নেতৃত্বের চাপে ভাঙড়ে এক মঞ্চে আরাবুল ইসলাম ও রেজ্জাক মোল্লা

নেতৃত্বের চাপে ভাঙড়ে এক মঞ্চে আরাবুল ইসলাম ও রেজ্জাক মোল্লা

  নেতৃত্বের চাপে ভাঙড়ে এক মঞ্চে আরাবুল ইসলাম ও রেজ্জাক মোল্লা। ভাঙড়ে পাকপোল বাজারে দলীয় কর্মীদের নিয়ে সভা করলেন দুজনে। গত পরশুই ভাঙড়ের দ্বন্দ্ব মেটাতে আরাবুল ইসলাম , কাইজার আহামেদ এবং রেজ্জাক মোল্লাকে এক সঙ্গে বসিয়ে মিটিং করেন শোভন চট্টোপাধ্যায়।  সংঘাত মেটাতে আরাবুল ইসলামকে সভাপতি করে ভাঙড়ের জন্য গড়া হয় নির্বাচনী কমিটি।  কনভেনর করা হয় কাইজারকে। তার পরেই গতকাল একসঙ্গে ভাঙড় রাজনীতির দুই যুযুধান আরবুল-রেজ্জাক। যদিও সভায় ছিলেন না কাইজার আহমেদ।

ভাঙড়ে কি তৃণমূলের অফিসিয়াল প্রার্থীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দলেরই আনঅফিসিয়াল প্রার্থী? ভাঙড়ে কি তৃণমূলের অফিসিয়াল প্রার্থীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দলেরই আনঅফিসিয়াল প্রার্থী?

ভাঙড়ে কি তৃণমূলের অফিসিয়াল প্রার্থীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দলেরই আনঅফিসিয়াল প্রার্থী? রেজ্জাক মোল্লার প্রথম প্রচার সভায় কাইজার-আরাবুলের গরহাজিরা কিন্তু সে ইঙ্গিতই দিচ্ছে। কারণ, প্রার্থী নিয়ে ক্ষোভের জেরে নির্দল দাঁড়াচ্ছেন আরাবুলের রাইট হ্যান্ড। সিপিএম ছেড়ে আব্দুর রেজ্জাক মোল্লা এখন তৃণমূলে। রবিবার ভাঙড়ের শোনপুরে প্রথম প্রচার সভা। অথচ তৃণমূলের নেতা বলতে দু নম্বর ব্লকের পঞ্চায়েত সভাপতি ওহিদুল ইসলাম ও নান্নু হোসেন। কোথায় আরাবুল ইসলাম? কোথায় বা কাইজার আহমেদ?

প্রার্থী রেজ্জাক মোল্লার নাম ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই ভাঙড়ের আকাশে কালো মেঘ প্রার্থী রেজ্জাক মোল্লার নাম ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই ভাঙড়ের আকাশে কালো মেঘ

সাসপেনশন তুলে নিয়ে আরাবুল ইসলাম, কাইজার আহমেদ গোষ্ঠীকে ভোটের আগে বাগে আনার চেষ্টায় সফল তৃণমূল। কিন্তু প্রার্থী হিসেবে রেজ্জাক মোল্লার নাম ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই ভাঙড়ের আকাশে কালো মেঘ।  দলের নির্দেশ মেনে আরাবুল-কাইজার নীরব থাকলেও, রেজ্জাকের বিরুদ্ধে সরব তৃণমূল কর্মী থেকে গ্রামের সাধারণ ভোটাররা। ভোটের আগে বাধ্য ছাত্রের মত দলের লাইন মানার ব্রত নিয়েছেন আরাবুল ইসলাম, কাইজার আহমেদ। প্রকাশ্যে মুখ খোলা নিষেধ।  নেত্রীর ইচ্ছেতেই ভাঙড়ে প্রার্থী চাষার ব্যাটা। সুতরাং নিরুপায় ভাঙড়ের তাজা নেতারা।

ব্রিগেডে আসার পথে ভাঙরে আক্রান্ত সিপিএম সমর্থকেরা ব্রিগেডে আসার পথে ভাঙরে আক্রান্ত সিপিএম সমর্থকেরা

