বিচারের দাবিতে প্রতিবাদে লোবা

পুলিস বলছে, গুলি চলেনি লোবায়। হাইকোর্টে একথা জানিয়ে রিপোর্টও জমা দেওয়া হয়েছে জেলা পুলিসের পক্ষ থেকে। অথচ স্থানীয় মানুষের অভিযোগ, ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে প্রশাসন। এর প্রতিবাদে শুক্রবার বীরভূমের এসপির অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান লোবার বাসিন্দারা। অন্যদিকে, হাইকোর্টে এ দিন লোবা-মামলার শুনানি ছিল। ঘটনার বিস্তারিত বিবরণসহ রাজ্য সরকারকে হলফনামা জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

লোবায় দোষীদের শাস্তির আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর

দুবরাজপুরের লোবায় গিয়ে পুলিসের ভূমিকার কড়া সমালোচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার লোবায় এক জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেন, জমি নিয়ে লোবায় যে অশান্তি হয়েছে, সেই ঘটনার খবর সরকারের কাছে ছিল না। কিন্তু গুলি চালনার ঘটনা অন্যায় হয়েছে বলে স্বীকার করে নেন তিনি।

লোবা গ্রামবাসীদের মানবাধিকার কমিশনে যাওয়ার পরামর্শ দীপার

পুলিসের কাজ সুরক্ষা দেওয়া, গুলি চালানো নয়। লোবা গ্রামের ঘটনায় প্রশাসনকে এই ভাষাতেই আক্রমণ করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দীপা দাশমুন্সি। এরই সঙ্গে গোটা ঘটনার সিবিআই তদন্তেরও দাবি জানিয়েছেন তিনি। সোমবার লোবায় গিয়ে দীপা বলেন, "লোবা নিয়ে কোনও রাজনৈতিক দলকে ফায়দা তুলতে দেব না।" লোবা গ্রামে গুলি চালনোর ঘটনা `সাজানো`, মুখ্যমন্ত্রীর এই দাবি খারিজ করে দিয়েছেন দীপা।