রাজ্য বাজেট পেশের মাঝেই রণক্ষেত্র কেরল বিধানসভা, একযোগে অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি বিরোধীদের

রাজ্য বাজেট পেশের মাঝেই রণক্ষেত্র কেরল বিধানসভা, একযোগে অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি বিরোধীদের

কেরলে বিধানসভার বাইরে ও ভিতরে প্রবল বিক্ষোভের মাঝেই ঝড়ের গতিতে রাজ্য বাজেট পেশ করলেন অর্থমন্ত্রী কেএম মনি। বিরোধী দল সিপিআই(এম) পরিচালিত এলডিএফ আগেই জানিয়েছিল যেকোনও উপায়ে রাজ্য বাজেট পেশ করা থেকে অর্থমন্ত্রীকে রুখবেন তারা। সেই অনুযায়ী আজ বাজেট পেশের সময় সংসদ উত্তাল হওয়ার আশঙ্কা ছিল আগে থেকেই।

পুরভোটের আগে জনমোহিনী বাজেটে চোখ অমিত মিত্রের পুরভোটের আগে জনমোহিনী বাজেটে চোখ অমিত মিত্রের

সামনেই রাজ্য জুড়ে পুরভোট। তার আগে আজ বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। কেমন হবে রাজ্যের বাজেট?

রাজ্য সরকারি কর্মীদের উত্সব অ্যাডহক বোনাস বাড়ল, তবে ডিএ নিয়ে ধোঁয়াশা থাকলই

রাজ্য সরকারি কর্মীদের উত্সব অ্যাডহক বোনাস ২৬০০ টাকা থেকে বেড়ে হল ৩ হাজার টাকা। গ্রুপ সি ও গ্রুপ ডি কর্মীদের মধ্যে যাঁদের বেতন ২২হাজার টাকা পর্যন্ত, তাঁরাই পাবেন এই বোনাস। ২২ হাজার টাকা থেকে ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত বেতন যাঁদের, তাঁদের অগ্রিমও বেড়ে হল তিন হাজার টাকা।

ডিএ প্রসঙ্গ এড়িয়ে গেলেন অর্থমন্ত্রী

রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা বকেয়া ডি এ কবে পাবেন, তা ফের এড়িয়ে গেলেন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। মঙ্গলবার বিধানসভায় চলতি আর্থিক বছরের ব্যয়মঞ্জুরির হিসাব পেশ করেন তিনি। কিন্তু কর্মীদের বকেয়া ডি এ দেওয়ার কোনও কথাই নেই ওই হিসাবে।

শিল্পমন্ত্রী হওয়ার পর আজই প্রথম অর্থপরীক্ষা অমিত মিত্রর

দিল্লিতে যখন অন্তর্বর্তী বাজেট পেশ করবেন পি চিদম্বরম তখন আজ বিধানসভায় রাজ্য বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। অমিত মিত্র আজ তাঁর তৃতীয় পূর্ণাঙ্গ বাজেট পেশ করবেন। শিল্পমন্ত্রী হওয়ার পর অবশ্য এটাই তাঁর প্রথম আর্থিক বাজেট।

আট কোটি টাকার ঘাটতি বাজেট পেশ করলেন অমিত মিত্র

বিধানসভায় রাজ্য বাজেট পেশ করলেন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। ক দিন পরেই পঞ্চায়েত ভোট। তাঁর দল বিভিন্ন ইস্যুতে কোণঠাসা। এ হেন পরিস্থিতিতে অর্থমন্ত্রী এই বাজেটে কল্পতরু হয়ে ওঠার চেষ্টা করলেন।

রাজস্ব বাড়াতে কর বাড়ানোর সিদ্ধান্ত

রাজস্ব আদায় বাড়াতে শেষ পর্যন্ত কর বাড়ানোর পথেই এগোল রাজ্য সরকার। বিধানসভায় আজ রাজ্যবাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। বাজেটে মূল্যযুক্ত কর বা ভ্যাটের সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন হার এক শতাংশ করে বাড়ানো হয়েছে। যার জেরে সমস্ত জিনিসপত্রের দাম বাড়ার আশঙ্কা।