ব্রিগেডে আসার পথে ভাঙরে আক্রান্ত সিপিএম সমর্থকেরা। হামলার অভিযোগ তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে, বর্ধমানের মন্তেশ্বরে তৃণমূল কর্মীদের ওপর হামলার অভিযোগ উঠল সিপিএমের বিরুদ্ধে। ব্রিগেডে আসার পথে ভাঙরে আক্রান্ত হলেন সিপিএম সমর্থকেরা। ভাঙরের বাকরি এলাকায় সিপিএমের জনা পঁচিশেক সমর্থক ব্রিগেডের জমায়েতে যোগ দেওয়ার জন্য  দুটি গাড়ির ব্যবস্থা করেন। কিন্তু গাড়ি পৌছতেই  সেখানে পৌছে যায়  বাহিক বাহিনী।  প্রায় পঞ্চাশ জন  দুষ্কৃতীদের দেখে গাড়ি নিয়ে চম্পট দেন চালকেরা।এই সময়ই আক্রান্ত হন সিপিএম সমর্থকেরা। মারধরে আহত হন আট জন। যদিও তাঁদের দমানো যায়নি।

গ্রেফতার হোক আরাবুল, আদালতে আর্জি ভাঙড়ে মৃতের স্ত্রীর গ্রেফতার হোক আরাবুল, আদালতে আর্জি ভাঙড়ে মৃতের স্ত্রীর

গ্রেফতার করা হোক আরাবুল ইসলামকে। এই আর্জি নিয়ে হাইকোর্টের দারস্থ হলেন ভাঙড়ে নিহত তৃণমূল কর্মী রমেশ ঘোষালের স্ত্রী। ভাইফোঁটার দিন খুন হন রমেশ ঘোষাল, বাপন মণ্ডল। হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠ

স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার হাত মুচড়ে দিল তৃণমূল কর্মী স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার হাত মুচড়ে দিল তৃণমূল কর্মী

ভাঙড়ে শিক্ষিকার দিকে জলের জগ ছুঁড়ে মেরেছিলেন আরাবুল ইসলাম। তা নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। এবার বর্ধমানের জামুরিয়ায় প্রধান শিক্ষিকার হাত মুচড়ে দিলেন এক তৃণমূল কর্মী। বেনালী বনমালীপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের

 দল তাড়ালেও আরাবুল রয়েছেন আরাবুলেই, সাক্ষী ২৪ ঘণ্টা দল তাড়ালেও আরাবুল রয়েছেন আরাবুলেই, সাক্ষী ২৪ ঘণ্টা

ভাঙড়ের মুকুটহীন সম্রাট আরাবুল আছেন আরাবুলেই। দল বহিষ্কার করলেও লোকচক্ষুর আড়ালে থেকে নিজস্ব ঢঙেই সব কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন আরাবুল ইসলাম। বারুইপুর মহকুমাশাসকের অফিসে গিয়ে ধরা পড়ে গেলেন চব্বিশ ঘণ্টার ক

মাখড়া পেল ক্ষতিপূরণ, এখনও অপেক্ষায় ভাঙড় মাখড়া পেল ক্ষতিপূরণ, এখনও অপেক্ষায় ভাঙড়

মাখড়া ও ভাঙড়। দুই জেলার দুটি জায়গা। তবে মৃত্যু মিছিল, খুনোখুনি আর সন্ত্রাসের আবহে ঘুচে গেছে সব মাখড়া আর ভাঙড়ের দূরত্ব। তবে, তফাত্‍ একটা রয়েই গেছে। তিন জন খুন হওয়ার পর সরকারি ক্ষতিপূরণ পেয়েছে মা

আরেকবার সুযোগ চাইলেন আরাবুল আরেকবার সুযোগ চাইলেন আরাবুল

দলের কাছে ক্ষমা চেয়ে চিঠি দিলেন আরাবুল ইসলাম। একটা শেষ সুযোগ চাইলেন দলের কাছে। চিঠি পাঠিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। ভাঙড়ের প্রাক্তন বিধায়ক চিঠি পাঠিয়েছেন তৃণমূলের শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটিতেও। দলের শী

কে পরবেন 'আরাবুল মুকুট'? কে পরবেন 'আরাবুল মুকুট'?

