করা হয়েছে তিনটি পর্যায়ে। কলকাতা বিধানসভার এগারোটি কেন্দ্রকে ভাগ করা হয়েছে সন্ত্রাস এবং  সাংগঠনিক শক্তির ভিত্তিতে। তৃতীয় পর্যায়ে রাখা হয়েছে এমন কেন্দ্রগুলিকে যেখানে সন্ত্রাসের আশঙ্কার পাশাপাশিই দুর্বল বামেদের সাংগঠনিক শক্তিও। এবং সেই নিরিখেই ইতিমধ্যেই ঠিক হয়ে গেছে কে কে হবেন সেনাপতি। কে কে হচ্ছেন ভোট যুদ্ধে সেনাপতি।চলুন একনজরে দেখে নেওয়া যাক:

'কার্তিক পুজোর থিম বড়দা আবার ভবানীপুরে' 'কার্তিক পুজোর থিম বড়দা আবার ভবানীপুরে'

কার্তিক পুজোর থিম বড়দা আবার ভবানীপুরে

ভবানীপুরে চুরির কিনারা করল পুলিস

ভবানীপুরের মোহিনীমোহন লেনের চুরির  কিনারা করল  পুলিস। গ্রেফতার করা হয়েছে বাড়ির পরিচারিকা সুমিত্রা দে এবং তার সঙ্গী সুরজ পাত্রকে। দুজনের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে চুরি যাওয়া জিনিসপত্রও। সুরঞ্জন ঘোষের বাড়ি ও তাঁর শ্বশুর বাড়িতে গত দুবছর ধরে পরিচারিকার কাজ করত ওড়িশার বাসিন্দা সুমিত্রা দে। 

তালের ফুলুরি আর নিরামিষ কেকে বলরাম মল্লিকের জন্মষ্টমী

বর্ষার সময় পাড়ায় এখন কি আর সেই মনমাতানো গন্ধ মেলে? জন্মাষ্টমীর মিষ্টিতে তালের ফুলুরি ছিল মাস্ট। এখন কি আর তাল-রান্নার ঝক্কি নেন কেউ? খোদ দক্ষিণ কলকাতায় এক পাকশালায় আবশ্য খোঁজ মিলল বাংলার ঐতিহ্যের তাল-মিষ্টান্নের।

মোহনবাগানকে গোল ব্যারেটোর

মোহনবাগানকে গোল দিলেন ব্যারেটো। সবুজ তোতার গোলেই জয়ের স্বপ্ন হাতছাড়া করিমের দলের। ঘরোয়া লিগে যুবভারতীতে ওডাফাহীন মোহনাবগান প্রথমার্ধ দাপট দেখাল ভবানীপুরের বিরুদ্ধে। শুরু দাপটেই অনিলকুমারের গোলে এগিয়ে যায় মোহনবাগান। আরও কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া করলেন টোলগেরা। দু একটি পাস ছাড়া টোলগের পারফরম্যান্স এদিনও ছিল সাদামাঠা। দ্বিতীয়ার্ধে পুরানো দলের বিরুদ্ধে জ্বলে উঠলেন ব্যারেটো। জ্বলে উঠল গোটা ভবানীপুর দল। শেষ পঁচিশ মিনিট কার্যত মোহন ডিফেন্সকে ছিঁড়ে খেল ব্যারেটোর দল।

শাসকদলের রোষানলে রণক্ষেত্র ভবানীপুর

বাড়ির সামনে ট্যাক্সি পার্ক করায় ঢুকতে পারছেনা বাসিন্দাদের গাড়ি। তার প্রতিবাদ করায় বৃহস্পতিবারের পর শুক্রবারও রণক্ষেত্রের চেহারা নিল ভবানীপুরের ২১ নম্বর চক্রবেড়িয়া রোড সাউথ।