দলের রোষে ক্ষমতা গেছে ভাঙড়ের দাপুটে নেতা আরাবুল ইসলামের। কার মাথায় উঠবে এবার আরাবুলের মুকুট? কাইজার, নাকি ভাঙড় দুনম্বর ব্লকের সভাপতি ওহিদুল ইসলাম? কে হবেন ভাঙড়ের মুকুট হীন সম্রাট?

ভাঙড়ে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, অভিযুক্তের পাশে আরাবুল ভাঙড়ে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, অভিযুক্তের পাশে আরাবুল

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার ভাঙড়ে ফের তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে। দলেরই এক যুব নেতা খুনের ঘটনায় অভিযুক্তের পাশে দাঁড়ালেন তৃণমূলের প্রাক্তন বিধায়ক আরাবুল ইসলাম। কয়েকদিন আগে খুন হন ভাঙড় এক নম্বর ব্

ভাঙড়ে তৃণমূল নেতা খুনে গ্রেফতার আরও এক তৃণমূল কর্মী

ভাঙড়ে তৃণমূল নেতা রাজ্জাক সর্দার হত্যাকাণ্ডে আরও এক তৃণমূল কর্মীকে পুলিস গ্রেফতার করল। ধৃতের নাম খলিল শেখ। গত পঁচিশে ফেব্রুয়ারি ভাঙড়ের সিংহেশ্বর বাজারে খুন হন ওই তৃণমূল নেতা। তৃণমূল নেতা জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী সহ বারো জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন নিহতের ছেলে।

ভাঙড়ে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে খুন তৃণমূল যুব নেতা, গ্রেফতার ৪

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার ভাঙড়ে খুন হলেন তৃণমূল যুব নেতা। নিহত নেতার নাম রাজ্জাক সর্দার। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সিংহেশ্বর বাজারের কাছে তাঁর ওপর হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। ব্যাপক বোমাবাজি করে তাঁকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়। হামলার সময় এলাকা অন্ধকার করে দেওয়া হয়।

অশান্ত ভাঙড়ে তৃণমূল সমর্থক খুনে গ্রেফতার সাত্তার মোল্লা

পঞ্চায়েত ভোট হিংসা চরমে উঠল। অশান্ত ভাঙড়ে খুন হলেন এক তৃণমূল কর্মী। গতকাল, মঙ্গলবার রাতে বাড়িতে ঢুকে খুন করা হয় ওই তৃণমূল কর্মীকে। অভিযোগ সিপিআইএম সমর্থকরাই খুন করে। দক্ষিণ ২৪ পরগনার ভাঙড়ের শাকশহরে ঘুঙড়িআইতে এই ঘটনাটি ঘটে।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতলেন আরাবুল

রাজ্য রাজনীততে তিনি বিতর্কের আরেক নাম। দলের মধ্যে তিনি অস্বস্তির আরেক নাম। ক মাস আগে জেলও খেটেছেন। সেই আরাবুল এবার ভোটে জিতলেন। তবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়। জেল ফেরত আরাবুলের বিরুদ্ধে কেউ ভোটে দাঁড়ানোর `সাহস`করলেন না।

হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন আরাবুল

আজ এসএসকেএম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন আরাবুল ইসলামকে। তাঁকে সোনারপুর থানায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।আজই তাঁকে আদালতে পেশ করার সম্ভাবনা রয়েছে। গত সপ্তাহে গ্রেফতার করা হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস নেতা আরাবুল ইসলামকে। কিন্তু হাসপাতালে ভর্তি থাকায় তাঁকে এখনও আদালতে তোলা যায়নি। রেজ্জাক মোল্লার ওপর আক্রমণের মামলায় জামিন পেলেও, বামনঘাটায় বামেদের মিছিলে হামলার ঘটনায় এখনও জামিন পাননি এই তৃণমূল নেতা।